×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২১ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

আইনভঙ্গের মামলায় আদালতে গরহাজির, গ্রেফতার নাট্যকর্মী জয়রাজ ভট্টাচার্য

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৭ মার্চ ২০২০ ০২:২৪
ছবি: জয়রাজ ভট্টাচার্যের ফেসুবক অ্যাকাউন্ট থেকে সংগৃহীত।

ছবি: জয়রাজ ভট্টাচার্যের ফেসুবক অ্যাকাউন্ট থেকে সংগৃহীত।

কামদুনি ধর্ষণকাণ্ডের প্রতিবাদে করা মিছিলে আইনভঙ্গের অভিযোগ উঠেছিল সাত বছর আগে। সেই মামলার শুনানিতে আদালতে গরহাজির থাকার অভিযোগে নাট্যকর্মী জয়রাজ ভট্টাচার্যকে শুক্রবার শিবপুরের বাড়ি থেকে গ্রেফতার করল পুলিশ।

এ দিন সন্ধ্যাবেলা জয়রাজের বাড়িতে হানা দেয় শিবপুর থানার পুলিশ। সেখান থেকে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আজ, শনিবার তাঁকে ব্যাঙ্কশাল আদালতে তোলা হবে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।

জয়রাজ ভট্টাচার্য নাট্য জগতের অতি পরিচিত মুখ। পাশাপাশি, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) এবং জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি)-এর বিরুদ্ধে লাগাতার কর্মসূচিও চালিয়ে যাচ্ছিলেন তিনি। তাঁকে গ্রেফতারের কারণ কী? জয়রাজের গ্রেফতারের খবর পেয়েই শিবপুর থানায় যান মানবাধিকার সংগঠন এপিডিআর-এর কর্মীরা। তাঁদের দাবি, কামদুনি ধর্ষণ-কাণ্ডের বিরুদ্ধে এক প্রতিবাদ-মিছিলে আইনভঙ্গের অভিযোগ উঠেছিল তাঁর বিরুদ্ধে। সেই মামলার কয়েকটি শুনানির সময় তিনি আদালতে হাজিরা দেননি। এর পরই জয়রাজের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে আদালত। তার পর তাঁকে গ্রেফতার করে পুলিশ। আইনি প্রক্রিয়ার কথা মেনে নিয়েও এপিডিআর কর্মীদের অভিযোগ, জয়রাজের বিরুদ্ধে করা মামলাগুলি জামিনযোগ্য ধারায় করা হলেও, পুলিশ থানা থেকে জামিন দিতে অস্বীকার করে। এ দিন থানায় জয়রাজের সহকর্মীদের পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন কয়েক জন আইনজীবীও।

Advertisement

আরও পড়ুন: তাপস পালের মৃত্যুর আসল কারণ কী? জবাব চাইছে টলিউড

জয়রাজের গ্রেফতারি প্রশ্ন তুলেছেন এপিডিআর-এর সহ-সম্পাদক আলতাফ আহমেদ। তাঁর কথায়,‘‘আদালতের প্রক্রিয়ায় এটা হতে পারে। তবে সে ক্ষেত্রে পুলিশ উদ্যোগ নিয়েই সমন পাঠায়। সাধারণত পুলিশ এ ভাবে গ্রেফতার করে না। কিন্তু এ ক্ষেত্রে বিষয়টা মনে হচ্ছে আলাদা। কারণ সাম্প্রতিক কালে সিএএ, এনআরসি সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রতিবাদ কর্মসূচি এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নিয়মিত ভাবে অংশগ্রহণ করছিলেন জয়রাজ ভট্টাচার্য। এ ছাড়া কামদুনি-সহ নানা ইস্যুতেও রাজ্যের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলেন তিনি। আমাদের মনে হচ্ছে, তার প্রতিশোধ নিতেই এটা করা হয়েছে।’’

আরও পড়ুন: মুভি রিভিউ ‘ব্রহ্মা জানেন গোপন কম্মটি’: অশিক্ষা, কুসংস্কার শুষে নিতে কত ন্যাপকিন লাগবে?

নাট্যকর্মী হিসাবে পরিচিত মুখ জয়রাজ ভট্টাচার্য অল্প বয়স থেকে ইন্ডিয়ান পিপলস থিয়েটার অ্যাসোসিয়েশন (আইপিটিএ)-এর হয়ে বহু পথনাটিকায় অংশ নিয়েছেন। ১৯৯৮-এ ‘চেতনা’ নাট্যদলে যোগ দেন। এক সময় সুমন মুখোপাধ্যায়ের পরিচালনায় ‘তিস্তাপারের বৃতান্ত’ বা ‘অসময়ের বৃতান্ত’ নাটকে তাঁর অভিনয় সমালোচক তথা দর্শকদের প্রশংসা কুড়িয়ে নিয়েছিল। নাটকের পাশাপাশি, নবারুণ ভট্টাচার্যের উপন্যাস অবলম্বনে সুমন মুখোপাধ্যায় পরিচালিত ‘হারবার্ট’ বা কিউ এবং আশিষ অভিকুন্তকের ছবিতেও দেখা গিয়েছে জয়রাজকে। অভিনয়ের পাশাপাশি একাধিক ইন্ডিপেন্ডেন্ট ছবি পরিচালনা করেছেন তিনি। এনআরসি-বিরোধী আন্দোলনের অংশ হিসাবে উৎপল দত্তের রচনা অবলম্বনে ‘তিতুমীর’ নাটকটি পরিচালনা ও প্রযোজনা করছেন জয়রাজ।

Advertisement