×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৪ জুন ২০২১ ই-পেপার

Bengal Polls: বাড়িভাড়া নিয়েছি, আপাতত নন্দীগ্রামেই থাকছি, ভোট করিয়ে যাব, চণ্ডীপুরে বললেন মমতা

নিজস্ব সংবাদদাতা
চণ্ডীপুর ২৮ মার্চ ২০২১ ১৫:১৮
সোহমকে পাশে নিয়ে চণ্ডীপুরের সভায় মমতা।

সোহমকে পাশে নিয়ে চণ্ডীপুরের সভায় মমতা।

দ্বিতীয় দফার ভোট পর্যন্ত নন্দীগ্রামেই থাকছেন তিনি। চণ্ডীপুরের সভা থেকে জানিয়ে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মনোনয়ন জমা দেওয়ার আগেই নন্দীগ্রামের রেয়াপাড়া এলাকায় ঘর ভাড়া নিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী। আগামী কয়েক দিন সেখানেই থাকার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন মমতা। ভোট করিয়ে তার পর কলকাতা ফিরবেন।

নন্দীগ্রামের পাশের কেন্দ্র চণ্ডীপুরে অভিনেতা সোহমকে প্রার্থী করেছে তৃণমূল। রবিবার তাঁর হয়ে সেখানে সভা করেন মমতা। তিনি বলেন, ‘‘সোহম অত্যন্ত ভাল ছেলে। ৩৬৫ দিন দলের হয়ে কাজ করে। তাই ওকে জিততে দেখতে চাই।’’

চণ্ডীপুরের সভা থেকে প্রথম দফার ভোট নিয়ে বিজেপি-র বিরুদ্ধে আক্রমণ শানান মমতা। তিনি বলেন, ‘‘উত্তরপ্রদেশ থেকে বন্দুকধারী গুন্ডা ঢুকিয়ে এনে ভোট করাচ্ছে। ওদের কথায় চলছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। আমরা খাওয়া, থাকার খরচ জোগাচ্ছি। কিন্তু আমাদের ভোটারদেরই মারধর করছে। কেন্দ্রীয় বাহিনীকে সম্মান করি। কিন্তু মনে রাখবেন, উত্তরপ্রদেশের যোগীজির মতো ভোট এখানে হবে না।’’

Advertisement

সরাসরি আপডেট—

• ০৩.৫১: যত ক্ষণ আমার জীবন থাকবে, আমি বিজেপি, সিপিএম-কে ক্ষমা করব না। জগাই-মাধাই-গদাই একজোট হয়েছে। তৃণমূল একাই একশো। আমার বিরুদ্ধে এক হাজার লোক বাইরে থেকে নিয়ে এসে বসে রয়েছে: মমতা

• ০৩.৫০:ভয় দেখাতে এলে, দু’টো হাত আছে তো? কষিয়ে থাপ্পড় দেবেন। আমি অন্যায় করলে আমাকেও দেবেন: মমতা

• ০৩.৪৬: ভাবছে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে বলব, কেন বিজেপি-কে ভোট দিতে বলবেন আপনারা? মনে রাখবেন, উত্তরপ্রদেশের যোগীজির ভোট এখানে হবে না: মমতা

• ০৩.৪২ উজ্জ্বলার কোটি কোটি টাকা খেয়ে নিয়েছে। আগে বিড়ি খাওয়ার পয়সা ছিল না, এখন কোটি কোটি টাকা তাদের। সিপিএম-এর হার্মাদরা এখন বিজেপি যোগ দিয়েছে, আর আমাদের কিছু গদ্দাররা তো রয়েইছে: মমতা

• ০৩.৪০: নোটবন্দির সময় ১৫ লক্ষ করে দেবেন বলেছিলেন নরেন্দ্র মোদী। পেয়েছেন? ৯৫০ টাকার গ্যাস কিনে রান্না করতে হচ্ছে। চাল দিচ্ছি বিনা পয়সায়। খাদ্য যদি আমি বিনা পয়সায় দিই, তাহলে বিজেপি-কে গ্যাসও বিনা পয়সায় দিতে হবে : মমতা

• ০৩.৩৯: ইভিএম খারাপ হলে চলে যাবেন না। মেশিন চালু হলে ভোট দিয়ে তবেই যাবেন: মমতা

• ০৩.৩৭: মণ্ডল কমিশনে যাদের নাম ছিল, ওবিসি হয়নি, আগামী দিনে সব হয়ে যাবে। শুধু ভোটটা দিতে হবে। সব অঙ্গীকার পূরণ করব আমরা। দুয়ারে দুয়ারে খাবার যাবে, বিনামূল্যে চিকিৎসা করাতে পারবেন, ছেলেমেয়েরা পড়াশোনা করতে পারবেন, মা-বোনেরা মাথা উঁচু করে বাঁচবেন: মমতা

