Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২২ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

মানতে পারেননি দেওরের পরিণতি, সুশান্তের শেষকৃত্য চলাকালীন বৌদির মৃত্যু

সংবাদ সংস্থা
পটনা ১৬ জুন ২০২০ ১০:৪৫
—ফাইল চিত্র।

—ফাইল চিত্র।

মাত্র ৩৪ বছর বয়সে আত্মঘাতী হয়েছেন বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিংহ রাজপুত। কী কারণে তাঁকে এমন চরম পদক্ষেপ করতে হল, তা নিয়ে এখনও জল্পনা চলছেই। তারই মধ্যে মৃত্যু হল সুশান্তের বৌদির। সুশান্তের মৃত্যুর খবরে মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছিলেন তিনি। তাতেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে।

সোমবার মুম্বইয়ের ভিলে পার্লের শ্মশানে যখন সুশান্তের শেষকৃত্য চলছে, সেইসময়ই বিহারের পূর্ণিয়া জেলায় মলডীহা গ্রামে মৃত্যু হয় সুধাদেবীর। তিনি সম্পর্কে সুশান্তের তুতো বৌদি। বেশ কিছু দিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন তিনি। সেই অবস্থায় সুশান্তের মৃত্যুর খবর পেয়ে খাওয়া-দাওয়া ছেড়ে দিয়েছিলেন। তাতেই ক্রমশ তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে। বার বার সংজ্ঞা হারাতে থাকেন।

পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপের দিকে এগোচ্ছে দেখে বাড়িতে এক জন চিকিৎসককে ডেকে আনেন সুধাদেবীর পরিবারের লোকজন। কিন্তু তাতেও লাভ হয়নি। সংজ্ঞা ফিরে পেয়েই বার বার সুশান্ত সম্পর্কে জানতে চাইছিলেন তিনি। কিন্তু চার পাশে লোকজনের ভিড় দেখে পরমুহূর্তেই ফের সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলেন। শেষমেশ সোমবার বিকেলে মৃত্যু হয় তাঁর।

আরও পড়ুন: ‘সুশান্তের মৃত্যু পরিকল্পিত খুন’, বলিউডের প্রভাবশালীদের দিকে তির কঙ্গনার

আরও পড়ুন: মৃত্যুর আগের রাতে সুশান্তের ফোন ধরেননি রিয়া, সম্পর্ক কি একেবারেই তলানিতে ঠেকেছিল দু’জনের?​

Advertisement

সুধাদেবীর স্বামী অমরেন্দ্র সিংহ সংবাদমাধ্যমে জানান, সোমবার সকাল থেকে সুধাদেবীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছিল। বিকেল ৫টায় তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

রবিবার মুম্বইয়ের বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে সুশান্ত সিংহ রাজপুতের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ঘর থেকে কোনও সুইসাইড নোট পাওয়া না গেলেও, তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। কী কারণে তিনি এমন পদক্ষেপ করলেন, তা এখনও নিশ্চিত ভাবে জানা যায়নি। তবে দীর্ঘ দিন ধরেই মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন তিনি। চিকিৎসাও চলছি তাঁর। কিন্তু সম্প্রতি তিনি ওষুধ খাওয়া বন্ধ করে দেন বলে জানা গিয়েছে।

সুশান্তের অকালমৃত্যুতে শোকের ছায়া গোটা দেশে। বিহারের পটনায় যে এলাকায় সুশান্ত বড় হয়েছেন, সেখানকার মানুষও এখনও পর্যন্ত তাঁর এই পরিণতি মেনে নিতে পারছেন না।

আরও পড়ুন

Advertisement