সিনে পর্দার অপু শুনলেই হয়তো বাঙালির মনে পড়ে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের মুখ। কারণ বড়পর্দায় সৌমিত্রকে ‘অপু’ হিসেবে চিনিয়েছিলেন স্বয়ং সত্যজিত্ রায়। সেই অপুই ফিরছে। ফিরছে ছেলের হাত ধরে। সৌজন্যে পরিচালক শুভ্রজিত্ মিত্রের আগামী ছবি ‘অভিযাত্রিক’। সে ছবিতে আরিফিন শুভকে ‘অপু’ হিসেবে দেখবেন দর্শক। ইতিমধ্যেই সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ‘আহা রে’র মাধ্যমে পশ্চিমবঙ্গের দর্শকের কাছে নিজের গ্রহণযোগ্যতা তৈরি করেছেন বাংলাদেশের নায়ক শুভ।

এ ছবিতে অপর্ণার ভূমিকায় দেখা যাবে দিতিপ্রিয়া রায়কে। ‘রানি রাসমণি’র সৌজন্যে টেলিভিশনে তুমুল জনপ্রিয় দিতিপ্রিয়া। এ বার ছবিতেও তাঁকে দেখবেন দর্শক।

৬০ বছর পর ফিরছে অপু। ছবির ভাবনা কী ভাবে এল? শুভ্রজিত্ আগেই বলেছিলেন, ‘‘সিনেমার ছাত্র বা দর্শক হিসেবে অপুর জার্নি সব সময় ফ্যাসিনেট করেছে। বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘অপরাজিত’ উপন্যাসের ৬০ শতাংশ নিয়ে দু’টো ছবি হয়েছে। কিন্তু অপুর ছেলে অর্থাত্ কাজলের সঙ্গে জার্নিটা বাকি। এটা আমাকে ভাবাত। ‘অপরাজিত’ উপন্যাসের শেষ ৪০ শতাংশ নিয়ে আমার ছবি।’’

দেখুন, বিনোদনের নানা কুইজ

এ ছবিতে ‘লীলা’র চরিত্রে অর্পিতা চট্টোপাধ্যায়, ‘রানুদি’র চরিত্রে শ্রীলেখা মিত্র এবং ‘রানু’র দিদির চরিত্রে অভিনয় করছেন সোহাগ সেন। অপুর বন্ধুর ভূমিকায় দেখা যাবে সব্যসাচী চক্রবর্তীকে।


শ্রীলেখা, বিক্রম এবং অর্পিতা।

১৯৫৯-এ অপুর শেষ ছবি মুক্তি পেয়েছিল। ছেলেকে কাঁধে তুলে বেরিয়ে গিয়েছিল সে। ফিরছে সেই অপু। ছেলের হাত ধরে। ঠিক ৬০ বছর পর, এই ২০১৯-এ। গরম, বর্ষা এবং শরত্— এই তিন ঋতুকে ছবিতে রাখতে চান শুভ্রজিত্। সেই মতোই হবে শুটিং।

আরও পড়ুন, শরীর নিয়ে প্রশ্ন, সোশ্যাল মিডিয়ায় সপাট জবাব স্বস্তিকার

বাংলায় তৈরি হওয়া আন্তর্জাতিক এই ছবির পরিবেশনার দায়িত্বে রয়েছেন মধুর ভান্ডারকর। প্রযোজনার দায়িত্বে গৌরাঙ্গ ফিল্মস। অগ্নিমিত্রা পালের কস্টিউমে সেজে উঠবেন শিল্পীরা। মিউজিকের দায়িত্ব সামলাবেন বিক্রম ঘোষ। সব কিছু ঠিক থাকলে ২০১৯-এর শেষেই মুক্তি পাবে এই ছবি।

(সিনেমার প্রথম ঝলক থেকে টাটকা ফিল্ম সমালোচনা - রুপোলি পর্দার বাছাই করা বাংলা খবর জানতে পড়ুন আমাদের বিনোদনের সব খবর বিভাগ।)