Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

Bengal Polls: এখনও হাসপাতালে ‘জাকির’দা’, ‘ভরত’ হয়েই গড় সামাল দিচ্ছেন তাঁর অনুগামীরা

নিজস্ব সংবাদদাতা
জঙ্গিপুর ১৮ মার্চ ২০২১ ০৯:৫৮
জাকির হোসেনের ছবি নিয়ে প্রচারে তৃণমূল কর্মীরা।

জাকির হোসেনের ছবি নিয়ে প্রচারে তৃণমূল কর্মীরা।
নিজস্ব চিত্র

বোমা বিস্ফোরণ-কাণ্ডে গুরুতর জখম হয়ে এখনও চিকিৎসাধীন জঙ্গিপুরের তৃণমূল প্রার্থী তথা রাজ্যের শ্রম দফতরের প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন। কিন্তু তা বলে ধাক্কা খাচ্ছে না জঙ্গিপুরে তৃণমূলের প্রচার। বরং দলীয় কর্মী-সমর্থকরা রামানুজ ‘ভরত’-এর মতোই জাকিরের ছবি নিয়ে প্রচারে নেমেছেন এলাকা জুড়ে। তাঁদের আশা, অস্ত্রোপচারের ধাক্কা সামলে খুব তাড়াতাড়িই প্রচার অভিযানে যোগ দেবেন জাকির।

গত ১৭ ফেব্রুয়ারি তিস্তা তোর্সা এক্সপ্রেস ধরতে মুর্শিদাবাদের নিমতিতা স্টেশনে পৌঁছন রাজ্যের ওই মন্ত্রী। তাঁর গন্তব্য ছিল কলকাতা। কিন্তু ট্রেন ধরার আগেই প্ল্যাটফর্মে বোমা বিস্ফোরণে জখম হন জাকির। তিনি এখনও কলকাতায় চিকিৎসাধীন। ইতিমধ্যেই দল তাঁকে দ্বিতীয় বারের জন্য প্রার্থী করেছে জঙ্গিপুর কেন্দ্র থেকে। জাকির না থাকলেও, ভোট প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন দলের কর্মী-সমর্থকরা। তৃণমূলের প্রার্থিতালিকা ঘোষণা হওয়ার পর দিন থেকেই ময়দানে নেমে পড়েছেন তাঁরা। জাকিরের কাট আউট সঙ্গে নিয়ে বাড়ি বাড়ি ঘুরছেন কর্মীরা। সেই সঙ্গে তুলে ধরছেন রাজ্য সরকারের উন্নয়নমূলক কাজের ফিরিস্তিও।

জোড়াফুল শিবিরের এক কর্মী যেমন বললেন, ‘‘জাকির’দার চিকিৎসা চলছে। তা বলে আমরা পিছিয়ে থাকব না। জাকির’দা না থাকলেও আমরা ভোট প্রচার করছি। তিনি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন এবং ভোটের প্রচারে নামবেন বলেই আশা করছি।’’ ঘটনাচক্রে জাকির এখনও এসএসকেএমে চিকিৎসাধীন। কয়েক বার অস্ত্রোপচারও হয়েছে তাঁর। চিকিৎসকদের মতে, এখনও বিস্ফোরণের আতঙ্ক কাটিয়ে উঠতে পারেননি জাকির। আগামী ২৬ মার্চ ভোট রয়েছে জঙ্গিপুর আসনে। দলীয় নেতৃত্বের আশা, তার আগেই সুস্থ হয়ে জঙ্গিপুরের জঙ্গ সামাল দিতে নেমে পড়বেন জাকির।

Advertisement

মুর্শিদাবাদ জেলার তৃণমূল সভাপতি আবু তাহের খান বলছেন, ‘‘জাকিরের উপর পরিকল্পনা করে দুস্কতীরা হামলা চালিয়েছিল। তিনি বর্তমানে কলকাতায় চিকিৎসাধীন। তাঁর অনেক অনুগামীও চিকিৎসাধীন। আমরা দৈনিক খোঁজখবর রাখছি। তাঁকে জঙ্গিপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে দল প্রার্থী করেছে। যদিও ভোট দেরি আছে। তবে প্রচারে আমরা খামতি রাখতে চাই না। তাই স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বই সেই দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিয়েছেন।’’

আরও পড়ুন

Advertisement