×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৮ জুলাই ২০২১ ই-পেপার

Bengal Election: আশঙ্কার দোলাচলে গণনা পর্বের প্রস্তুতি নিচ্ছে সংযুক্ত মোর্চা

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০১ মে ২০২১ ১৫:০২


ফাইল চিত্র।

একের পর এক বুথ ফেরত সমীক্ষায় ধরাশায়ী হয়েছে সংযুক্ত মোর্চা। তাই আশঙ্কার দোলাচল নিয়ে গণনা কেন্দ্রে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাদের নেতাকর্মীরা। সংযুক্ত মোর্চার নেতৃত্বের আশা ছিল, বিকল্প শাসন ব্যবস্থার আশ্বাসের সঙ্গে নতুন প্রজন্মকে এ বারের ভোটে এগিয়ে দিলেই সাফল্য আসবে। কিন্তু চূড়ান্ত ফল না জানা গেলেও যাবতীয় এগজিট পোল সেই আশায় জল ঢেলে দিয়েছে। তবে হারার আগে হারতে নারাজ বামফ্রন্টের নেতারা। রবিবার গণনা শুরুর আগেই বাম কর্মীসমর্থকদের গণনা কেন্দ্রে পৌঁছে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গণনা পর্বে প্রত্যেকটি বিষয়ের ওপর নজর রাখতে বলা হয়েছে দিনভর। গতবার বিধানসভা ভোটে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট বেঁধে ৩৩টি আসন জিতেছিল বামেরা। জোটকে মজবুত করতে আব্বাস সিদ্দিকির নেতৃত্বাধীন আইএসএফ-কে সঙ্গে বেঁধেছিল তারা। আশা ছিল, রাজ্যের সংখ্যালঘু ভোটারদের একাংশ মুখ ফেরাবে সংযুক্ত মোর্চার দিকে। বুথ ফেরত সমীক্ষা সেই আশাও নস্যাৎ করে দিয়েছে।

তা সত্ত্বেও, নিজেদের রণনীতির ওপর আস্থা রেখেই গণনা কেন্দ্রে যাবেন কমরেডরা। বুথ ফেরত সমীক্ষায় হতাশ হয়ে সিপিএমের এক বর্ষীয়ান প্রার্থী বলছেন, ‘‘সংবাদমাধ্যম যে ভাবে বুথ ফেরত সমীক্ষা দেখাচ্ছে তাতে তো সংযুক্ত মোর্চার অস্তিত্ব নিয়েই প্রশ্ন উঠে যাচ্ছে। কিন্তু আমাদের মনে হয় ফল ততটা খারাপ হবে না যতটা দেখানো হচ্ছে।’’ আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের মুজফফর আহমেদ ভবন থেকে ভোট গণনা পর্বের ওপর নজর রাখবেন বিমান বসু সূর্যকান্ত মিশ্ররা। ১০ বছরে বাংলায় বামেদের শক্তি ক্রমশ ক্ষয়েছে। তাই ছাত্রযুব নেতা নেত্রীদের এ বারের ভোটে প্রার্থী করা হয়েছিল। সেই প্রয়াসে আলিমুদ্দিন স্ট্রিট কতটা সফল হয়েছে সে দিকেই নজর থাকবে সিপিএমের।

রাজ্য বিধানসভার প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের আশা, মূলত মালদহ ও মুর্শিদাবাদকে কেন্দ্র করে। এ ছাড়াও উত্তর দিনাজপুর জেলায় কংগ্রেস নেতা প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সির আবেগকে কাজে লাগিয়ে ভাল ফলের আশা করছে কংগ্রেস। কংগ্রেসের এক যুবনেতার কথায়, ‘‘গতবারের বিধানসভা ভোটের মতো এ বারও আমরা ৯২টি আসনে লড়াই করেছি। গত বার যে ভাবে আমরা রাজ্যের বিরোধী দল হয়েছিলাম, বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলে আমরা তার থেকেও ভাল কিছু আশা করছি।’’ তবে সংযুক্ত মোর্চার সম্মিলিত ফলাফল নিয়ে যুবনেতা কিছুই বলতে চাননি। এ বারই প্রথম ভোটে লড়াই করছে আব্বাসের নেতৃত্বাধীন আইএসএফ। অল্প সংখ্যক আসনে প্রার্থী দিয়েও বেশ কিছু সংখ্যালঘু-অধ্যুষিত আসনে ভাইজানের বিজয় কেতন ওড়া দেখতে চাইছেন তাঁর অনুগামীরা। আপাতত আশঙ্কা নিয়েই ভোট গণনা কেন্দ্রে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থীরা।

Advertisement
Advertisement