• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পরিচালনায় আসছেন সোহাগ সেন

Sohag Sen
সোহাগ সেন এ বার অন্য ভূমিকায়। —ছবি সংগৃহীত।
গল্পে অতিমারির আবহে ভালবাসার আবেগ। মঞ্চ ছেড়ে এ বার ক্যামেরার পেছনে সোহাগ সেন। পছন্দসই চরিত্র পেলে তবেই তাঁকে দেখা গিয়েছে মঞ্চে, ছবিতে। অভিনয়ের প্রশিক্ষক তিনি। তাঁর প্রশিক্ষণ নিয়েছেন রূপা গঙ্গোপাধ্যায়, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, দেব, কঙ্কণা সেনশর্মা-সহ আরও অনেকে। সুজয়প্রসাদ চট্টোপাধ্যায়ের ভাবনা অবলম্বনে ছোট ছবি ‘দ্য সরো অফ লাভ’-এর  পরিচালক তিনি। ছবির গল্পকারও সোহাগ।
 
করোনা বদলে দিয়েছে অর্ণব-তৃণার ভাগ্য। সংক্রমণ তাদের সম্পর্ককে ডুবিয়ে দিয়েছে হতাশা, দূরত্বের গভীর অন্ধকারে। তারপরেও তারা আলোর সন্ধান করেছে ভালবাসার পরিসরে। সোহাগের পরিচালনায় মানব মনের এই অনুভূতিই  শর্ট ফিল্মের বিষয়।
 
জাতীয়, আন্তর্জাতিক মানের পরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত, অপর্ণা সেন, ঋতুপর্ণ ঘোষের সহকারী সোহাগ নিজে যখন ক্যামেরার পিছনে তখন দর্শক যে ভিন্ন স্বাদের ছবি উপহার পেতে চলেছেন, তা বলাই যায়। ছবিতে অভিনয় করেছেন অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়, মোনালিসা চট্টোপাধ্যায় দাশগুপ্ত, রুদ্ররূপ মুখোপাধ্যায়, স্বরূপা ঘোষ, সোহাগ সেন নিজে। প্রযোজনায় ঘোষ কোম্পানি আর রোর। নিবেদনে সুজয়। 

আরও পড়ুন: কোন ‘মোটা মেয়ে’কে নিয়ে এই প্রথম বাংলা ছবি ঘোষণা করলেন শিবপ্রসাদ-নন্দিতা?

আরও পড়ুন: এ বার মঞ্চে চারু মজুমদার, নামভূমিকায় কে?

অভিনেতা, প্রশিক্ষক থেকে পরিচালক। এই উত্তরণ চ্যালেঞ্জের? সোহাগের মতে, ‘‘কিছুটা। এক ঝাঁক একুশ প্রজন্মের সঙ্গে কাজ করেছি। এটা আমার কাছে সামান্য চ্যালেঞ্জিং। অন্য দিকে সুজয়ের ভাবনা এত ভাল যে তাকে গল্পে বুনে ক্যামেরা বন্দি করে আমি তৃপ্ত। অন্ধকারের ওপারে সব সময়েই আলো থাকে, এই ছবি সবার মনে সেই আশা জাগাবে। সম্পর্কের বাঁধনের গল্প শোনাবে।’’

তৃপ্ত সুজয়ও। জানিয়েছেন, তাঁর কনসেপ্ট যখন সোহাগ সেন কলমে ধরলেন, ক্যান বন্দির কথা বললেন, তখনই তিনি জানতেন ভিন্ন ধারা আসতে চলেছে পরিচালনার দুনিয়ায়।   

ছবিকে সুরে বেঁধেছেন রাতুল শংকর। সিনেমাটোগ্রাফার ঈশান পাবলো ঘোষ।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন