Advertisement
৩০ জানুয়ারি ২০২৩
Tollywood

মিটু কাঁটায় বিদ্ধ দীপাংশুকে নিয়ে প্রথম বার মুখ খুলল টলিউড

“একটা খুব ‘ভাল মিথ্যে’ তাকেই বলে যার মধ্যে অধিকাংশ সত্যি রয়েছে। নিশ্চয়ই শ্রেয়সী ও শ্রীতমার কথার সিংহভাগটাই সত্যি। জানালেন অভিনেতা।

দীপাংশুকে নিয়ে প্রথম বার মুখ খুলল টলিউড

দীপাংশুকে নিয়ে প্রথম বার মুখ খুলল টলিউড

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১১ জানুয়ারি ২০২১ ১৯:০৩
Share: Save:

আমার হাঁটু জলে স্মৃতিরা ভেসে চলে, জীবন কথা বলে, সবাই চুপ...

Advertisement

তাঁর এমনই এক গানে আকণ্ঠ ভেসেছিল কলকাতা। শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়-নন্দিতা রায়ের ‘কণ্ঠ’ ছবির এই গানের লেখক দীপাংশু আচার্যের বিরুদ্ধে তাঁর স্ত্রী এবং প্রাক্তনেরা যদিও আর চুপ নেই। দিনের পর দিন তাঁরা কেমন করে গার্হস্থ হিংসার শিকার হয়েছেন এখন তা ফেসবুকের পাতায়। মিডিয়ার সামনে।

কিন্তু এই অভিনেতা, প্রাক্তন রেডিয়ো জকি, গীতিকার, লেখক, কবি, কমেডিয়ান দীপাংশু আচার্য সম্পর্কে কী বলছে টলিউড? খোঁজ নিল আনন্দবাজার ডিজিটাল। দীপাংশুর দীর্ঘ দিনের বন্ধু, অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ বললেন,“আমি ওকে অনেক দিন ধরে চিনি। শ্রীতমাদিকেও জানি। সত্যি যদি নিগ্রহ বা শারীরিক অত্যাচার করে থাকে দীপাংশু তাহলে ওর শাস্তি পাওয়া উচিত। তবে এখন যা শুনছি তা এক তরফের বয়ান। তা থেকে কিছু বলা যায় না।যাদবপুরের যে মেয়েরা এত লড়াকু তারা এমন একটা মানুষ সম্পর্কে এত দিন পরে লিখল কেন? তখনই প্রতিবাদ করেনি কেন?” সোশ্যাল মিডিয়ায় মানুষ যা ইচ্ছে লিখতে পারেন, সায়নী এই ফেসবুক সংস্কৃতিকে মেনে নিয়েই বললেন, “ফেসবুক বিপ্লব করার জায়গা নয়। কেউ গার্হস্থহিংসার শিকার হলে তো আইন বা পুলিশের কাছে যেতে হয়।সেটা হচ্ছে না কেন?”

শুধু টলিউডে নয়, বলিউডেও অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত অভিনেতা নানা পটেকরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনেছিলেন। যা নিয়ে এক সময় উত্তাল ছিল সোশ্যাল মিডিয়া। সাজিদ খানের বিরুদ্ধে যৌন নিগ্রহের অভিযোগ করেছিলেন ভারতীয় মডেল পওলা। নাবালিকা মডেল-অভিনেত্রীকে ছবিতে কাজ পাইয়ে দেওয়ার নামে নগ্ন হওয়ার প্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগ ওঠে তাঁর বিরুদ্ধে। বলিউডে সাজিদ খান আর নানা পটেকরের এই ঘটনায় উভয়ের কাজ করা রীতিমতো কষ্টকর হয়ে গিয়েছে।

