• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

শ্বাশ্বত চট্টোপাধ্যায়ের পকেটমারি

১
শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়

সিরিয়াল কিলার থেকে পকেটমার। এটা কি পদাবনতি, নাকি উত্তরণ?

সে প্রশ্নের উত্তর বরং খুঁজুন ভক্তেরা। ‘কহানি’-র ‘বব বিশ্বাস’ শ্বাশ্বত চট্টোপাধ্যায় আপাতত কী ভাবে লোকের পকেট মারবেন— সেটাই ভাবছেন!

আসলে, ‘মন চুরি’ নামের এক বাংলা ছবিতে শ্বাশ্বত যে ভূমিকায় অবতীর্ণ হচ্ছেন, সে এক পকেটমার ইনস্টিটিউশনের টপার। এ প্রসঙ্গে সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে শ্বাশ্বত জানালেন, হার্ডকোর ক্রিমিনালের রোল পেতে তিনি বরাবরই আগ্রহী। আরও জানালেন, শাহরুখ খানের ১৯৯৫ সালের ছবি ‘রাম জানে’-তে দেখা এক পরিত্যক্ত শিশুর কালক্রমে পাড়া-ডন হয়ে ওঠার গল্পের সঙ্গে মিল রয়েছে এই চরিত্রের।

আসলে, মানবজীবনের ছায়াময় দিক, সমাজের মার্জিনে থাকা মানুষ— এই বিষয়ে নায়কের আগ্রহ বরাবরের। পাড়ার চায়ের দোকানে বসে একটা সময় এমন বহু চরিত্রের সঙ্গে আড্ডা দিয়েছেন তিনি। এমনকী, পকেটমারির ট্রেনিং-সেশনের বাস্তব কাহিনিও তিনি জানেন। কুমড়োর উপর মকশো করে কী ভাবে ব্লেডের এক স্ট্রোকে নিঃসাড়ে পকেট কাটতে হয়, ধরা পড়ার পর কোন উপায়ে অনিবার্য গণধোলাই থেকে পালাতে হয়— এ সব গল্প তিনি অনেক শুনেছেন। কাজেই যে-ই শুনলেন এমন একটা চরিত্রের প্রস্তাব এসেছে, না বলতে পারেননি তিনি। তাঁর মতে, এই মানুষগুলো হয়তো খুচরো ক্রাইম করে জীবন ধারণ করে। কিন্তু এদের মধ্যে বেশিরভাগই হৃদয়বান, দায়ে-বিপদে সকলের আগে এদের দেখাই পাওয়া যায়। ‘মন চুরি’-তে পকেটমার স্কুলের প্রিন্সিপালের ভূমিকায় দেখা যাবে খরাজ মুখোপাধ্যায়কে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন