Advertisement
০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Green Moong Beans

প্রোটিন পেতে সবুজ মুগ ডাল খাচ্ছেন? শরীরে তিন রোগ থাকলেই বাড়বে বিপদ

যাঁরা নিরামিষাশী তাঁদের প্রতি দিনের খাবারে ডাল রাখা জরুরি। মাছ, মাংস, ডিম ছাড়া একমাত্র ডাল থেকেই পর্যাপ্ত পরিমাণে প্রোটিন পাওয়া সম্ভব।

মুগ ডালে রয়েছে কপার, ফাইবার এবং প্রোটিন-সহ বিভিন্ন পুষ্টিকর উপাদান।

মুগ ডালে রয়েছে কপার, ফাইবার এবং প্রোটিন-সহ বিভিন্ন পুষ্টিকর উপাদান। ছবি- সংগৃহীত

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০১ ডিসেম্বর ২০২২ ১৩:২০
Share: Save:

ডাল শরীরের জন্য খুবই উপকারী। বিশেষ করে যাঁরা নিরামিষ বা ভিগান খাবার খেয়ে থাকেন, তাঁদের জন্য ডাল বিশেষ ভাবে উপকারী। সাধারণ ডাল-ভাত খাওয়ার পাশাপাশি অনেকেই খোসা-সহ মুগ ডাল ভিজিয়ে বা রান্না করেও খেতে পছন্দ করেন। এই ডালে রয়েছে কপার, ফাইবার এবং প্রোটিন-সহ বিভিন্ন পুষ্টিকর উপাদান। কিন্তু এই মুগ ডালই এক এক জনের শরীরে আবার বিষের মতো কাজ করে।

Advertisement

কোন কোন সমস্যায় সবুজ মুগ ডাল খাওয়া থেকে বিরত থাকবেন?

১) ইউরিক অ্যাসিড

Advertisement

রক্তে ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা বেশি যাঁদের, তাঁদের জন্য মুগ কড়াই বা সবুজ মুগ ডাল বিষের মতো কাজ করে। চিকিৎসকদের মতে, রক্তে প্রোটিনের মাত্রা বেশি থাকলে তা ইউরিক অ্যাসিডের ভারসাম্য বিঘ্নিত করে। ইউরিক অ্যাসিড বেড়ে গেলে শরীরে বিভিন্ন অস্থিসন্ধিতে ব্যথা, যন্ত্রণা, ফুলে থাকা এই সব সমস্যা দেখা দেয়।

২) কিডনিতে পাথর

কিডনিতে সাধারণত দু’ধরনের পাথর জমতে দেখা যায়। ক্যালশিয়াম এবং অক্সালেট। জল কম খাওয়ার কারণে বা ইউরিক অ্যাসিড বেশি থাকলে কিডনিতে পাথর জমতে পারে। মুগ ডাল খেলে রক্তে ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা বেড়ে যায়। স্বাভাবিক ভাবেই অক্সালেট জাতীয় পাথর তৈরি হওয়ার আশঙ্কা বেড়ে যায়।

৩) রক্তে শর্করার মাত্রা কম

যাঁদের রক্তে শর্করার মাত্রা কম, তাঁদের এই মুগ ডাল এড়িয়ে যাওয়াই ভাল। যাঁরা ডায়াবিটিসের রোগী, তাঁদের সবুজ খোসা-সহ মুগডাল খেতে পরামর্শ দেন পুষ্টিবিদরা। ফলে যাঁদের রক্তে শর্করার মাত্রা এমনিতেই কম, মুগ ডাল খেয়ে তা আরও খানিকটা কমে গেলে সমস্যা বেড়ে যায়।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.