Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

সামান্য টাকার বিনিময়ে নোংরা ট্রোলকে পাত্তা দিই না: রিচা চাড্ডা

স্রবন্তী বন্দ্যোপাধ্যায়
কলকাতা ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৩:১৮
রিচা চাড্ডা।

রিচা চাড্ডা।

রিচা চাড্ডা। নাম বললেই ইনস্টাগ্রামের হ্যাশট্যাগের মতো কতগুলো শব্দ চলে আসে।

সাহসী... খোলামেলা... নিরপেক্ষ মতামত... ইমেজের তোয়াক্কা না করে সোজা মনের কথা বলা।

মুম্বই থেকে ফোনে কথা বলতে গিয়েও যেমন বললেন, ‘‘সমাজ বলছে বলেই কোনও মানুষকে দোষী ভাবতে পারি না আমি। ‘সেকশন ৩৭৫’ ছবিটা করতে গিয়ে আইন নিয়েপ্রচুরপড়াশোনা করতে হয়েছে আমায়। আইনজীবীদের সঙ্গে সময় কাটিয়েছি। মানুষ কেবল পরিস্থিতির জন্যভুল করে।তার মানেই তার সব খারাপ নয়!’’

Advertisement

প্রথমেই বুঝিয়ে দিলেন তিনি অন্যরকম করে জীবন দেখেন।

রিচা চাড্ডা আর অক্ষয় খন্না অভিনীত ‘সেকশন ৩৭৫’মুক্তির পর থেকেই বলি পাড়ায় এই ছবি নিয়ে শোরগোল।

আরও পড়ুন- ‘এক পরিচালক আমার শরীরের প্রতি ইঞ্চি দেখতে চেয়েছিলেন’, বিস্ফোরক মন্তব্য বলি অভিনেত্রীর

কী বলছেন অভিনেত্রী রিচা?

‘‘এই ছবি মানুষের খুব ভাল লেগেছে। আসলে গল্পটা এতটাই প্রাসঙ্গিক। বাস্তব। এখন মানুষ হিট ফিল্ম খোঁজে না। খোঁজে গুড ফিল্ম। যেখানে অভিনয় আর গল্প পাশাপাশি চলে’’, বললেন রিচা। ‘মাসান’, ‘গ্যাংস অব ওয়াসেপুর’, ‘ফাকরে রিটার্নস’, ‘রামলীলা’, ‘সরবজিত’-এর মতো একাধিক সফল ছবির সহযোদ্ধা তিনি।



বলিউডে ‘#metoo’আন্দোলনে তাঁর তৎপরতা সকলের নজর কেড়েছে।

অক্ষয় খন্নার সঙ্গে কাজের প্রসঙ্গ উঠতেই উচ্ছ্বসিত রিচা বললেন, ‘‘ওর মতো অভিনেতা বড্ড আন্ডাররেটেড। ও ওর প্রাপ্য জায়গা পায়নি।এই ছবিতে একটা লম্বা মনোলগ ছিল আমার। মনে আছে, আমি আটকাচ্ছিলাম। অক্ষয় এসে বলল, তুমি ঠিক করছনা। ভাব, তুমি রিচা চাড্ডা। সেই রিচা যদি এই সংলাপ বলত!কেমন বলত?আমি এত মানুষের সঙ্গে অভিনয় করেছি। কই, এ ভাবে তো সরাসরি কেউ আমায় বলেনি! আমি খুব খুশি অক্ষয়ের সঙ্গে কাজ করে।’’

বলিউড তাঁকে খোলামেলা সাহসী হিসেবে বরাবর চিহ্নিত করেছে।‘‘দেখুন, যে যা-ই বলুক আমি মাটিতে পা দিয়ে চলা সাধারণ মানুষ। তবে ভেতর থেকে যা বিশ্বাস করি তাই বাইরে বলি।’’সাফ জবাব রিচার। বলিউডে ‘#metoo’আন্দোলনে তাঁর তৎপরতা সকলের নজর কেড়েছে।

‘ক্যাবারে’-তে অভিনয় করার পর অনেকেই বলতে শুরু করেন, রিচা চাড্ডা মানে প্লেজার আর থ্রিল! ‘‘কে কী মনে করবে তা নিয়ে তো কোনও দিন মাথা ঘামাইনি। আমি অভিনেতা, নিজের কাজ করি। আর ক্যাবারে গার্ল সাজলে দোষটা কোথায়? এটা তো অবাস্তব, আরোপিত চরিত্র নয়! সমাজের অংশ। যাই করা হোক,কোনওমহিলা অন্য ধারার কাজ করলেই লোকে সন্দেহের চোখে দেখে’’, কড়া গলায় উত্তর দিলেন রিচা। অভিনেত্রী নয়, নিজেকে অভিনেতা বলতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন তিনি।

তবে বলিউড আজও তাঁকে ‘গ্যাংস অব ওয়াশেপুর’-এর নাগমা খাতুন নামে চেনে। ‘‘চিনলে কী হবে, সেদিন থেকে আজ, রোজই স্ট্রাগল করতে হয় আমায়।প্রথমে ভাল গল্প পেতে হবে। তারপর ভাল পরিচালক। তারপর ছবিতে ভাল অভিনয় করতে হবে। শেষে দর্শকের ভাল লাগতে হবে। রোজ লড়াই।’’যোগ করলেন রিচা। তিনি বিশ্বাস করেন, মুশকিলে ভরা তাঁদের মতো অভিনেতাদের জীবন। কারণ, ‘‘আমরা তারকার সন্তান নই। তাই আমাদের প্রতিটা মুহূর্তে সংঘর্ষ করতে হচ্ছে,’’উত্তেজিত রিচা।



সাহসী রিচা

এক সময় প্রত্যেক পরিচালককে গিয়ে নিজের অভিনয়ের ইচ্ছা আর ক্ষমতা সম্পর্কে বোঝাতে হয়েছে তাঁকে। সত্যিটা জানালেন রিচা।

মিডিয়ার সামনেও নিজের মতামত জানাতে তিনি কুণ্ঠা বোধ করেন না। বললেন, ‘সেকশন ৩৭৫’-এর ট্রেলার লঞ্চে আমায় প্রশ্ন করা হয়, যৌন নির্যাতনে অভিযুক্ত ব্যক্তির সঙ্গে আমি কাজ করব কি না? আমি বলি, মিডিয়াও যৌন নির্যাতনে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের প্রেস কনফারেন্সে উপস্থিত হয়। তাঁদেরও কথা শোনা হয়। তাহলে এক্ষেত্রে নয় কেন?’’এই উত্তর অনেককেই চমকে দিয়েছিল।

সোশ্যাল মিডিয়া পছন্দ করলেও কথায় কথায় মানুষকে না জেনে ট্রোল করার ঘোরতর বিরোধী তিনি। ‘‘আমিও ট্রোলড হয়েছি। তবে কয়েকটা টাকার জন্য যারা নোংরা শব্দ লেখে তাদের পাত্তা দিই না’’,অকপট রিচা।

আরও পড়ুন- ‘কার্ব দিবস’-এ হট বেলি ডান্সে সোশ্যাল মিডিয়া কাঁপালেন ইলিয়ানা

তথাকথিত কমার্শিয়াল ছবিতে অপেক্ষাকৃত কম দেখা যায় তাঁকে।এর কারণ কী? প্রশ্নটা করতেই বললেন, ‘রামলীলা’, ‘ফাকরে রিটার্নস’-এর মতো কমার্শিয়াল ছবিতে কাজ করেছি। তবে আমি বোকা বোকা কমার্শিয়াল ছবিতে একদমই কাজ করি না। একটা দৃশ্যের সঙ্গে তার পরবর্তী দৃশ্যের কোনও মিল নেই। আমার অদ্ভুত লাগে এই ধরনের ছবি।’’সাফ কথা বললেন রিচা।

যত কাজই করুন না কেন, স্বপ্নের কাজ বাকি! তার জন্য অপেক্ষা। আর সেই অপেক্ষার নাম জয়া আখতার আর বিশাল ভরদ্বাজ। এঁদের সঙ্গে কাজ করলে তবেই স্বপ্নকে ছুঁয়ে দেখতে পারবেন বলে বিশ্বাস করেন রিচা।

আরও পড়ুন

More from My Kolkata
Advertisement