• ০৩.৩৫: ২মে আর একটা দোলযাত্রা হবে: মমতা

• ০৩.৩০: ১ তারিখে একটা করে ভোট দেবেন, আর বিজেপি-কে মাঠের বাইরে বার করে দেবেন। একেবারে বোল্ড আউট করে দেবন: মমতা

• ০৩.২৫: আগামী দিনে আরও ১০ লক্ষ মেয়েকে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর আওতায় নিয়ে আসব। ৭০ শতাংশ আপনারা মেটাবেন। বাকি টাকা আমরা দেব: মমতা

• ০৩.২৫: কৃষকবন্ধুরা মনে রাখবেন, এখন একর প্রতি ৫ হাজার টাকা পান, তা ৬ হাজার হয়েছে। আমাদের সরকার থাকলে তা ১০ হাজার হয়ে যাবে। মা-বোনেদের ৫০০ টাকা করে হাত খরচ দেব। তফসিলি বন্ধুদের ১০০০ টাকা করে দেব: মমতা


• ০৩.২৫: কে কোথায় ঘুরছে, কার সঙ্গে সম্পর্ক রাখছে, সব দিকে নজর রাখছি। আমাদের দোষ বড় বড় গদ্দার পুষেছি। মিরজাফর পুষেছি: মমতা

• ০৩.২৪:মেয়েদের ভোট দিতে দিচ্ছে না। হুমকি দিচ্ছে। কেন্দ্রীয় বাহিনীকে কে এত ক্ষমতা দিয়েছে? বাংলায় থাকার খরচ, খাওয়ার খরচ আমরা জোগাচ্ছি। আর এখানেই লাঠি চালাবে? কার নির্দেশে মেরেছে জানি। এ বার মারতে এলে হাতা-খুন্তি-বঁটি নিয়ে তেড়ে যাবেন। বুথ থেকে বার করে দিতে এলে বিদ্রোহ করবেন। এজেন্টরা পালিয়ে যাচ্ছ। মনে রাখবে, ক্ষমা করব না। কে টাকা নিচ্ছে, কার বাড়িতে ছড়াচ্ছে, সব জানি। এমনি জেতার ক্ষমতা নেই। কাঁথি-ভগবানপুরে কারা সমঝোতা করেছে জানি। কাঁথিতে টাকা ছড়াচ্ছিল জ্যাঠার ছেলে। ওটা কার টাকা? এত পেট্রোল পাম্প, ট্রলার, লঞ্চ, সমব্যায় ব্যঙ্কে এত টাকা কোথা থেকে এল? ভাবছো জানি না? জানি আমার দোষ। চিনতে পারিনি। ভালবেসেছিলাম। এখন বুঝতে পারছি কত ভয়ঙ্কর: মমতা

• ০৩.৩২: ভারতে ৪০ শতাংশ বেকার বেড়েছে। বাংলায় দারিদ্রতা কমে গিয়েছে। বেকারত্ব কমেছে। আমরা বাংলায় এনআরসি, এনপিআর করতে দেব না। সংখ্যালঘুদের বলি, হায়দরাবাদ থেকে এসে ভোট ভাগ করতে চাইছে। দিল্লি, উত্তরপ্রদেশে দাঙ্গার সময় কোথায় ছিল? বাংলায় দাঙ্গা হয়নি। আমরা বংলায় সম্প্রীতি বজায় রেখেছি। এদের থেকে সাবধান। বিজেপি-র হাতে স্টেনগান। জনগন সাবধান: মমতা

• ০৩.২১: সোহম বহিরাগত নয়। ও বাংলার ছেলে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলার মেয়ে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বহিরাগত নন। কাঁথিতে এমনি জেতার ক্ষমতা নেই বাপ-জ্যাঠাদের। উত্তরপ্রদেশ থেকে বন্দুকধারী গুন্ডা এনে ভোট করাচ্ছে। কেন্দ্রীয় বাহিনী বিজেপি-র হয়ে কাজ করছে: মমতা

• ০৩.২১: নন্দীগ্রামে আপনাদের কাছেই ঘর ভাড়া নিয়েছি। ভোট পর্যন্ত থাকব। ভোট করিয়েই যাব: মমতা

• ০৩.২০: দোলের দিন বিরক্ত করছি আপনাদের। ভোট দোলের মধ্যে পড়লে কী করব? মমতা

• ০৩.১২: সোহম খুব ভাল ছেলে। ৩৬৫ দিন দলের কাজ করে। ওকে জিততে দেখতে চাই: মমতা

Advertisement