×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৭ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

টিআরপি রেটিংয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এল ‘শ্রীময়ী’

মৌসুমী বিলকিস
৩০ নভেম্বর ২০১৯ ২১:৩২
সিরিয়ালের একটি দৃশ্য।

সিরিয়ালের একটি দৃশ্য।

এই প্রথম স্টার জলসা চ্যানেলের ধারাবাহিক টিআরপি রেটিং-এ উঠে এল দ্বিতীয় স্থানে। এত দিন রেটিং তালিকার শীর্ষে জি বাংলা চ্যানেলের ধারাবাহিকগুলিই জায়গা করে নিয়েছে। গত ১০ জুন সম্প্রচার শুরু হয়েছিল ধারাবাহিক ‘শ্রীময়ী’-র। দ্রুত টিআরপি বেড়ে স্টার জলসা চ্যানেলের অন্তর্বর্তী ধারাবাহিকগুলির মধ্যে প্রথমে চলে আসে ‘শ্রীময়ী’। এর আগে চ্যানেলটির অন্তর্বর্তী ধারাবাহিকগুলির শীর্ষে ছিল ‘কে আপন কে পর’। কিন্তু ‘শ্রীময়ী’-র মতো রেটিং কখনওই পায়নি এই ধারাবাহিকটি।

সব চ্যানেলের মিলিত রেটিং-এও ‘শ্রীময়ী’-র উত্থান চোখে পড়ার মতো। মাত্র পাঁচ মাসের মধ্যেই গত কয়েক সপ্তাহের রেটিং তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ‘শ্রীময়ী’। যুগ্ম ভাবে প্রথম স্থানে আছে ‘করুণাময়ী রাণী রাসমণি’ এবং ‘ত্রিনয়নী’। এর কারণ কী?

ধারাবাহিকের শ্রীময়ী ইন্দ্রাণী হালদার আনন্দবাজার ডিজিটালকে এই প্রসঙ্গে বলেছিলেন, “শ্রীময়ীর যে ধরনের সমস্যা দেখানো হচ্ছে তার কোনও না কোনও সমস্যার সঙ্গে দর্শক নিজেদের মিল খুঁজে পায়। ‘শ্রীময়ী’র চরিত্রগুলো অত্যন্ত রিয়েলিস্টিক। সেই কারণে মানুষ প্রত্যেকটি চরিত্র... তা নেগেটিভ বা পজিটিভ যা-ই হোক না কেন, সবার সঙ্গেই একটা নৈকট্য অনুভব করছে। তা ছাড়া লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের লেখা। লেখাতে তো খুব পারদর্শিনী তিনি। ওনার লেখা, ওনার গল্পের বাঁধুনি সবটাই ভীষণ জোরদার। সবটা মিলিয়ে ‘শ্রীময়ী’র পুরো প্যাকেজটা একটা অত্যন্ত ভাল প্যাকেজ। সে জন্য ‘শ্রীময়ী’ মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছে।”

Advertisement



শ্রীময়ীর চরিত্রে ইন্দ্রাণী হালদার। —নিজস্ব চিত্র

আরও পড়ুন: মুভি রিভিউ ‘বহমান’: শ্যাওলা সরিয়ে সম্পর্কের স্রোত​

এই মুহূর্তে গল্পে দেখা যাচ্ছে শ্রীময়ীর স্বামী অনিন্দ্য (সুদীপ মুখোপাধ্যায়) তার পছন্দের নারী জুনের (ঊষসী চক্রবর্তী) সঙ্গে থাকতে শুরু করেছে। শ্রীময়ী একাই সামলাচ্ছে তার দায়দায়িত্ব। আদিম অনুভূতির কাছে অসহায় এই তিন চরিত্রের টানাপড়েনে মিশে যাচ্ছে সামাজিক বোধ, পারিবারিক দায়দায়িত্ব। গল্পের ঘূর্ণিপাকে জট ছাড়ানোর চেষ্টায় চরিত্রগুলিও ঘুরপাক খাচ্ছে। এ গল্প আমাদের খুবই চেনা। আমাদের গল্প, উপন্যাস এবং জীবনেও নিরন্তর চলছে এই ত্রিকোণ। দর্শক ভীষণ পছন্দও করছেন। বিষয়টা কেমন লাগছে?

গল্পের জুন ঊষসী বললেন, “আই অ্যাম ভেরি হ্যাপি। কারণ আমি দশ বছর বাদে সিরিয়াল করছি। এত দিন পর কামব্যাক করে আমি এমন একটা সিরিয়াল করছি যেটা এত ভাল পারফর্ম করছে। আরও ভাল লাগছে যে এই গল্পের হিরোইন মামণিদির (ইন্দ্রাণী) মতো একজন অ্যাক্টর। তাঁর পাশে দাঁড়িয়ে যে আমি কাজটা করতে পারছি এবং দর্শক পছন্দ করছে এই দুটোই খুব বড় পাওনা। আর অবশ্যই লীনাদিকে অনেক অনেক ধন্যবাদ, এমন একটা গল্পে আমাকে স্থান দেওয়ার জন্য।”



ঊষসী।

আরও পড়ুন: ৮৫ বছর বয়সে বলি ডেবিউ, চিনতে পারছেন এই ‘কাবারিওয়ালি দাদি’কে!​

রেটিং তালিকায় প্রথম হওয়ার আশা করছেন? তিনি যোগ করলেন, “স্টারের হায়েস্ট তো বটেই, বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে আমরা স্লট টপার। কিন্তু আমাদের আগে ‘রাসমণি’ ও ‘ত্রিনয়নী’ আছে। তবে আশা করব যে আমরা অচিরেই সব চ্যানেলের নিরিখে শীর্ষে যাব।”

Advertisement