• স্রবন্তী বন্দ্যোপাধ্যায়
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মধ্যরাতে জন্ম নিল নুসরত-নিখিলের ‘সন্তান’

nusrat jahan
নুসরত জাহান। নিজস্ব চিত্র।

Advertisement

শাশুড়িকে কেক খাওয়ালেন। রূপান্তরকামীকে নিয়ে নিজের নতুন পোশাক পরে র‌্যাম্পে হাঁটলেন নুসরত। সঙ্গে মিমি, তনুশ্রী, পায়েল, সৌরসেনী, উষসী।

নিখিল বেশ ব্যস্ত! থেকে থেকে জল খাচ্ছেন। নানা দিকে যাচ্ছেন। আবার অপেক্ষা করছেন কিছুর...
অন্যদিকে নুসরত সাজছেন।
কলকাতার পাঁচতারা হোটেলের ছন্দে তখন বেজে উঠেছে ‘দেশি গার্ল’। একদল ঝলমলে সুন্দরীর মাঝ থেকে বেরিয়ে এলেন হঠাৎ! নমস্কারে হাসিতে খোলা চুলে নিটোল খোলা পেটে চোলি আর ঘাগড়াতে রাত গভীর করলেন।
ততক্ষণে নিখিল জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি স্বপ্ন দেখছিলেন এমন কিছু পোশাক তৈরি করার, যা যে কোনও মানুষের ভেতরের আমিকে বাইরে নিয়ে আসবে। ‘ইউভ’ সেরকমই উদ্যোগ। নিজেকে নতুন করে খুঁজে পেতে আপনাকে পরতেই হবে ‘ইউভ’-এর পোশাক।
নিখিল জানালেন, “স্বপ্ন ছিল। কিন্তু কোনও অনুপ্রেরণা ছিল না আগে। সেটা নুসরতের কাছ থেকে পেলাম। ও এল আমার কাছে।তাই সম্ভব হল।আমার স্বপ্ন হলেও তার আত্মা নুসরত বা নয়না।” নুসরতকে আদর করে তো তিনি নয়না বলেই ডাকেন।
বোঝা গেল এই ‘ইউভ’ আর কিছুই না, নুসরত আর নিখিলের সদ্যোজাত সন্তান যাকে নিজের হাতে নুসরত সাজিয়েছেন।সাজাতেই তো চেয়েছিলেন বসিরহাটের সংসদ,'অসুর' এর নায়িকা।

 

শ্বশুর-শাশুড়ি এবং স্বামী নিখিলের সঙ্গে নুসরত 

“ব্যাঙ্ককে শুট করছিলাম আমরা। একদিন নুসরত বলল আমি কাপড়ের ব্যবসা করব” পুরনো দিনে ফিরে গেলেন যাদবপুরের সাংসদ ও অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। নুসরতের সব কাজেই যিনি তাঁর পাশে। রঙ্গোলী কালেকশনের কালো ডিজাইনার ড্রেস পড়েছিলেন মিমি। ‘ড্রাকুলা স্যার’ ছবির শুটের ফাঁকে ঠিক সময় বের করে এসছেন তিনি তাঁর ‘বোনু’-র জন্য। মন নিয়ে দেখলেন ফ্যাশন শো। র‌্যাম্পে যদিও মিমি এলেন না। নিখিল ডাকা সত্ত্বেও তিনি গেলেন না। গল্প করলেন সকলের সঙ্গে।
উষসী সঞ্চালনায় মাতিয়ে রেখেছিলেন সকলকে।
মিমি না হাঁটলেও র‌্যাম্পে ‘ইউভ’ এর পোশাক পরে হাঁটলেন তনুশ্রী, পায়েল, সৌরসেনী, রোজার মতো অভিনেত্রী আর মডেলরা। নিখিল আর নুসরতের ভাবনায় কখনও ঘাগড়া, রেডি শাড়ি বা কখনও লং গাউন, সাওরস্কির কারুকাজ করা লাল থেকে ল্যাভেন্ডার গাউনে চোখ ধাঁধালেন বঙ্গ সুন্দরীরা।

আরও পড়ুন-অন্তঃসত্ত্বা ঐশ্বর্যা? অভিষেকের টুইটে বাড়ল জল্পনা...

নুসরতের সব কাজেই পাশে থাকেন মিমি 

বাবার তিরিশ বছরের ব্যবসাকে ছেলে আর বউমা মিলে আরও মেলে ধরল। আর সেই বউমা যদি নুসরত জাহান হন, তবে তা নিয়ে তো আগ্রহ থাকবেই।বাবা-মায়ের সামনেকেক কাটলেন নুসরত-নিখিল। তখন তিনি একেবারে তাঁদের ঘরের বউমা।
শাশুড়িকে কেক খাইয়ে দিলেন নুসরত। “আমি নিখিলকে বলতাম আমার সঙ্গে যদি স্টাইলিস্ট না থাকে আমি কী পরব? কোনটা আমায় মানাবে?এই ভাবনা ভাবতে ভাবতেই ‘ইউভ’-এর জন্ম।আর এই ফ্যাশন স্টেটমেন্টে ফিরে এসছে উওম্যান এমপাওয়ারমেন্টের কথা। তাই কিয়ারার মতো রূপান্তরকামী মানুষকে আমরা 'ইউভ'-এর সাজে সাজিয়েছি”,বললেন নুসরত।
হলদে ঘাগড়া চোলিতে তখন আলোকজ্জ্বল কিয়ারার মুখ। নুসরত আর নিখিলের এই ভিন্ন উদ্যোগে সাড়া দিয়ে এসেছিলেন অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, জুন মাল্য, ফ্যাশন ডিজাইনার অভিষেক দত্ত, মেক আপ আর্টিস্ট অনিরুদ্ধ চাকলাদার।
এ ভাবেই আলো আঁধারির ছন্দে মেতে উঠল মাঘের রাত।আরও একবার নিখিল- নুসরতের গাঢ় প্রেম প্রকাশ পেল ভিন্ন সৃষ্টির মধ্যে দিয়ে।

আরও পড়ুন-বিয়ে করলেন ক্যাটরিনা? কন্যাদানে স্বয়ং অমিতাভ!

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন