Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৭ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন

Bengal Polls: জুটিতে বিশ কোটি! দেখে নিন ভারতী ঘোষের দেওয়া সম্পত্তির হিসেব

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ১৪ মার্চ ২০২১ ১১:০৭
পুলিশের উর্দি গায়ে একসময় জঙ্গলমহলে দাপিয়ে বেড়াতেন তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘জঙ্গলমহলের মা’ উপাধিও তাঁরই দেওয়া। কিন্তু সময়ের ফেরে তৃণমূলনেত্রীর একসময়ের ‘স্নেহধন্যা’ ভারতী ঘোষ এখন পদ্মশিবিরে।

২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে ঘাটাল থেকে বিজেপি-র হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন ভারতী। কিন্তু অভিনেতা দেবের কাছে পরাজিত হয়েছিলেন। তবে হাল ছাড়েননি ভারতী। এ বার নীলবাড়ির লড়াইয়ে শামিল হয়েছেন প্রাক্তন এই আইপিএস অফিসার।
Advertisement
পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরায় তাঁকে প্রার্থী করেছে বিজেপি। ইতিমধ্যেই মনোনয়ন জমা দিয়েছে ভারতী। তাতে স্বামী এবং নিজের সম্পত্তির যে খতিয়ান তুলে ধরেছেন তিনি, তাতে দেখা গিয়েছে, স্থাবর-অস্থাবর মিলিয়ে ১০ কোটি ৯ লক্ষ ৯২ হাজার ৮৩১ টাকার মালকিন তিনি।

ভারতীর স্বামী এম এ ভি রাজু স্টক এক্সচেঞ্জে কর্মরত। স্থাবর-অস্থাবর মিলিয়ে তাঁর স্বামীর মোট সম্পত্তির পরিমাণ ৯ কোটি ১১ লক্ষ ২০ হাজার ৪৮০ টাকা। ভারতী যদিও উত্তরাধিকার সূত্রে কিছু সম্পত্তি পেয়েছেন, হলফনামায় তাঁর স্বামীর নামে তেমন কিছুর উল্লেখ নেই।
Advertisement
নির্বাচন কমিশনে যে হলফনামা জমা দিয়েছেন ভারতী, তাতে বলা হয়েছে, এই মুহূর্তে তাঁর হাতে নগদ ২০ হাজার ৮০০ টাকা রয়েছে। স্বামী রাজুর হাতে নগদ রয়েছে ১ লক্ষ ৯২ হাজার ৪৩০ টাকা। ভারতীর কাছে যত গয়না রয়েছে, তার বর্তমান বাজারমূল্য ৩৮ লক্ষ ২২ হাজার টাকা। ২৫ লক্ষ ২০ হাজার গয়না রয়েছে তাঁর স্বামীর।

আইসিআইসিআই, স্টেট ব্যাঙ্ক, অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড, ইউকো ব্যাঙ্ক এবং আমেরিকার নিউ ইয়র্কের ইউএনএফকো ব্যাঙ্কে স্থায়ী আমানত মিলিয়ে ১ কোটি ৯৯ লক্ষ ৯৪ হাজার ২১৪ কোটি টাকা জমা রয়েছে ভারতীর। বিভিন্ন ব্যাঙ্কের ২০টি অ্যাকাউন্ট মিলিয়ে রাজুর ১ কোটি ৯৭ লক্ষ ৪৩ হাজার ২৫১ টাকা রয়েছে। এর মধ্যে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাঙ্কে যৌথ ভাবে স্বামী-স্ত্রীর ৪৫ হাজার ৬৪৬ টাকা রয়েছে।

বন্ড এবং শেয়ার মিলিয়ে ভারতীর ৫৮ লক্ষ ৪৭ হাজার ৩৯৩ টাকা রয়েছে। রাজুর বন্ড ও শেয়ার রয়েছে ৮৪ লক্ষ ৬২ হাজার ৫৯১ টাকার। ইন্ডিয়ান রেলওয়েজ ফাইনান্স, এক্সপো গ্যাস কনটেইনার, গুজরাত সিদ্ধি সিমেন্ট, ভারত কমার্স, মহিন্দ্রা সিআইই অটোমোটিভ লিমিটেড, ব্যাঙ্ক অব বরোদা, রিলায়্যান্স ইন্ডাস্ট্রিজ, ক্যালকাটা স্টক এক্সচেঞ্জ, এসকর্টস লিমিটেড, ইনফোসিস, লারসেন অ্যান্ড টারবো, নিপ্পো ইন্ডিয়া ভিসন ফান্ড, টাইটান, ন্যাশনাল হাইওয়ে অথরিটি, অশোক লেল্যান্ড, এলআইসি হাউজিং ফাইনান্স-এর মতো ৮৩টি সংস্থায় বিনিয়োগ রয়েছে স্বামী-স্ত্রীর।

