Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৯ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

Namaz Room: ঝাড়খণ্ডের পর এ বার উত্তরপ্রদেশ বিধানসভায় আলাদা নমাজ ঘরের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০৬:৫২
ঝাড়খণ্ড বিধানসভার স্পিকার রবীন্দ্রনাথ মাহাতোর সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে প্রতিবাদ বিজেপির বিধায়কদের।

ঝাড়খণ্ড বিধানসভার স্পিকার রবীন্দ্রনাথ মাহাতোর সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে প্রতিবাদ বিজেপির বিধায়কদের।
ছবি পিটিআই।

‘নমাজ ঘর’ করা নিয়ে উত্তপ্ত হল ঝাড়খণ্ড বিধানসভার অধিবেশন। স্পিকারের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে ওয়েলে নেমে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি দিলেন বিজেপির বিধায়কেরা। গোলমালের মধ্যেও অবশ্য সিদ্ধান্তে অনড় ছিলেন স্পিকার রবীন্দ্রনাথ মাহাতো। বিজেপি বিধায়কদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘‘আপনারা যদি রেগে যান, আমার গায়ে হাত তুলতে পারেন। কিন্তু অধিবেশন চলার সময়ে গোলমাল করবেন না।’’ ঝাড়খণ্ডে বিজেপির বিক্ষোভের মধ্যেই উত্তরপ্রদেশ বিধানসভাতেও নমাজ ঘরের জন্য দাবি তুলেছে সমাজবাদী পার্টি।

ঝাড়খণ্ড বিধানসভার একটি ঘরে নমাজের বন্দোবস্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন স্পিকার। বিজেপি এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি তুলে গত কালও হইচই করেছে। তাঁদের বক্তব্য, নমাজ ঘরের বন্দোবস্ত করা হলে বিধানসভা চত্বরে হনুমান মন্দির গড়ে পুজোর ব্যবস্থাও করা হোক। নমাজ ঘরের বিরোধিতা করতে আজ অধিবেশন শুরুর আগে থেকেই বিধানসভার গেটে ধর্নায় বসেছিলেন বিজেপির বিধায়কেরা। পরে অধিবেশন শুরু হলে হইচই শুরু করে দেন তাঁরা। চলতে থাকে জয় শ্রীরাম স্লোগান। প্রশ্নোত্তর পর্বে হইচই চলতে থাকায় অধিবেশন দুপুর সাড়ে বারোটা পর্যন্ত মুলতুবি করে দেন স্পিকার। ক্ষুব্ধ বিধায়কদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘‘স্পিকারের চেয়ারের অমর্যাদা করবেন না। যদি রাগ হয়, আপনারা আমার গায়ে হাত তুলতে পারেন। কিন্তু অধিবেশন চলার সময়ে গোলমাল করবেন না।’’

বিজেপি নেতা সি পি সিংহ পাল্টা বলেন, ‘‘আপনি আবেগের কথা বলছেন। আমরা জানি, বিধানসভার শীর্ষে রয়েছেন স্পিকার। কিন্তু আপনি নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করছেন না। সেটাই আমাদের ব্যথিত করছে।’’ বিজেপি সদস্য ভানুপ্রতাপ শাহিকে উদ্দেশ করে স্পিকার পাল্টা বলেন, ‘‘হনুমান চালিশাকে সম্মান করুন। কিন্তু একে রাজনীতির লাভের জন্য ব্যবহার করবেন না।’’

Advertisement

ঝাড়খণ্ড বিধানসভা নমাজ ঘরের সিদ্ধান্ত নিতেই সমাজবাদী পার্টি দাবি তুলেছে, উত্তরপ্রদেশের বিধানসভাতেও এমন বন্দোবস্ত করা হোক। উত্তরপ্রদেশে সমাজবাদী পার্টির বিধায়ক ইরফান সোলাঙ্কি যুক্তি দিয়েছেন, অনেক সময়েই বিধানসভার অধিবেশন চলাকালীন নমাজ পড়ার জন্য মুসলিম বিধায়কদের বিধানসভার বাইরে চলে যেতে হয়। ফলে বিধানসভার কোনও একটি ঘরে নমাজে পড়ার সুযোগ থাকলে সেই অসুবিধা এড়ানো যেতে পারে। উত্তরপ্রদেশ বিধানসভার স্পিকার যাতে এই প্রস্তাব বিবেচনা করেন, সেই আর্জি জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন

Advertisement