Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৯ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

সাংসদ অর্পিতার ডাকে নাটকের শহরে মঞ্চে পুলিশ সুপার

চোপ আদালত চলছে, বলছেন এসপি

অনুপরতন মোহান্ত
বালুরঘাট ১০ মে ২০১৭ ০২:৫২
অভিনয়: সহ অভিনেতাদের সঙ্গে মহলায় এসপি প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি: অমিত মোহান্ত

অভিনয়: সহ অভিনেতাদের সঙ্গে মহলায় এসপি প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি: অমিত মোহান্ত

“চোপ আদালত দাঁড়িয়ে আছে এখনও...।’’

কালো গাউন পড়া ৬ ফিটের উপর উচ্চতার ব্যবহারজীবীর মুখ থেকে ওই ধমক শুনে দর্শকদের হাততালিতে ভরে যায় প্রেক্ষাগৃহ। ক্রমশ জমে উঠতে থাকে প্রখ্যাত নাট্যকার বিজয় তেণ্ডুলকরের কালজয়ী নাটক ‘চোপ আদালত চলছে’র মঞ্চায়ন।

আইনজীবীর ভুমিকায় অভিনয় করে ইতিমধ্যে সাড়া ফেলে দেওয়া ওই ৬ ফিটের উপর লম্বা মানুষটি আর কেউ নন—দক্ষিণ দিনাজপুরের জেলা পুলিশ সুপার প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। নাটকটি গত ৫ মে কুশমণ্ডিতে মঞ্চায়ন হয়েছে। ২০ মে হবে বালুরঘাটের নাট্যতীর্থ মন্মথ মঞ্চে। পূর্ণাঙ্গ ওই নাটকে চারটি মূল চরিত্রের মধ্যে অন্যতম প্রধান চরিত্রটি জেলা পুলিশ সুপারেরই।

Advertisement

এই প্রথম নাট্যমঞ্চে প্রসূনবাবু। তা-ও নাটকের শহরে।

কিন্তু, দেখে বোঝার উপায় নেই প্রসূনবাবু এই প্রথম নাটকের মঞ্চে নেমেছেন। জেলা পুলিশের দায়িত্ব সামলে, সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ কর্মসূচিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি এর আগে অবশ্য তাঁকে ব্যাট হাতে ক্রিকেট মাঠে বহুবার দেখা গিয়েছে। বিভিন্ন সভা আলোচনায় নানা বিষয়ে ওঁর বাগ্মিতা ও চলতি বিষয়ের উপর সাবলীল দখল, বক্তৃতাতেও প্রমাণ মিলেছে।

নতুন করে অভিনয়ে ঢুকে পড়ার পিছনে অবশ্য এ জেলার সাংসদ তথা নাট্যকর্মী অর্পিতা ঘোষের উদ্যোগই তাঁকে উৎসাহিত করেছে। প্রসূনবাবুর কথায়, ‘‘থিয়েটার বিনোদনের একটি উচ্চ ও সূক্ষ্ম জায়গা। এখানে মননশীলতার সর্বোচ্চ প্রতিফলন হয়। স্কুল কলেজের দিনে থিয়েটারের সঙ্গে যোগ ছিল। তবে সাংসদের সঙ্গে দেখা হলে তিনি উৎসাহ দিয়ে বলতেন, নাটকও চেষ্টা করে দেখুন। আর বালুরঘাটের সংস্কৃতির শহরে এত নাটক দেখেছি।’’ কিছুটা সময়ও পেয়েছেন। তাই নেমে পড়েছেন রঙ্গমঞ্চে।

কুশমণ্ডির দিনাজপুর থিয়েটারের প্রযোজনায় এই প্রথম কোর্টরুম নাটকের অনবদ্য পরিচালনা করছেন ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামার রিসার্চ ফেলো অবন্তী চক্রবর্তী। হিন্দি সিনেমা কহানীর কস্টিউম ডিজাইনার শুচিস্মিতা দাশগুপ্ত যুক্ত হয়েছেন। কলকাতার শিল্পী সুমিত চক্রবর্তীর মঞ্চের আলোকসজ্জায় নাটকটিকে প্রাণবন্ত করে তুলেছে।

‘নাটকের মধ্যে নাটক’ হয়ে মিথ্যে অভিনয়টা দর্শকের কাছে সত্যি বলে উঠে আসছে। তিন অঙ্কের ওই নাটকের প্রায় শেষ দৃশ্যে দর্শকদেরও ভাবনার দোলাচলে ঠেলে দিয়ে আইনজীবী বলছেন, ‘‘আই উইশ, ইট ইজ জাস্ট এগেন।’’ তখন তিনি পুরো অভিনেতার চেহারায়। তাঁকে এই ভূমিকায় দেখে খুশি সকলেই।

নাট্য সংস্থা সূত্রের খবর, দিনভর পুলিশের দায়িত্ব সামলে গভীর রাত অবধি মহলা দিয়েছেন পুলিশ সুপার প্রসূনবাবু।

আরও পড়ুন

Advertisement