Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৪ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

৪ মে থেকে দেশ জুড়ে সিবিএসই পরীক্ষা, অনলাইনে নয়, ঘোষণা শিক্ষামন্ত্রীর

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ২০:০০
মঙ্গলবার সিবিএসই পরীক্ষার সময়সূচিও ঘোষণা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সিবিএসই পরীক্ষার সময়সূচিও ঘোষণা করা হয়েছে।
প্রতীকী ছবি।

আগামী মে মাসে সিবিএসই বোর্ডের দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা হবে। মঙ্গলবার এই ঘোষণা করলেন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল নিশঙ্ক। শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা শুরু হবে আগামী ৪ মে থেকে। দশম শ্রেণির পরীক্ষা শেষ হবে ৭ জুন এবং দ্বাদশ শ্রেণির ক্ষেত্রে তা শেষ হবে ১১ জুন। ১৫ জুলাই ওই দুই পরীক্ষার ফলাফল ঘোষিত হবে।

করোনা-পরিস্থিতিতে স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকলেও সিবিএসই-র কোনও পরীক্ষাই অনলাইনে দেওয়া যাবে না। প্রতিটি পরীক্ষা দিতে সংশ্লিষ্ট পরীক্ষাকেন্দ্রে যেতে হবে পড়ুয়াদের। যদিও করোনার আবহে পরীক্ষাকেন্দ্রে স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত যাবতীয় নিয়ম মেনে চলার দিকে গুরুত্ব দিয়েছেন পোখরিয়াল। তিনি জানিয়েছেন, সংক্রমণ এড়াতে পরীক্ষাকেন্দ্রে সব সময় মাস্ক পরা বা হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক করা হবে।

Advertisement

মঙ্গলবার সিবিএসই পরীক্ষার সময়সূচিও ঘোষণা করা হয়েছে। সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দশম শ্রেণির পরীক্ষা শুরু হবে। তা চলবে দেড়টা পর্যন্ত। অন্য দিকে, দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা ২টি ভাগে নেওয়া হবে।

প্রথম পরীক্ষা সাড়ে ১০টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত এবং দ্বিতীয় পরীক্ষা আড়াইটে থেকে সাড়ে ৫টা পর্যন্ত হবে বলে জানিয়েছেন পোখরিয়াল। ৪ মে দশম শ্রেণির প্রথম পরীক্ষা হবে কন্নড়, ওড়িয়া এবং লেপচা— এই তিনটি ভাষার। অন্য দিকে, দ্বাদশ শ্রেণির প্রথম পরীক্ষা হবে ইংরেজি ভাষার (মূল এবং ঐচ্ছিক)।

সাধারণত প্রতি বছরের মার্চ-এপ্রিল মাসে সিবিএসই বোর্ডের পরীক্ষা হয়। তবে করোনার মোকাবিলায় গত বছরের ২৫ মার্চ থেকে দেশ জুড়ে লকডাউন শুরু হলে স্কুল, কলেজ-সহ সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়। লকডাউনের সময় থেকে অনলাইনে পড়াশোনা চললেও সিবিএসই বোর্ডের পরীক্ষা পিছিয়ে যায়। তবে কোনও মতেই পরীক্ষা স্থগিত রাখা হবে না বলে গত মাসেই জানিয়ে দিয়েছিলেন পোখরিয়াল। যদিও মঙ্গলবার তিনি জানিয়েছেন, দেশ জুড়েই সিবিএসই-র পরীক্ষা হবে পাঠ্যক্রমের ৩৩ শতাংশ কমিয়ে। পাশাপাশি, বহু অভিভাবকই অনলাইনে পরীক্ষার আবেদন করলেও তা নাকচ করে পোখরিয়াল বলেছেন, দেশের প্রত্যন্ত প্রান্তে এখনও বহু পড়ুয়ার কাছে ইন্টারনেটের সুবিধা নেই। ফলে সংশ্লিষ্ট পরীক্ষাকেন্দ্রে গিয়েই পরীক্ষা দিতে হবে সমস্ত পড়ুয়াদের।

আরও পড়ুন

Advertisement