এ ছাড়াও জিপিএফ-এ ১১ লক্ষ ৪ হাজার ২৮৫ টাকা রয়েছে ভারতীর। জাতীয় পেনশন খাতে ৭৭ লক্ষ ২৭ হাজার ৫৭ টাকা রয়েছে রাজুর। ভারতীর নামে কোনও ব্যক্তিগত ঋণ নেই। রাজুর ব্যক্তিগত ঋণ ৪১ লক্ষ ২০ হাজার ২০ টাকার। এ ছাড়াও ১৬ লক্ষ ৪ হাজার ১৪৭ টাকার অন্য ঋণ রয়েছে রাজুর। তবে কমিশনে ছেলে এম বেঙ্কটেশের হয়ে ২০ লক্ষ টাকার ঋণ মেটানোর কথা জানিয়েছেন ভারতী।

বিজেপি নেত্রী ভারতীর নামে যে চাষযোগ্য জমি রয়েছে, তার বর্তমান বাজারমূল্য ১ কোটি ৬ লক্ষ ১৫ হাজার ৯২০ টাকা। রাজুর কাছে যে জমি রয়েছে, তার বাজারমূল্য ৮৫ লক্ষ ১ হাজার ৪৬ টাকা। চাষযোগ্য নয় এমন জমি নেই ভারতীর নামে। তবে রাজুর নামে রয়েছে, যার বর্তমান বাজারমূল্য ১ কোটি ৯১ লক্ষ ১৯ হাজার ৬৫৪ টাকা।

জমি ছাড়াও একাধিক বাড়ি রয়েছে ভারতী এবং তাঁর স্বামীর নামে। কলকাতার শরৎ চ্যাটার্জি রোডে একটি বহুতলের পুরো তিন তলাটাই তাঁর নামে। শরৎ চ্যাটার্জি রোডে আরও একটি বহুতলের গ্রাউন্ড ফ্লোরের একটি অংশও তাঁর নামে রয়েছে। এ ছাড়াও মাদুরদহে পার্কিং-সহ বহুতলের ৫টি ফ্ল্যাট রয়েছে তাঁর। নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোস রোডের একটি আবাসনের ৭ তলায় আরও একটি ফ্ল্যাট রয়েছে তাঁর। গড়িয়া নাকতলায় দুর্গা প্রসন্ন পরমহংস রোডে একটি দোতলা বাড়ি রয়েছে রাজুর। সেখানেই থাকেন তিনি।

কমিশনকে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ভারতী ঘোষের নামে কোনও গাড়ি নথিভুক্ত নেই। তবে তাঁর স্বামী রাজুর নামে চারটি গাড়ি নথিভুক্ত রয়েছে, যেগুলির মোট মূল্য ১৮ লক্ষ ৭ হাজার ৫০০ টাকা। যে চারটি গাড়ির উল্লেখ করা হয়েছে হলফনামায়, তার মধ্যে একটি টাটা ইন্ডিকা ভিস্তা, দু’টি ২০১৫ মডেলের ইনোভা এবং একটি মাহিন্দ্রা থর রয়েছে।

১৯৯৪ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত সরকারি পদে কর্মরত ছিলেন ভারতী। ২০১৫-’১৬ অর্থবর্ষে তাঁর আয় ছিল ১১ লক্ষ ৭০ হাজার ৫১৬ টাকা। ২০১৬-’১৭ অর্থবর্ষে তা বেড়ে ১৬ লক্ষ ৬৬ হাজার ৪৯২ কোটি হয়। ২০১৭-’১৮ অর্থবর্ষে তা বেড়ে দাঁড়ায় ৪৫ লক্ষ ৭২ হাজার ৮৩ টাকা। ২০১৮-’১৯ অর্থবর্ষে ৯ লক্ষ ৩৩ হাজার ১২৫ টাকা আয় করেন ভারতী। ২০১৯-’২০ অর্থবর্ষে তা আরও কমে ৭ লক্ষ ১০ হাজার ৭০ টাকা হয়।

ভারতীর স্বামী রাজু ২০১৫-’১৬ অর্থবর্ষে ৩৪ লক্ষ ৬ হাজার ৮২৯ টাকা আয় করেন। ২০১৬-’১৭ অর্থবর্ষে তা বেড়ে হয় ৩৫ লক্ষ ৬৫ হাজার ১৮৩। ২০১৭-’১৮ অর্থবর্ষে ৫৯ লক্ষ ৫৮ হাজার ৬৮৪ টাকা আয় হয় রাজুর। ২০১৮-’১৯ অর্থবর্ষে তিনি ৪ লক্ষ ১১ হাজার ৪১ টাকা আয় করেন। ২০১৯-’২০ অর্থবর্ষে ৭ লক্ষ ৮১ হাজার ৬৮২ টাকা আয় ছিল তাঁর।