×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৫ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

দিল্লি হয়তো করোনার গোষ্ঠী প্রতিরোধের পথে, সমীক্ষা উদ্ধৃত করে দাবি আপ সরকারের

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৮:২৫
জানুয়ারির শেষ দিকে গোটা দিল্লি জুড়ে সেরো-সমীক্ষা করা হয়েছিল।

জানুয়ারির শেষ দিকে গোটা দিল্লি জুড়ে সেরো-সমীক্ষা করা হয়েছিল।
ছবি: সংগৃহীত।

করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইতে বড়সড় সাফল্যের দাবি করল দিল্লি সরকার। মঙ্গলবার দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈনের দাবি, রাজধানীর ৫৬.১৩ শতাংশ বাসিন্দার দেহে করোনার রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়েছে। সাম্প্রতিক সেরোলজিক্যাল সমীক্ষায় এই তথ্যপ্রমাণ পাওয়া গিয়েছে বলে দাবি তাঁর। স্বাস্থ্যমন্ত্রীর মতে, দিল্লি হয়তো কোভিড-১৯-এর বিরুদ্ধে গোষ্ঠী প্রতিরোধ (হার্ড ইউমিউনিটি)-এর পথেই এগোচ্ছে। যদিও এ ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞরাই শেষ কথা বলতে পারেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

জানুয়ারির শেষ দিকে গোটা দিল্লি জুড়ে সেরো-সমীক্ষা করা হয়েছিল। প্রশাসন সূত্রে খবর, পঞ্চম দফার ওই সমীক্ষাটি দেশের মধ্যে এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বড় মাপের। মঙ্গলবার একটি সাংবাদিক বৈঠকে দিল্লির আপ সরকারের স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “১৫ থেকে ২৩ জানুয়ারির মধ্যে সেরো-সমীক্ষায় রাজধানীর সবক’টি ওয়ার্ড থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। সব মিলিয়ে মোট ২৮ হাজার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রতি ১০০ জনে ৫৬ জনের দেহেই অ্যান্টিবডির অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছে।”

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, পঞ্চম দফার সমীক্ষায় আগের থেকে উন্নত মানের প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। তিনি বলেন, “সমীক্ষায় দক্ষিণ-পশ্চিম দিল্লির জেলাগুলিতে সবচেয়ে বেশি ৬২.১৮ শতাংশ ‘সেরোপ্রিভেলেন্স’-এর প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। অন্য দিকে, উত্তর দিল্লি এলাকায় সবচেয়ে কম ৪৯.০৯ শতাংশের দেহে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে।”

Advertisement
Advertisement