Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

থানায় কেন প্রিয়ঙ্কা

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ৩১ অক্টোবর ২০১৯ ০০:০১
তথাগত-প্রিয়ঙ্কা

তথাগত-প্রিয়ঙ্কা

গত সোমবার মাঝরাতে হঠাৎই থানায় যেতে হয় প্রিয়ঙ্কা সরকারকে। কিন্তু কেন? না, কোনও ছবির শুটিংয়ের জন্য নয়। তাঁর বন্ধু ফোটোগ্রাফার তথাগত ঘোষকে থানা থেকে ফিরিয়ে আনতেই প্রিয়ঙ্কাকে সেখানে যেতে হয়েছিল। খবর হল, তথাগতকে সঙ্গে নিয়ে এক বন্ধুর বাড়ি গিয়েছিলেন প্রিয়ঙ্কা। উপলক্ষ ছিল, প্রতিপদে ভাইফোঁটা। ইন্ডাস্ট্রির আরও অনেকেই সেখানে উপস্থিত ছিলেন। ভাইফোঁটার অনুষ্ঠান ছাড়াও একসঙ্গে বাজি পোড়ানো হবে বলে ঠিক করা ছিল। ওই পরিবারের আরও অনেকেই শামিল হয়েছিলেন বাজি পোড়ানোয়।

জানা গিয়েছে, তাঁরা শব্দবিধি মেনে বাজি পোড়াচ্ছেন না, এই অভিযোগ স্থানীয় থানায় দায়ের হলে পুলিশ ওই বাড়িতে যায়। আচমকা পুলিশ আসায় প্রাথমিক ভাবে সকলেই ঘাবড়ে যান। যদিও এই বাজি পোড়ানোর সময়ে প্রিয়ঙ্কা ছিলেন না বলেই শোনা গিয়েছে। পুলিশের কথামতো তথাগত ও তাঁর এক বন্ধু থানায় যান। এ ব্যাপারে তথাগতকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘‘যে বাড়িতে আমাদের নিমন্ত্রণ ছিল, সেই পরিবারের কয়েকটি বাচ্চা শেল ফাটাচ্ছিল। তখন রাত প্রায় সাড়ে এগারোটা হবে। অভিযোগ শুনে সেই সময়ে পুলিশ আসে। কিন্তু সেখানে পরিবারের তরফে কোনও পুরুষ সদস্য না থাকায় আমি ও আমার এক বন্ধু থানায় হাজিরা দিতে যাই।’’

তথাগতকে থানা থেকে ফিরিয়ে আনতে গিয়েছিলেন প্রিয়ঙ্কা। দু’পক্ষের সমঝোতায় কিছুক্ষণের মধ্যেই তথাগত ও তাঁর বন্ধুকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এ ব্যাপারে প্রিয়ঙ্কা বলেন, ‘‘কী উটকো ঝামেলা! নিমন্ত্রণ খেতে গিয়ে থানায় যেতে হল। বাচ্চাগুলোর কথা ভেবেই থানায় গিয়েছিলাম আমরা। পুলিশ আমাদের সঙ্গে পূর্ণ সহযোগিতা করেছে।’’ তথাগতর কথায়, ‘‘আমাদের একটা ফর্মাল সাইন করিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল। থানা থেকে ফেরার সময়ে গাড়ির প্রয়োজন ছিল। তাই প্রিয়ঙ্কা গাড়ি নিয়ে এসেছিল।’’

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisement