• সায়নী ঘটক 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘মুখে প্রশংসা করলেও কেউ কাজ দেননি’

নতুন সিরিজ় মুক্তির আগে কথা বললেন অমিত সাধ

amit
অমিত

তিনি অভিযোগ করতে ভালবাসেন না। বিশ্বাস করেন, অভিনেতার কাজ ‘অ্যাকশন’ থেকে ‘কাট’ পর্যন্তই। সামনেই মুক্তি পেতে চলেছে ‘ব্রিদ: ইনটু দ্য শ্যাডোজ়’, যে সিরিজ়ের দ্বিতীয় সিজ়নে স্বমহিমায় ফিরতে চলেছেন অমিত সাধ। ইন্সপেক্টর কবীর সাওয়ন্তকে একেবারে অন্য রূপে দেখা গিয়েছে ট্রেলারের ঝলকে। কারাগারের ও পারে দেখা যাচ্ছে কবীরের ‘রাগেড’ লুক, শারীরচর্চা করে ভোল পাল্টে ফেলেছেন পুরোপুরি। ‘‘থ্রিলারের মুশকিল হল, খুব বেশি কিছু আগে থেকে খোলসা করে বলা যায় না। তাই কবীরের চরিত্রে এ বার যে চমক রয়েছে, সেটা এখনই ফাঁস করতে চাই না,’’ বললেন অমিত। লকডাউন-শেষে সদ্য ডাবিং করতে বেরোচ্ছেন তিনি। সিরিজ়ের কাস্টে নতুন মুখ অভিষেক বচ্চন, নিত্যা মেনন। তাঁদের সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা ভাগ করে নিতে গিয়ে অমিত বললেন, ‘‘নিত্যার সঙ্গে কাজ করে এত আনন্দ পেয়েছি যে বলার নয়। শি ইজ় মাই টপ ফেভারিট। খুব ভাল বন্ধুও হয়ে গিয়েছি। অভিষেক যেমন ট্যালেন্টেড, মানুষ হিসেবেও ভীষণ ভাল।’’

টেলিভিশন থেকে যাত্রাশুরুর পরে অমিত প্রথম বার নজর কেড়েছিলেন ‘কাই পো চে’ ছবিতে। সেখানে তাঁর সঙ্গে ছিলেন রাজকুমার রাও এবং সুশান্ত সিংহ রাজপুত। কেরিয়ারের চাকা যত এগিয়েছে, রাজকুমার আর সুশান্ত সামনের সারিতে উঠে এলেও সেই জায়গায় পৌঁছতে পারেননি অমিত। সে ব্যাপারে তাঁর উপলব্ধি, ‘‘আমি অভিযোগ করায় বিশ্বাস করি না। ‘কাই পো চে’-এর পরে বহু মানুষ আমাকে ফোন করে, সামনাসামনি, পার্টিতে বলেছেন তাঁদের ভাল লাগার কথা। অথচ কাজ দেননি। ব্যক্তিগত ভাবে প্রশংসা করলেও প্রকাশ্যে পিঠ চাপড়ানি পাইনি। তবে ফাইট-ব্যাক করেছি নিজের মতো করে। ‘কাই পো চে’-এর পরে নতুন করে শুরু করেছিলাম। আশা করছি, ‘ব্রিদ’-এর পরে আরও বহু মানুষের ফোন পাব।’’ 

এর পরে ওয়েবে আরও কাজ করার ইচ্ছে রয়েছে কি না জানতে চাওয়ায় তাঁর জবাব, ‘‘কোনও অফার নেই আমার কাছে। কেন, তা আমার নিজেরও জানা নেই। হাতে কাজ নেই, তা কোনও অভিনেতার কাছেই আনন্দের নয়। কিন্তু কারও কাছে গিয়ে কাজ চাওয়ার দিন আমি পেরিয়ে এসেছি।’’ অভিনেতা হিসেবে ওটিটি, টেলিভিশন কিংবা বড় স্ক্রিনকেও আলাদা করে দেখেন না অমিত। বিশ্বাস করেন, ভাল কাজ  দর্শক যে কোনও মাধ্যমে দেখবেন।

‘ব্রিদ’-এর পরেই একই ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পেতে চলেছে ‘শকুন্তলা দেবী’। সে ছবিতেও রয়েছেন অমিত। ‘‘লিড রোলের পরিবর্তে দু’-দশ মিনিটের চরিত্র পাওয়াটা এখন আমার কাছে চেনা। তবে আমার কাজ অভিনয় করা। তাই আসব, অভিনয় করব আর চলে যাব। বাকি ফ্যাক্টরগুলো নিয়ে ভাবা এখন বন্ধ করে দিয়েছি। এই বিষয়টা বহু দিন আগে আরশাদ ভাই (ওয়ারসি) বুঝিয়েছিল আমাকে।’’

সাম্প্রতিক নেপোটিজ়ম প্রসঙ্গও উড়িয়ে দিলেন অভিনেতা, ‘‘আমি মনে করি না, শুধু খারাপ লোকেরাই রয়েছে আশপাশে। তা হলে পৃথিবী এত দূর এগোত না। কে কবে কী খারাপ করেছে আমার সঙ্গে, তা নিয়ে অভিযোগ জানানোর মানুষ  নই।’’ সুশান্ত সিংহ রাজপুতের প্রসঙ্গ এলে এড়িয়ে যেতে চাইলেন অমিত। সুশান্তের সঙ্গে শেষের দিকে যোগাযোগ ছিল না তাঁর। সুশান্তের মৃত্যু নিয়ে অযথা জলঘোলা করার বিপক্ষে তিনি। ‘‘এ সব নিয়ে প্রশ্ন করে আমার মনমেজাজ খারাপ করে দেবেন না প্লিজ়,’’ তাঁর অনুরোধ।  তাঁর আর একটি প্যাশন হল বাইক। রাইডিং নিয়ে প্রশ্ন করতেও মন খারাপ হল তাঁর। লকডাউনে বাইকেও স্টার্ট দেওয়া হয়নি অনেক দিন। আপাতত অমিত বেরিয়ে পড়ার দিন গুনছেন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন