কাঁটাতারের ব্যবধান কমিয়ে আনার অভিনব প্রয়াস। সোমবার, ২১ অক্টোবর ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে ভারত-বাংলাদেশ ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডস।
বাংলা ছবির আন্তর্জাতিক বাজার গড়ে তোলার তাগিদে ফিল্ম ফেডারেশন অব ইন্ডিয়া, বসুন্ধরা গ্রুপ এবং টি এম ফিল্মস্ এ ব্যাপারে উদ্যোগী হয়েছে।
দুই দেশের বাংলা ছবির মঞ্চে উদযাপনের জন্যই এই ভিন্ন উদ্যোগ। লাইফটাইম অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন এ দেশের রঞ্জিত মল্লিক আর ও দেশের আনোয়ারা বেগম। এ ছাড়াও দুই দেশের সেরা পরিচালক থেকে অভিনেতা, চিত্রনাট্যকার, গায়ক আর সঙ্গীত পরিচালকদের মনোনয়নের লম্বা তালিকা প্রস্তুত। প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, জিৎ থেকে আছেন আবীর মুখোপাধ্যায়, রুদ্রনীল ঘোষ। অন্য দিকে কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়, শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়-নন্দিতা রায় থেকে সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ছবি থাকছে। তারকাখচিত এই যজ্ঞের সঞ্চালনায় থাকছেন গার্গী রায়চৌধুরী ও মীর। অন্য দিকে, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত থেকে জয়া আহসান মঞ্চে আলো হয়ে উপস্থিত থাকছেন। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে দেখা যাবে ব্রাত্য বসু থেকে অরিন্দম শীল, করবী সারওয়ার, আলমগির হোসেন, শাকিব খান, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, তনুশ্রী চক্রবর্তী প্রমুখকে।
সঙ্গীতের জায়গায় পাওয়া যাবে দেবজ্যোতি মিশ্রকে। আর চিত্রনাট্যের জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে ‘সোনার পাহাড়’-এর পাভেল, ‘মহালয়া’-র সৌমিক সেন এবং ‘মাটি’-র লীনা গঙ্গোপাধ্যায়কে।
পশ্চিমবঙ্গ তথা বাংলাদেশে সিঙ্গলস্ক্রিনের দরজা ক্রমশ বন্ধ হচ্ছে। তার পাশাপাশি বাড়ছে হিন্দি ছবির জনপ্রিয়তা।  জনপ্রিয় হচ্ছে ঘরে বসে ওয়েব প্ল্যাটফর্মে ওয়েব সিরিজ বা ছবি দেখার প্রবণতাও।

আরও পড়ুন: ‘বালিকা বধূ’-র ছোট্ট ‘আনন্দী’-কে মনে আছে? এখন সে কী করছে জানেন?​

আরও পড়ুন: উপোস করলেন নিখিলের জন্য, করে নিলেন বরণও, কেমন কাটল নুসরতের প্রথম ‘করবা চৌথ’​

এই প্রেক্ষিতে দেশ আলাদা হলেও ভারত-বাংলাদেশ ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডস ভৌগোলিক সীমানার বাইরে গিয়ে বাংলা ছবির একক ভাষা, শব্দ, দৃশ্য, সুর আর ছন্দকে আন্তর্জাতিক সিনেমার বাজারে নিজস্ব জায়গা তৈরি করে দিতে উদ্যোগী হচ্ছে। ফিল্ম ফেডারেশন অব ইন্ডিয়ার সভাপতি ফিরদৌসল হাসান বললেন, ‘‘এক ভাষা এক প্রাণ। তা হলে ছবির ক্ষেত্রে এত দূরত্ব কেন? বাংলা ছবির ঐতিহ্য আর ভবিষ্যৎকে সুনিশ্চিত করার উদ্যোগেই আমাদের এই প্রয়াস। বাংলাদেশে বাংলা ভাষার ভারতীয় ছবি বেশ জনপ্রিয়। বাংলাদেশে এই ছবি মুক্তির পরিকাঠামো ঠিক করতেই এই চেষ্টা।’’