Advertisement
০৭ ডিসেম্বর ২০২২
National News

ফি বাকি, ৫ ঘণ্টা বেসমেন্টে ১৬ শিশুকে আটকে রাখল দিল্লির স্কুল

পুলিশ জানিয়েছে, ওই দিন বিকেলে এক অভিভাবক অভিযোগ জানান, তাঁর সন্তান-সহ ১৫ জন শিশুকে প্রচন্ড গরমের মধ্যে সকাল সাড়ে ৭টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত স্কুলের বেসমেন্টে আটকে রেখেছিলেন স্কুল কর্তৃপক্ষ।

এই স্কুলের বিরুদ্ধেই অভিযোগ উঠেছে।

এই স্কুলের বিরুদ্ধেই অভিযোগ উঠেছে।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ১১ জুলাই ২০১৮ ১১:৩৪
Share: Save:

ফি দিতে পারেননি অভিভাবকরা, আর সেই ‘অপরাধে’র শাস্তি হিসেবে নার্সারি ও কিন্ডারগার্টেনের ১৬ জন পড়ুয়াকে স্কুলের বেসমেন্টে পাঁচ ঘণ্টা আটকে রাখার অভিযোগ উঠল দিল্লির রাবেয়া গার্লস পাবলিক (প্রাইমারি) স্কুলের বিরুদ্ধে। গত সোমবার হজ কাজি এলাকার ঘটনা।

Advertisement

পুলিশ জানিয়েছে, ওই দিন বিকেলে এক অভিভাবক অভিযোগ জানান, তাঁর সন্তান-সহ ১৫ জন শিশুকে প্রচন্ড গরমের মধ্যে সকাল সাড়ে ৭টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত স্কুলের বেসমেন্টে আটকে রেখেছিলেন স্কুল কর্তৃপক্ষ। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ওই স্কুলের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৪২ (অন্যায় ভাবে আটকে রাখা) ধারা এবং ৭৫ জুভেনাইল জাস্টিস অ্যাক্ট (শিশুদের প্রতি অমানবিকতা)-এ মামলা রুজু করেছে পুলিশ। ঘটনাটির সত্যাসত্য জানতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে দিল্লি শিশু সুরক্ষা কমিশন।

ঠিক কী হয়েছিল?

অভিযোগকারী ওই অভিভাবক জানান, ওই দিন স্কুলে আনতে গিয়েছিলেন মেয়েকে। স্কুলে গিয়ে মেয়েকে খুঁজে না পেয়ে প্রচন্ড আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। তিনি একা নন, আরও বেশ কয়েক জন অভিভাবকও অভিযোগ করেন, তাঁদের সন্তানদের খুঁজে পাচ্ছেন না। তখন সকলে মিলে স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে যান।অভিযোগ, সহযোগিতা তো দূর, প্রধান শিক্ষিকারকাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে অন্য শিক্ষকরা অভিভাবকদের সেই ঘর থেকে ধাক্কা মেরে বার করে দেন। পরে ওই বেসমেন্ট থেকেই ক্ষুধার্ত, তৃষ্ণার্ত-আতঙ্কিত শিশুদের উদ্ধার করেন অভিভাবকরা।

Advertisement

আরও পড়ুন: পুরুলিয়ার সেই ডেভিকে ফেরত আনার চেষ্টা শুরু

আরও এক অভিভাবকের অভিযোগ, সেপ্টেম্বর পর্যন্ত স্কুলের ফি দেওয়ার পরেও তাঁর মেয়েকে আটকে রাখা হয়েছিল। কেন আটকে রাখা হয়েছিল জানতে চাইলে স্কুল কর্তৃপক্ষ কোনও জবাবই দেননি।

তবে স্কুল কর্তৃপক্ষ ফি না দেওয়ার যে অভিযোগ তুলেছেন সেটা সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে পাল্টা দাবি করেছেন অভিভাবকরা।পুলিশ জানিয়েছে, ওই শিশুদের অভিভাবকরা তাঁদের কাছে জানিয়েছেন, স্কুলের ফি সব মিটিয়ে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তার পরেও বেছে বেছে ওই ১৬ জন শিশুকে ইচ্ছাকৃত ভাবে আটকে রাখা হয়েছিল।

এই ঘটনায় পুলিশ স্কুলের বেশ কয়েক জন কর্মীকে জেরা করেছে। ওই দিনের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: নির্ভয়ার সেই নাবালক ধর্ষক এখন ধাবার রাঁধুনি

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.