×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২০ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

‘ডিডিসি ভোটের নামে গণতন্ত্র-হত্যা’

নিজস্ব সংবাদদাতা
শ্রীনগর৩০ নভেম্বর ২০২০ ০৫:৫১
পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতি।

পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতি।

বিশেষ মর্যাদা লোপে কাশ্মীরের সব সমস্যা মিটে গেলে কেন ৯ লক্ষ সেনা-আধাসেনা মোতায়েন রয়েছেন তা নিয়ে আজ ফের প্রশ্ন তুললেন পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতি। তাঁর দাবি, ডিডিসি নির্বাচনের নামে উপত্যকায় গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে বিজেপি সরকার।

গত কাল ডিডিসি নির্বাচনে ৫১.৭ শতাংশ ভোট পড়েছে। আজ এক সাংবাদিক বৈঠকে মেহবুবা বলেন, ‘‘যখনই বিজেপির কোনও মন্ত্রী কাশ্মীরে আসেন তখনই বিশেষ মর্যাদা লোপের কথা বলেন। বিজেপির অনেক মন্ত্রী দাবি করেন বিশেষ মর্যাদাকে সমাহিত করা হয়েছে। তা হলে উপত্যকায় এখনও ৯ লক্ষ সেনা-আধাসেনা মোতায়েন কেন? তাঁদের সীমান্তে পাঠানো হয়নি কেন?’’ মেহবুবার মতে, বেশি ভোট পড়ার সঙ্গে কাশ্মীর সমস্যার কোনও সম্পর্ক নেই। নির্বাচন আগেও হয়েছে। কাশ্মীর সমস্যার সমাধান করতে হবে। তাঁর দাবি, ‘‘ডিডিসি নির্বাচনের নামে গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে বিজেপি। আমাদের প্রার্থীরা ঘর থেকে বেরোতেই পারেননি। কেউ বিজেপির বিরুদ্ধে মুখ খুললেই দেশ-বিরোধীর তকমা দেওয়া হচ্ছে।’’ তাঁর কটাক্ষ, মুসলিমদের পাকিস্তানি, শিখদের খলিস্তানি, পড়ুয়াদের দেশবিরোধী তকমা দিচ্ছে। তা হলে ভারতীয় কে? কেবল বিজেপি?

সম্প্রতি রোশনী জমি কেলেঙ্কারিতে নাম জড়িয়েছে ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ও গুপকার জোটের রূপকার ফারুক আবদুল্লারও। মেহবুবার দাবি, জমি কেলেঙ্কারির চাঁইদের বিরুদ্ধে তদন্ত না করে গরিব মানুষকে হেনস্থা করছে সরকার। তাঁর কথায়, ‘‘রোশনী প্রকল্প গরিব মানুষের জন্য চালু করা হয়েছিল। এখন তাঁদের নোটিস পাঠানো হচ্ছে।’’

Advertisement
Advertisement