Advertisement
০৪ ডিসেম্বর ২০২২
Entertainment News

সোনুর পর আজান বিতর্কে এ বার প্রিয়ঙ্কা চোপড়া

নিজের অজান্তেই আজান বিতর্কে জড়িয়ে পড়লেন প্রিয়ঙ্কা চোপড়া। বরং বলা ভাল তাঁকে এই বিতর্কে টেনে আনা হল। একটি পুরনো ভিডিওতে আজান পড়া নিয়ে প্রিয়ঙ্কার বক্তব্য ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। আর তাতেই উস্কে উঠেছে আজান বিতর্কের নয়া পর্ব।

ছবি: সংগৃহীত।

ছবি: সংগৃহীত।

সংবাদ সংস্থা
শেষ আপডেট: ১৯ এপ্রিল ২০১৭ ১৩:১৬
Share: Save:

নিজের অজান্তেই আজান বিতর্কে জড়িয়ে পড়লেন প্রিয়ঙ্কা চোপড়া। বরং বলা ভাল তাঁকে এই বিতর্কে টেনে আনা হল। একটি পুরনো ভিডিওতে আজান পড়া নিয়ে প্রিয়ঙ্কার বক্তব্য ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। আর তাতেই উস্কে উঠেছে আজান বিতর্কের নয়া পর্ব।

Advertisement

গত বছর ভোপালে প্রকাশ ঝা-র ‘জয় গঙ্গাজল’ ফিল্মের শুটিংয়ের সময় ভিডিওটি তোলা হয়েছিল। ফিল্মের শুটিং চলাকালীন সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে প্রিয়ঙ্কা বলেন, “ভোপালে একটা সময় আমার সবচেয়ে ভাল লাগে। ওই সময়টার জন্য আমি রীতিমতো অপেক্ষা করে থাকি। সেটা সন্ধেবেলায় আজানের সময়টা। প্যাকআপের পর টেরাসে গিয়ে বসি। আর সূর্যাস্ত দেখতে দেখতে শুনতে পাই আশপাশের লাউডস্পিকার থেকে আজানের শব্দ ভেসে আসছে। পাঁচ মিনিটের জন্য হলেও অসাধারণ এক অনুভূতি হয়! পরিবেশটাও কেমন যেন অদ্ভুত শান্ত হয়ে যায়। সারা দিনে এটাই আমার সবচেয়ে পছন্দের সময়!”

আরও পড়ুন

সোনুর আজান-টুইট নিয়ে বিতর্ক জারি

Advertisement

এক মিনিটের কম সময়ের এই ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ঘুরতে শুরু করেছে বিভিন্ন হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপেও। আশ্চর্য সমাপতন হলেও এতে সোনু নিগমের বক্তব্যের পুরোপুরি উল্টো সুর শোনা গিয়েছে। লাউডস্পিকারে আজান পড়ার শব্দে ঘুমে ভেঙে যায় বলে টুইট করে সোমবার বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন সোনু নিগম। ‘জোর করে এ ভাবে ধর্মের সশব্দ ঘোষণা এ দেশে কবে বন্ধ হবে?’ বলে মন্তব্য করেন তিনি। সেই টুইটগুলির পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড হতে থাকেন সোনু। টুইটারে সোনুর পক্ষে ও বিপক্ষে মতামত দেন বলিউডের তারকা।

সোমবার টুইটে সোনু ‘ঈশ্বর সকলের মঙ্গল করুন’ লিখে শুরু করেছিলেন। কিন্তু, তার পরেই কয়েকটি বাক্য জুড়ে দেন। লেখেন, তিনি মুসলিম নন। অথচ প্রতি দিন সকালে আজানের আওয়াজে তাঁর ঘুম ভাঙে। এর পরেই তাঁর প্রশ্ন, ‘জোর করে এ ভাবে ধর্মের সশব্দ ঘোষণা এ দেশে কবে বন্ধ হবে?’ এখানেই সোনু থামেননি। মিনিট পাঁচেক পরের এক টুইটে লিখেছেন, ‘মহম্মদ যখন ইসলাম সৃষ্টি করেন, তখন তো বিদ্যুৎ ছিল না। তা হলে এখন এই চিত্কার-চ্যাঁচামেচি কেন সহ্য করতে হবে?’ শেষ টুইটেও সোনু আক্রমণাত্মক। গোটা ব্যাপারটিকে ‘এটা গুন্ডাগর্দি, ব্যস’ বলে মন্তব্য করেন গায়ক।

সোনুর পর প্রিয়ঙ্কা হলেন প্রথম সেলিব্রিটি যাঁকে এই বিতর্কে জড়ানো হল। আমেরিকান টেলিভিশন সিরিজে শুটিংয়ের জন্য আপাতত বলিউডের থেকে নিউ ইয়র্কেই বেশি থাকছেন প্রিয়ঙ্কা। আজান বিতর্কে এখনও পর্যন্ত মুখ খোলেননি তিনি। তবে ওই ভিডিও প্রকাশ্যে আসায় এ বার বোধহয় মুখ খুলবেন প্রিয়ঙ্কাও।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.