×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৫ জুন ২০২১ ই-পেপার

কাশ্মীর নিয়ে নরম কেন্দ্র, সেনাধ্যক্ষও

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি ১৩ জুন ২০১৮ ০৪:১০
বিপিন রাওয়ত। —ফাইল চিত্র।

বিপিন রাওয়ত। —ফাইল চিত্র।

সঙ্ঘ পরিবারের আপত্তি সত্ত্বেও লোকসভা ভোটের ঠিক এক বছর আগে কাশ্মীর প্রশ্নে সুর নরম করছে কেন্দ্র। রমজান মাসে সংঘর্ষবিরতির ঘোষণা ছিল তার প্রথম ইঙ্গিত। সেই বিরতি আরও দু’মাস বাড়ানো হোক— মেহবুবা মুফতির এই প্রস্তাবও এখন গুরুত্ব দিয়ে খতিয়ে দেখছে কেন্দ্র। অস্ত্রের বদলে আলোচনার পথে কাশ্মীর সমস্যা মেটানোর পক্ষে সওয়াল করছেন বিপিন রাওয়ত। সেনাপ্রধান হওয়ার পরে সম্ভবত এই প্রথম বার!

সেনাপ্রধান হয়ে ইস্তক বন্দুকের জোরে কাশ্মীর সমস্যা মেটানোর উপরে জোর দিয়ে এসেছেন রাওয়ত। তাঁর আমলেই দীর্ঘ এক দশক পরে উপত্যকায় বাড়ি-বাড়ি তল্লাশি শুরু করে সেনা। মেহবুবা সরকারের আপত্তি সত্ত্বেও সেনা অভিযান বন্ধ করেনি কেন্দ্র। সেই রাওয়তই এখন বলছেন, ‘‘আলোচনা হওয়া উচিত। স্থানীয় যুবকেরা জঙ্গি দলে নাম লেখাচ্ছে। আমরা তাদের হত্যা করছি। বদলা নিতে যুবকেরা আরও বেশি সংখ্যায় জঙ্গি দলে ভিড়ছে। এটা না থামালে স্থানীয় যুবকদের জঙ্গি দলে নাম লেখানো চলতেই থাকবে। তাই শান্তি আলোচনার পথে হেঁটেই এক বার দেখা যাক।’’

সূত্রের খবর, সেনাপ্রধানের কাছে কাশ্মীর নিয়ে আলোচনায় বসার প্রস্তাব এসেছে সীমান্তের ও-পার থেকেও। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও কাশ্মীর নিয়ে আপাতত নরম পথে চলার নির্দেশ দিয়েছেন জাতীয় সুরক্ষা উপদেষ্টা অজিত ডোভালকে। তার পরেই কাশ্মীরে আলোচনার আবহ তৈরিতে জোর দেওয়ায় উপত্যকার মানুষের বিদ্বেষ আগের চেয়ে কমেছে বলেই দাবি প্রধানমন্ত্রীর দফতরের প্রতিমন্ত্রী জীতেন্দ্র সিংহের। তাঁর কথায়, ‘‘কাশ্মীর পাল্টাচ্ছে। আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সফরের দিন শ্রীনগরে বন্‌ধ ডাকা হত। এ বারে মানুষ পথে নেমে রাজনাথকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।’’

Advertisement

দেরিতে হলেও কাশ্মীর নিয়ে এই নরম সুরকে সময়োচিত ও বাস্তবসম্মত মনে করছেন কেউ কেউ। কারণ এতে হুরিয়ত বা বিচ্ছিন্নবাদীদের সঙ্গে কেন্দ্রের বন্ধ হয়ে যাওয়া আলোচনার রাস্তা কিছুটা হলেও খুলতে পারে।

সরকারের একটি অংশ অবশ্য অমরনাথ যাত্রার কথা মাথায় রেখে সংঘর্ষবিরতির সময়সীমা বাড়ানোর পক্ষপাতী নয়। বিশেষ করে, নিয়ন্ত্রণরেখায় জঙ্গিরা তৎপর থাকায় গোয়েন্দারা যথেষ্ট উদ্বিগ্ন। বিকল্প প্রস্তাব হল, অমরনাথ যাত্রার সময়ে সেনা অভিযান চলুক। যাত্রার শেষে পরিস্থিতি অনুকূল বুঝলে ফের উপত্যকায় সেনা অভিযান বন্ধ রাখা যেতে পারে।

কাশ্মীর নিয়ে নরম হলে পাছে হিন্দু ভোট বিরূপ হয়, তার জন্য মাঠে নেমেছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। ২৩ জুন বলিদান দিবস তথা শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুর দিনে পঞ্জাবের লখনপুরে তাঁর মূর্তিতে মালা দেওয়ার পাশাপাশি জম্মুতেও যাবেন তিনি। লোকসভা ভোটের রণকৌশল ঠিক করতে জম্মু-কাশ্মীরের বিজেপি নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। বৈঠক হবে স্থানীয় সঙ্ঘ নেতৃত্বের সঙ্গেও।



Tags:
Bipin Rawat Kashmir BJPবিপিন রাওয়তকাশ্মীর

Advertisement