×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৬ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

আজ ফের হাথরস যাচ্ছেন রাহুল-প্রিয়ঙ্কা, গৃহবন্দি প্রদেশ সভাপতি

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ০৩ অক্টোবর ২০২০ ১১:৪৬
আজ ফের হাথরস যাচ্ছেন রাহুল গাঁধী ও প্রিয়ঙ্কা বঢরা। ছবি: পিটিআই

আজ ফের হাথরস যাচ্ছেন রাহুল গাঁধী ও প্রিয়ঙ্কা বঢরা। ছবি: পিটিআই

প্রথম চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। কিন্তু তাতে হাল ছাড়ছেন না রাহুল গাঁধী। উত্তরপ্রদেশে যোগী আদিত্যনাথের সরকারের উপর চাপ বজায় রাখতে শনিবার বিকেলে ফের হাথরসে নির্যাতিতার বাড়িতে যাওয়ার চেষ্টা করবেন তিনি। সঙ্গে থাকবেন প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরাও। কংগ্রেসের যে প্রতিনিধি দল শনিবার আবার যাবে সেখানে, তাদের তরফেই এই খবর দেওয়া হয়েছে। এখন দেখার, এ দিনও যোগীর পুলিশের বাধার মুখে পড়েন কি না রাহুল-প্রিয়ঙ্কা। কারণ, কংগ্রেস সূত্রে খবর, এ দিনই তড়িঘড়ি ‘গৃহবন্দি’ করা হয়েছে উত্তরপ্রদেশের কংগ্রেস সভাপতিকে।

বৃহস্পতিবার রাহুলকে গন্তব্যের অনেক আগেই আটকে দেওয়া হয়েছিল। হাথরসের বুল গড়হী গ্রামে নির্যাতিতার বাড়ি। সেই গ্রামে ঢোকার আগেই রয়েছে পুলিশের ব্যারিকেড। ওইদিন সংবাদমাধ্যমকেও সেখানে আটকে দেওয়া হয়েছিল। পুলিশ জানিয়েছিল বিশেষ তদন্তকারী দল (সিট)-এর তদন্ত শেষ না-হওয়া পর্যন্ত গ্রামে সংবাদমাধ্যমের প্রবেশ নিষেধ। হাথরসের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার প্রকাশ কুমার বলেছিলেন, ‘‘বর্তমান আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে বাইরের কোনও ব্যক্তি বা রাজনৈতিক প্রতিনিধিকে গ্রামে ঢুকতে দেওয়া হবে না।’’ এ দিন কী হবে, তা নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছে। কারণ, কংগ্রেস টুইট করে জানিয়েছে, উত্তরপ্রদেশে দলের সভাপতি অজয় কুমার লাল্লুকে গৃহবন্দি করা হয়েছে। তবে এ দিন রাহুলের দলও ভারী থাকবে। তাঁর সঙ্গে ৪৫ থেকে ৫০ জন প্রতিনিধি যোগ দিতে পারেন বলে কংগ্রেস সূত্রে খবর। একটি চ্যানেলের খবর, দিল্লি এবং উত্তরপ্রদেশ সীমানাতেই কংগ্রেসের প্রতিনিধিদলকে বাধা দেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার হাসরথে যাওয়ার পথে আটকে দেওয়া হয়েছিল তৃণমূলের প্রতিনিধিদলকেও। পুলিশের ধাক্কায় মাটিতে পড়ে গিয়েছিলেন তৃণমূল সাংসদ তথা রাজ্যসভার নেতা ডেরেক ও’ব্রায়েন। তিনি অভিযোগ করেন, তাঁর সহকর্মী সাংসদ প্রতিমা মণ্ডলের শ্লীলতাহানি করেছে পুলিশ। ওই ঘটনার প্রতিবাদে শনিবার বিকেলে কলকাতায় পদযাত্রা করছেন তৃণমূলের সর্বময় নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Advertisement

আরও পড়ুন: দেশে দৈনিক সংক্রমণ কমছে, মৃত্যুহার যদিও একই

বৃহস্পতিবার রাহুল-সহ কংগ্রেসের প্রতিনিধি দলকে কার্যত গলাধাক্কা দিয়ে ফিরিয়ে দিয়েছিল পুলিশ। ১৪৪ ধারা ভাঙার অভিযোগে প্রাথমিক ভাবে রাহুলদের আটকও (প্রথমে বলা হয়েছিল রাহুলদের গ্রেফতার করা হয়েছে। কিন্তু পরে জানা য়ায়, তাঁদের আটক করেছিল পুলিশ) করা হয়। রাহুলের সফর নিয়ে বিজেপি-তেও আলোড়ন উঠেছিল। রাহুল-প্রিয়ঙ্কা ‘রাজনৈতিক দ্বিচারিতা’ করছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা রবি শঙ্কর প্রসাদ।

আরও পড়ুন: মিলিটারি হাসপাতালে ভর্তি হলেন ট্রাম্প, দেওয়া হয়েছে পরীক্ষামূলক ওষুধ

হাথরসের বুল গড়হী ‘নিরুপদ্রব’ হলেও ওই কাণ্ড নিয়ে বিক্ষোভ চলছে দেশ জুড়ে। প্রতিবাদের ছবি উস্কে দিয়েছে ২০১২ সালের নির্ভয়া-কাণ্ডের স্মৃতি। দিল্লির যন্তরমন্তরে চলছে বিক্ষোভ। শুক্রবার সেই বিক্ষোভে যোগ দিয়ে তার ওজন বাড়িয়ে দিয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল। হাথরসের ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগীর পদত্যাগ দাবি করেছেন ভীম আর্মির প্রধান চন্দ্রশেখর আজাদ।

Advertisement