Advertisement
০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

কাশ্মীরে খতম বুরহানের সঙ্গী ওয়াসিম

পুলিশ জানিয়েছে, উপত্যকায় লস্করের অন্যতম কম্যান্ডার বছর তেইশের ওয়াসিম শাহের উপরে বেশ কিছু দিন ধরে নজর রাখছিলেন গোয়েন্দারা। দক্ষিণ কাশ্মীরের শোপিয়ানে হেফ-শ্রীমল এলাকায় জঙ্গিদের শীর্ষ নেতা হিসেবে পরিচিত ছিল সে।

ওয়াসিম শাহ

ওয়াসিম শাহ

সাবির ইবন ইউসুফ
শ্রীনগর শেষ আপডেট: ১৫ অক্টোবর ২০১৭ ০৩:০৬
Share: Save:

দক্ষিণ কাশ্মীরের পুলওয়ামায় বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে খতম হলো লস্কর-ই-তইবা কম্যান্ডার ওয়াসিম শাহ। গত বছরে দক্ষিণ কাশ্মীরে অশান্তির পিছনে ওয়াসিমের ব়ড় ভূমিকা ছিল বলে ধারণা গোয়েন্দাদের। জঙ্গি সংগঠনে যোগ দেওয়ার আগে ক্রিকেটে দক্ষতার জন্য বন্ধুদের কাছে ‘ওয়াসিম আক্রম’ হিসেবে পরিচিত ছিল সে।

Advertisement

পুলিশ জানিয়েছে, উপত্যকায় লস্করের অন্যতম কম্যান্ডার বছর তেইশের ওয়াসিম শাহের উপরে বেশ কিছু দিন ধরে নজর রাখছিলেন গোয়েন্দারা। দক্ষিণ কাশ্মীরের শোপিয়ানে হেফ-শ্রীমল এলাকায় জঙ্গিদের শীর্ষ নেতা হিসেবে পরিচিত ছিল সে। সম্প্রতি গোয়েন্দারা জানতে পারেন পুলওয়ামার লিটার এলাকায় ওয়াসিম লুকিয়ে রয়েছে। চার বছর লিটারে কোনও জঙ্গি দমন অভিযান হয়নি। গোয়েন্দাদের মতে, ফলে ওই এলাকাকে তুলনামূলক ভাবে নিরাপদ মনে করত জঙ্গিরা।

আজ ভোরে লিটার এলাকায় কয়েকটি বাড়ি ঘিরে ফেলে সেনা ও পুলিশ। তল্লাশি শুরুর কিছু ক্ষণের মধ্যেই শুরু হয় গুলির লড়াই। ওয়াসিম ও তার দেহরক্ষী নাসির আহমেদ মির বাহিনীর বেষ্টনী ভেঙে পালানোরও চেষ্টা করে। তখনই খতম হয় দু’জন।

সংঘর্ষের খবর পেয়েই বাহিনীকে লক্ষ্য করে পাথর ছুড়তে শুরু করে স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশ। পরিস্থিতি সামলাতে প্রথমে ছররা ও পরে গুলি ছুড়তে বাধ্য হয় বাহিনী। গুলজার আহমেদ মির নামে আলাইপোরার এক বাসিন্দা গুলিতে নিহত হয়। ছররার আঘাতে আহত হয় বেশ কয়েক জন। তাদের পুলওয়ামার জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

Advertisement

গত বছর হিজবুল কম্যান্ডার বুরহান ওয়ানি খতম হওয়ার পরে দীর্ঘ দিন অশান্তি চলেছিল কাশ্মীরে। গোয়েন্দাদের দাবি, সেই অশান্তির পিছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিল ওয়াসিম শাহ। বাহিনীর উপরে একাধিক হামলাতেও যুক্ত ছিল সে। হেফ গ্রামের বাসিন্দা এক ফল ব্যবসায়ী পরিবারের ছেলে ওয়াসিম। এক সময়ে ক্রিকেটার হিসেবে দক্ষিণ কাশ্মীরে পরিচিত ছিল সে। ওই এলাকায় সেনার আয়োজিত অনেক ক্রিকেট টুর্নামেন্টেও খেলেছে ওয়াসিম। ক্রিকেট দলে তার এক সময়ের সতীর্থ মাতিন আহমেদ এখন মাইক্রোবায়োলজির ছাত্র। পুরনো স্মৃতি হাতড়ে বললেন, ‘‘ওর বোলিং কৌশল ওয়াসিম আক্রমকে মনে পড়িয়ে দিত। তাই আমরা ওকে ওয়াসিম আক্রম বলেই ডাকতাম।’’

ঘনিষ্ঠ সঙ্গীদের নিয়ে তোলা বুরহান ওয়ানির একটি ছবি এক সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছিল। পুলিশ জানিয়েছে, ওয়াসিম খতম হওয়ার পরে ওই ছবিতে থাকা জঙ্গিদের মধ্যে একমাত্র সাদাম পাদের বেঁচে রয়েছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.