×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

অর্থনীতি থেকে নজর ঘোরাতেই মাদক প্রসঙ্গ: জয়া

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ ০২:০৬
ছবি: পিটিআই।

ছবি: পিটিআই।

অর্থনীতির বেহাল অবস্থা আর বেকারত্ব থেকে মুখ ঘোরাতেই বলিউডে মাদক চক্রের অভিযোগ নিয়ে বিজেপি নেতারা হইচই শুরু করেছেন— সংসদে দাঁড়িয়ে আজ এই দাবি করলেন অভিনেত্রী জয়া বচ্চন। জানিয়ে দিলেন, বলিউডকে বদনাম করার চেষ্টা কোনও ভাবেই মেনে নিতে পারছেন না তিনি। এই বক্তব্য শোনার পরেই জয়াকে পাল্টা জবাব দিয়েছেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত, লকেট চট্টোপাধ্যায়রা।

গত কাল সংসদের বাদল অধিবেশনের শুরুর দিনেই হিন্দি ও ভোজপুরি সিনেমার অভিনেতা, বিজেপি সাংসদ রবি কিষণ বলিউডে মাদক চক্রের অভিযোগ এনেছিলেন। জানিয়েছিলেন, সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যু বলিউডের এই অন্ধকারের দিকটিকে সামনে এনে দিয়েছে। এমনকি মাদক চক্রের পিছনে পাকিস্তান, চিনের মতো প্রতিবেশীর ষড়যন্ত্র থাকতে পারে বলেও দাবি করেছিলেন তিনি। এ নিয়ে নারকোটিক্স কন্ট্রোল বুরোর কাজের প্রশংসা করে দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি তোলেন বিজেপি সাংসদ। লোকসভায় ওই অভিনেতার বক্তব্যকে নিয়ে রাজ্যসভায় আজ সরব হন জয়া। বলেন, ‘‘কয়েকজন লোকের জন্য গোটা বলিউডের ভাবমূর্তি নষ্ট করা উচিত নয়। সিনেমার জগৎ থেকে আসা এক সাংসদ গত কাল লোকসভায় বলিউড সম্পর্কে যে কথা বলেছেন, তাতে আমি লজ্জিত। এরা যে থালায় খাচ্ছেন, সেটাতেই ছিদ্র করছেন।’’ সমাজবাদী পার্টির সাংসদের যুক্তি, দেশে বিনোদন ক্ষেত্র রোজ পাঁচ লক্ষ মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে। পরোক্ষ ভাবে আরও ৫০ হাজার মানুষের রোজগার এর সঙ্গে জড়িয়ে। এই পরিস্থিতিতে দেশের অর্থনীতির খারাপ অবস্থা আর বেকারত্ব থেকে নজর ঘুরিয়ে দিতেই এ সব কথাবার্তা বলা হচ্ছে।

পরে কঙ্গনা প্রশ্ন তোলেন, যদি জয়া বচ্চনের ছেলের কিংবা মেয়ের ক্ষেত্রে এই ধরনের ঘটনা ঘটতো, তিনি কি এমন কথা বলতে পারতেন? আর রবি কিষণের প্রতিক্রিয়া, ‘‘জয়াজি কিংবা আমি যখন সিনেমার জগতে এসেছিলাম, তখন পরিস্থিতি অন্যরকম ছিল। কিন্তু এখন বলিউডকে আমাদের রক্ষা করতে হবে।’’ সোশ্যাল মিডিয়ায় জয়ার সমর্থনে মত দিয়েছেন অনেকেই। তবে টুইটারে লকেট চট্টোপাধ্যায় জয়াকে আক্রমণ করে লিখেছেন, ‘‘পালঘরে সাধুদের হত্যার ঘটনার সময়ে কিংবা নৌ বাহিনীর প্রাক্তন আধিকারিকের উপর আক্রমণের সময়ে জয়া বচ্চন কোথায় ছিলেন? সুশান্ত সিংহ রাজপুতকে বলিউডের মাফিয়াদের বলি হতে হয়েছে। সেই সময়েও কোথায় ছিলেন তিনি?’’ জয়ার ‘দ্বিচারিতা’-কে নিশানা করে বিজেপি সাংসদ বলেছেন, যে অংশে পচন ধরেছে, তাকে বাদ না দিলে গোটা বলিউডকেই ভুগতে হবে।

Advertisement

আরও পড়ুন: স্ত্রী করোনা পজিটিভ হয়ে আইডিতে, কোয়রান্টিনে সূর্যকান্ত মিশ্র

আরও পড়ুন: ৫০ লক্ষে ভারত, তবু লকডাউনের গুণগান​

তবে শুধু বলিউডেই নয়, মাদকের ছায়া পড়েছে কন্নড় সিনেমার জগতেও। বেঙ্গালুরু পুলিশ আজ এ ব্যাপারে কর্নাটকের এক প্রাক্তন মন্ত্রীর ছেলে আদিত্য আলভার বাংলোয় তল্লাশি চালিয়েছে। শহরে রেভ পার্টির আয়োজকদের বিরুদ্ধে পুলিশ ব্যবস্থা নেওয়া শুরু করতেই অভিযুক্তদের তালিকায় আলভার নাম উঠে আসে। চার একর জমির উপরে গড়া ওই বাংলোয় তিনি পার্টির ব্যবস্থা করতেন বলে পুলিশের দাবি। মাদক মামলায় কন্নড় ছবির কয়েকজন অভিনেত্রীকেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

Advertisement