Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

লাদাখে শুরু সেনা স্তরের বৈঠক, বৃহত্তর সঙ্ঘাতের ইঙ্গিত জেনারেল রাওয়তের

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ০৬ নভেম্বর ২০২০ ১৬:১৫
জেনারেল বিপিন রাওয়ত। ছবি: পিটিআই।

জেনারেল বিপিন রাওয়ত। ছবি: পিটিআই।

পূর্ব লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় (এলএসি) ভারতীয় এবং চিনা সেনার মধ্যে বৃহত্তম সঙ্ঘাতের সম্ভাবনার কথা জানালেন চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ (সিডিএস) জেনারেল বিপিন রাওয়ত। সেই সঙ্গে তাঁর অভিযোগ, পাকিস্তানের সঙ্গে চিন হাত মেলানোর ফলে আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

ঘটনাচক্রে এ দিন সকালে লাদাখ পরিস্থিতি নিয়ে দুই সেনার কোর কমান্ডার স্তরের অষ্টম দফার বৈঠক শুরু হয়েছে। চুসুল লাগোয়া মলডোতে এই বৈঠকে প্রথম বার ভারতীয় প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ১৪ নম্বর কোরের নয়া কমান্ডার, লেফটেন্যান্ট জেনারেল পি জি কে মেনন। এর আগে সাত বার এই বৈঠকে ১৪ নম্বর কোরের কমান্ডার পদে মেননের পূর্বসূরি লেফটেন্যান্ট জেনারেল হরেন্দ্র সিংহ হাজির থেকেছেন। গত ১৪ অক্টোবর সপ্তম দফার বৈঠকে হরেন্দ্রর সহকারী হিসেবে বৈঠকে ছিলেন মেনন। তা ছাড়া, এ দিনের বৈঠকে কেন্দ্রের এক অসামরিক আধিকারিকও যোগ দিয়েছেন।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রের খবর, প্যাংগং হ্রদের উত্তর তীরে ফিঙ্গার এরিয়া ৫ থেকে ৮ পর্যন্ত ভারতীয় সেনা যাতে আগের মতো টহল দিতে পারে, বৈঠকে সেই দাবি তোলা হবে। পাশাপাশি, সঙ্ঘাতের নয়া ক্ষেত্র অর্থাৎ হ্রদের দক্ষিণ তীর থেকে লাল ফৌজ সরানোর দাবি জানানো হচ্ছে।

Advertisement

জেনারেল রাওয়ত এ দিন স্পষ্ট জানিয়েছেন, চিনা ফৌজের আগ্রাসী আচরণের কারণেই পূর্ব লাদাখে সমস্যা তৈরি হয়েছে। আগামী দিনে তা আরও তীব্র হতে পারে। তাঁর কথায়, ‘‘নিরাপত্তা সংক্রান্ত সামগ্রিক ভাবনা থেকেই সীমান্তে সঙ্ঘাতে, আগ্রাসন এমনকি, প্ররোচনাহীন সামরিক দ্বৈরথের ঘটনা ঘটতে পারে। তার পরিণতিতে বড় ধরনের সঙ্ঘাতও হতে পারে।’’ পাশাপাশি ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যাকাডেমি আয়োজিত ভার্চুয়াল সভায় তিনি বলেন, ‘‘এলএসি বদলে দেওয়ার কোনও প্রচেষ্টা আমরা বরদাস্ত করব না।’’

আরও পড়ুন: ভোটগণনা স্থগিতের দাবি নাকচ আদালতে, ট্রাম্পকে টুইট-খোঁচা গ্রেটা থুনবার্গের

চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফের মতে, দক্ষিণ এশিয়ায় আধিপত্য বিস্তারের উদ্দেশ্যেই চিন ‘বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভ’ কর্মসূচি শুরু করেছে। অন্য দিকে, পাকিস্তান তার চিরাচরিত ভারত-বিরোধী মানসিকতা থেকেই জম্মু ও কাশ্মীরে ছায়াযুদ্ধ চালাতে সন্ত্রাসবাদকে হাতিয়ার করেছে।

আরও পড়ুন: করোনা ঠেকাতে ১ কোটি ৭০ লক্ষ মিঙ্ক মারার কাজ শুরু ডেনমার্কে

আরও পড়ুন

Advertisement