Advertisement

কিন্তু টলিউডে এই ধারার ঘটনার জের কয়েক দিনেই হারিয়ে যায়। দীপাংশুর দীর্ঘ দিনের বন্ধু তথাসহকর্মী, প্রাক্তন আর জে সায়ন যদিও বিষয়টিকে অন্য ভাবে দেখছেন। তিনি বললেন, “একটা খুব ‘ভাল মিথ্যে’ তাকেই বলে যার মধ্যে অধিকাংশ সত্যি রয়েছে। নিশ্চয়ই শ্রেয়সী ও শ্রীতমার কথার সিংহভাগটাই সত্যি। কিন্তু আমি সোশ্যাল মিডিয়া বিমুখ একটি মানুষ। বার বার দেখেছি, সোশ্যাল মিডিয়ায় খুব তাড়াতাড়ি বিষয়বস্তু বদলে যায়। তাই বিষয়টা নিয়ে আইনি পদক্ষেপ করা উচিত। আর একটা বড় আপত্তি রয়েছে আমার। এই ঘটনাটাকে কী ভাবে ‘মিটু’-র সঙ্গে গুলিয়ে ফেলা হচ্ছে? শ্রেয়সী তো ‘মিটু’দেয়নি। এটা ভুল করছে অনেকেই।” দীপাংশুর সঙ্গে ‘কণ্ঠ’ ছবিতে কাজ করতে গিয়ে একবারই আলাপ হয়েছিল সাহানা বাজপেয়ীর। তিনি কিছুই জানতেন না। আনন্দবাজার ডিজিটাল থেকে খবরটি পড়ে বললেন, “দীপাংশুর ব্যক্তিজীবন নিয়ে আমি কিছু জানি না। মন্তব্য করতে পারব না।”

আরও পড়ুন: #মিটু কাঁটায় বিদ্ধ টুম্পা খ্যাত অভিনেতা

অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র অবশ্য জানালেন, দীপাংশুর কাজের ভক্ত হলেও ব্যক্তিগত জীবনে তিনি কেমন, সে বিষয়ে কিছু না জেনে তাঁর কথা বলা উচিত নয়।তিনি বললেন, “বিয়ের পরে ছেলেমেয়ের মধ্যে মানসিক বা শারীরিক স্থিতি না এলে সেই বিয়ে থেকে বেরিয়ে যে যার মতো থাকাই ভাল। আমি একটি প্রেমের সম্পর্কে ছিলাম, যেখানে মানসিক নিগ্রহের শিকার হয়েছি। সে রকমটা কারওর সঙ্গে ঘটলেই তা অপরাধ। তবে হ্যাঁ, আমার সম্পর্কের ক্ষেত্রে আমি বলতে চাই, আমাকে শারীরিক ভাবে অত্যাচার করার শক্তি কারওর নেই।” তবে এরই পাশাপাশি শ্রীলেখার মন্তব্য: ‘‘আর্টিস্ট মাত্রেই একটু এক্সেনট্রিক হয়।সে কারণে আমার মনে হয় আর্টিস্টদের বিয়ে করাই উচিত নয়।’’

দীপাংশুর বন্ধু হলেনগীতিকার, গায়ক এবং সুরকার প্রসেন। আনন্দবাজার ডিজিটালকে তিনি বললেন, “আমার তো বড্ড হাসি পাচ্ছে! এটা বোধহয় দীপাংশুরই মাথা থেকে বেরিয়েছে। সবাইকে দিয়ে এই পোস্টগুলো করাচ্ছে মজা করার জন্য। কারণ, এদের তো আমি বহু বছর ধরে চিনি। এত ভাল বন্ধু ওরা! ঝগড়া করে, আবার মিটমাটও করে নেয়। সিরিয়াস কোনও ঘটনা হলে নিশ্চয়ই অনেক বছর আগেই বলত ওরা। তা তো বলেনি।” প্রসেন বিষয়টাকে উড়িয়ে দিলেন।

কী করবেন দীপাংশুর প্রাক্তন প্রেমিকা শ্রেয়সী আর বিচ্ছেদ চাওয়া স্ত্রী শ্রীতমা?

আরও পড়ুন: ‘অন্যের সঙ্গে ফ্লার্ট করতে দেখে স্ত্রী কী বলেন’, প্রশ্নের মুখে কপিল

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.