Advertisement
১৭ জুন ২০২৪
আইকনিক চরিত্রে এ বার অভিষেক বচ্চন
Abhishek Bachchan

Abhishek Bachchan: ‘সুজয় আর দিয়া আমাকে এ বার অন্য কলকাতা দেখিয়েছে’

বব বিশ্বাসের মতো একটা চরিত্রের জন্য পরিচালক যে আমার উপরে ভরসা করেছে, সেটাই বড় বিষয়। দিয়া প্রতিভাময়ী পরিচালক।

অভিষেক

অভিষেক

শ্রাবন্তী চক্রবর্তী
মুম্বই শেষ আপডেট: ০১ ডিসেম্বর ২০২১ ০৬:৪২
Share: Save:

প্র: ‘বব বিশ্বাস’-এর ট্রেলারে আপনাকে বেশ অন্য রকম দেখতে লাগছে। কেমন প্রতিক্রিয়া পাচ্ছেন?

উ: ট্রেলার রিলিজ়ের পরে অনুরাগীরা খুব খুশি হয়েছেন। বিশেষ করে, বব বিশ্বাসের লুক সকলের খুব পছন্দ হয়েছে। শুটিং শুরু হওয়ার আগে দিয়া (অন্নপূর্ণা ঘোষ, পরিচালক) যে ব্রিফ দিয়েছিল, সেটা পোশাক-ব্যক্তিত্বেও তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে। বব একজন পেশাদার খুনি কিন্তু তার মন মোমের মতো নরম!

প্র: এই লুক তৈরি করার জন্য কোনও বিশেষ ধরনের প্রস্তুতি ছিল?

উ: প্রথমে অনেকটা ওজন বাড়াতে হয়েছিল। প্রস্থেটিক মেকআপ ব্যবহারে রাজি ছিলাম না। কারণ ক্যামেরার সামনে তা কৃত্রিম দেখতে লাগত। ওজন বাড়ানোর পরে বডি ল্যাঙ্গোয়েজও খানিক বদলে যায়। ১০৫ কেজি অবধি বাড়িয়েছিলাম। এখন আবার ৮৫ কেজি করে ফেলেছি (হাসি)। এ ছাড়া ক্রিয়েটিভ টিমের সঙ্গে সব রকম আলোচনার পরেই এই লুক চূড়ান্ত করা হয়েছে।

প্র: অনেক বছর পরে ফের কলকাতায় শুট করলেন। কেমন ছিল সে অভিজ্ঞতা?

উ: সুজয় (ঘোষ) এবং দিয়া এ বার আমাকে এক অন্য কলকাতা দেখিয়েছে। ফুলের মার্কেট, ট্যাংরা—এই জায়গাগুলোয় আমি আগে যাইনি। বাংলার কলাকুশলীদের সঙ্গে কাজ করে ভীষণ ভাল লেগেছে। পরানদার (পরান বন্দ্যোপাধ্যায়) মতো প্রবীণ অভিনেতার সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করা ভাগ্যের ব্যাপার। ওঁকে দেখেই অনেক কিছু শেখা যায়।

প্র: বব বিশ্বাসের মতো ডার্ক চরিত্রের রেশ কি শুটিং শেষের পরেও অভিনেতার সঙ্গে থেকে যায়?

উ: কিছুটা তো থাকে। তবে সময়ের সঙ্গে শিখেছি, কী ভাবে অভিনীত চরিত্রের খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসতে হয়, নিজেকে ‘সুইচ অফ’ করে নিতে হয়।

প্র: সুজয় ঘোষের মেয়ে দিয়ার এটি প্রথম ছবি। পরিচালক হিসেবে ওঁকে কেমন লাগল?

উ: বব বিশ্বাসের মতো একটা চরিত্রের জন্য পরিচালক যে আমার উপরে ভরসা করেছে, সেটাই বড় বিষয়। দিয়া প্রতিভাময়ী পরিচালক। এই ছবিটা যখন ও তৈরি করল, তখন ওর বয়স ছিল মাত্র ২৬ বছর। আমি ওই বয়সে কিছুই ছিলাম না। অনেক দূর যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে ওর মধ্যে।

প্র: অমিতাভ বচ্চন ‘বব বিশ্বাস’-এর ট্রেলারে আপনার প্রশংসা করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট দিয়েছিলেন...

উ: পা এর মতো একজন অভিনেতা যখন এই ভাবে প্রশংসা করেন, সেটা এক বিশেষ অনুভূতি। তবে এর পাশাপাশি বাড়তি চাপও চলে আসে (হাসি)। যে কোনও ছবির কাছ থেকে‌ প্রত্যেক অভিনেতার একটাই চাওয়া, দর্শকের যেন তা ভাল লাগে।

প্র: জয়া বচ্চন ইন্ডাস্ট্রিতে ৫০ বছর পূর্ণ করলেন। সেই আনন্দ কী ভাবে উদ‌্‌যাপন করলেন?

উ: উনি উঁচু দরের এক অভিনেত্রী। ছেলে হিসেবে খুব কাছ থেকে এই প্রতিভা দেখার সৌভাগ্য হয়েছে আমার। আমি খুশি যে, উনি এখনও কাজ করছেন। মায়ের সঙ্গে আরও ছবি করতে চাই।

প্র: সিনেমা হলের বদলে জ়ি ফাইভের মতো ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পাবে ছবিটি। আক্ষেপ রয়েছে?

উ: ‘বব বিশ্বাস’-এর মতো ছবি যে মাধ্যমেই মুক্তি পাক, দর্শকের ভাল লাগবে বলে আশা রাখি।

প্র: ইন্ডাস্ট্রিতে দু’দশক কাটানোর পরে কেরিয়ার নিয়ে আপনার কী পর্যবেক্ষণ?

উ: আমি পিছন ফিরে দেখি না। আমার জার্নি নিয়ে কোনও আক্ষেপ নেই। অনেক কিছু শেখা বাকি, করাও বাকি আছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE