Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Aishi Bhattacharya: ইন্ডাস্ট্রির একজন এসেছেন আমার জীবনে, আপাতত ‘দিঠি’ চরিত্র থেকে দূরে থাকছি: ঐশী

‘লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশন’-এর চেনা হাঁকডাক থেকে দূরে কী ভাবে সময় কাটাচ্ছেন ‘শ্রীময়ী’ ধারাবাহিকের দিঠি?

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৮ জানুয়ারি ২০২২ ১৮:৫৪
Save
Something isn't right! Please refresh.
অকপট ঐশী।

অকপট ঐশী।

Popup Close

নেটফ্লিক্স আর প্রাইম মিলিয়ে তালিকা বেশ দীর্ঘ। রবার্ট ডি নিরোর ‘ট্যাক্সি ড্রাইভার’ থেকে ‘জিন্দেগি না মিলেগি দোবারা’ —পছন্দের সব ছবি দেখে নিচ্ছেন একে একে। ‘লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশন’-এর চেনা হাঁকডাক থেকে দূরে এ ভাবেই সময় কাটাচ্ছেন ‘শ্রীময়ী’ ধারাবাহিকের দিঠি। অর্থাৎ ঐশী ভট্টাচার্য।

দু’বছর টানা জনপ্রিয় ধারাবাহিকে অভিনয়ের পর কী পরিকল্পনা ঐশীর? আনন্দবাজার অনলাইনকে তিনি বললেন, “আপাতত ভাল কাজের অপেক্ষা করছি। ‘ডানা’ বলে একটি ওয়েব সিরিজের কাজ করছি। একটা শিডিউল শেষ হল। দ্বিতীয় শিডিউল আবার শুরু হবে। এর পর মনের মতো চরিত্রের প্রস্তাব এলে কাজ শুরু করব আবার।”

আপাতত ছোট পর্দা থেকে বিরতি নিয়েছেন ঐশী। বেশ কিছু চরিত্রের প্রস্তাব এলেও তা ফিরিয়ে দিয়েছেন নিঃসঙ্কোচে। কারণ জানতে চাওয়া হলে রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটকের ছাত্রীর উত্তর, “আসলে ‘দিঠি’ চরিত্রটি করার পর ওই চরিত্রগুলি নিজের জন্য ঠিক মনে হয়নি। আগামী পাঁচ বছরে আমি যা কাজ করব বা যে সাফল্য পাব, তাতে এই চরিত্রের অবদান থাকবে। দিঠির সঙ্গে আমি একাত্মবোধ করি খুব। তাই আপাতত ওই চরিত্রের ছবি, ভিডিয়ো থেকে নিজেকে দূরে রাখি। কারণ আমার মধ্যে এখনও দিঠির ছাপ রয়ে গিয়েছে। ”

Advertisement

ধারাবাহিক শেষ হয়েছে বটে। কিন্তু সহ-অভিনেতাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব রয়েছে অমলিন। মেক আপ রুমে বসে জমিয়ে আড্ডা নেই। নেই নিজস্বী তোলার হিড়িক। কিন্তু ফোনে ফোনে দেখা করার পরিকল্পনা সারা ইতিমধ্যেই। “এত দিন একসঙ্গে কাজ করে আমরা একটা পরিবার হয়ে উঠেছিলাম। সবার কথাই খুব মনে পড়ে। রুশাদি (চট্টোপাধ্যায়), ঊষসীদি (চক্রবর্তী)-র সঙ্গে আড্ডা দেওয়ার প্ল্যান করে ফেলেছি। খুব শিগগির হয়তো ইনস্টাগ্রামে আমাদের একসঙ্গে ছবি দেখা যাবে”, হাসতে হাসতে বললেন ‘দিঠি’।

ইনস্টাগ্রামেও ঐশীর অনুরাগীর সংখ্যা নেহাত কম নয়। ৫০ হাজারের কাছাকাছি ‘ফলোয়ার’ তাঁর। রয়েছে বেশ কিছু ফ্যান পেজ। নেটমাধ্যমে এই জনপ্রিয়তা কি ইন্ডাস্ট্রির প্রতিযোগিতায় একজন অভিনেতাকে এগিয়ে রাখতে পারে? ঐশীর কথায়, “একজন অভিনেতা ফেসবুক, ইনস্টাগ্রামের সাহায্যের মানুষের কাছে পৌঁছে যেতে পারেন। আগে একটা ধারাবাহিক শেষ হওয়ার পর সেই অভিনেতাকে টেলিভিশনে না দেখতে পেলে মানুষ তাঁকে ভুলে যেতেন। এখন সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে সেই সমস্যা মিটেছে।” কাজের প্রচারের জন্য নেটমাধ্যমের ব্যবহারে বিশ্বাসী তিনি। কিন্তু ‘লাইক’-এর নিরিখে প্রতিভার বিচার করা যায় না বলেই মনে করেন ঐশী।

অভিনয় চর্চা, শ্যুট, ওয়েব সিরিজ, পড়াশোনা— এত কিছুর মাঝেও নাকি ঐশীর মনে জায়গা করে নিয়েছেন ‘বিশেষ’ একজন। তাঁর প্রেমেই নাকি হাবুডুবু অভিনেত্রী। ইন্ডাস্ট্রির গুঞ্জন অন্তত তেমনটাই বলছে। আর ঐশী? তিনি কী বলছেন? “একজন আছে আমার জীবনে। সে ইন্ডাস্ট্রিরই। এর বেশি আর কিছুই বলতে পারব না। বললেই সবাই বুঝে যাবে”, কথা শেষ হতেই মৃদু হাসলেন ঐশী।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement