• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কোভিড মুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরলেন অমিতাভ, কোমর্বিডিটির কারণে অভিষেক হাসপাতালেই

main
বাবা-ছেলে: অভিষেক এবং অমিতাভ।

তেইশ দিনের যুদ্ধে অবশেষে জয়ী হলেন অমিতাভ বচ্চন। করোনা মুক্ত হয়ে রবিবার বিকেলে বাড়ি ফিরে এলেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই কথা শেয়ার করে অমিতাভ লেখেন, “আমার করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। বাড়ি ফিরলাম অবশেষে।”

মুম্বইয়ের নানাবতী হাসপাতালের নিভৃতবাস যে তাঁর একেবারেই পছন্দ হচ্ছিল না, তা গত কয়েক দিন ধরেই বারে বারেই নিজের ব্লগে লিখছিলেন বিগ-বি। নাতনি আরাধ্যাও কোভিড আক্রান্ত হয়েছিল। দিন কয়েক আগে সে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে যাওয়ায় আনন্দে এবং একই সঙ্গে একাকীত্বের অবসাদে চোখের জল ধরে রাখতে পারেননি শাহেনশাহ।

অমিতাভের টুইট 

 

অবশেষে আজ বাড়ি ফিরে বেজায় খুশি তিনি। বর্ষীয়ান এই অভিনেতা টুইটারে লেখেন, “ভগবান, মা-বাবুজির আশীর্বাদ, ভক্তদের ভালবাসা এবং নানাবতীর প্রত্যেক সদস্যের নিরন্তর চেষ্টার জন্য অবশেষে এই দিন দেখার সৌভাগ্য হল আমার। আমি বাড়ি ফিরে এসেছি।” যদিও আপাতত যে তিনি বাড়িতেই কোয়রান্টিনে থাকবেন সে কথাও জানিয়েছেন বিগ বি।  

অমিতাভ বাড়ি ফিরলেও ছেলে অভিষেক বচ্চনের রিপোর্ট আজও পজিটিভ এসেছে। টুইটে সে কথা জানিয়ে অভিষেক লেখেন, “বাবা বাড়ি ফিরে গিয়েছেন। আপাতত বিশ্রামে থাকবেন তিনি। কিন্তু কোমর্বিডিটির কারণে আমি এখনও পজিটিভ। আমার পরিবারের প্রতি এত ভালবাসা-প্রার্থনার জন্য আপনাদের প্রত্যেককে ধন্যবাদ। আমি খুব শীঘ্রই করোনাকে হারিয়ে ফিরে আসব। প্রমিস।”

অভিষেকের টুইট 

গত ১২ জুলাই করোনায় আক্রান্ত হন অমিতাভ বচ্চন। ওই একই দিনে নিজের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেন অভিষেক। পরের দিন জানা যায়, একমাত্র জয়া বচ্চন বাদে বচ্চন পরিবারের বাকি সদস্য অর্থাৎ ঐশ্বর্যা এবং আরাধ্যাও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ১২ তারিখই অমিতাভ এবং অভিষেককে হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও বাড়িতেই চিকিৎসা চলছিল আরাধ্যা-ঐশ্বর্যার। যদিও দিন কয়েক পরে শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি হন আরাধ্যা-ঐশ্বর্যাও। বেশ কিছু দিন হাসপাতালে থেকে সুস্থ হয়ে ২৭ জুলাই বাড়ি ফিরে যান তাঁরা। আজ ফিরলেন অমিতাভ। এখন শুধু অভিষেকের প্রতীক্ষায় ‘জলসা’... 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন