Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

মেঘালয়ে খাসি, অ-খাসি সংঘর্ষে হত ২, জারি কার্ফু রাজীবাক্ষ রক্ষিত 

রাজীবাক্ষ রক্ষিত
গুয়াহাটি ০১ মার্চ ২০২০ ০৪:১৩
সিএএ নিয়ে সংঘর্ষে উত্তেজনা মেঘালয়ে। ছবি: টুইটার থেকে নেওয়া

সিএএ নিয়ে সংঘর্ষে উত্তেজনা মেঘালয়ে। ছবি: টুইটার থেকে নেওয়া

মেঘালয়ের পূর্ব খাসি হিল জেলার সেলায় গত সন্ধ্যার সংঘর্ষ ও খাসি ছাত্র সংগঠনের এক সদস্যের মৃত্যুর জেরে গতকাল রাত থেকেই সেলা, শিলং ও আশেপাশের এলাকায় কার্ফু জারি করেছে পুলিশ। বন্ধ ইন্টারনেট। কিন্তু তার পরেও শিলংয়ে সংঘর্ষ রোখা গেল না। আজ সকালে পুলিশ বাজারে খাসি ছাত্র সংগঠনের সদস্যদের আক্রমণে অসমের এক ব্যক্তি মারা যান। গুরুতর জখম হয়েছেন সাত জন। অন্য দিকে, সেলার পার্শ্ববর্তী নদী থেকেও উদ্ধার হয়েছে একটি মৃতদেহ। যদিও পুলিশ জানিয়েছে, নদী থেকে তোলা দেহ যে এই ঘটনায় জড়িত, তা প্রমাণ হয়নি। ফলে সব মিলিয়ে সরকারি ভাবে নিহতের সংখ্যা দুই।

গতকাল সিএএ-র বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও ইনারলাইন পারমিট চালুর দাবিতে চেরাপুঞ্জি মহকুমার অন্তর্গত সেলার অ-খাসি অধ্যুষিত এলাকা ইচামাটিতে খাসি ছাত্র সংগঠন সভা ডাকে। কাছেই বাংলাদেশ সীমান্ত। সভা চলাকালীনই অ-খাসি বাসিন্দাদের সঙ্গে খাসি ছাত্র সংগঠনের কথা কাটাকাটি শুরু হয়। ছাত্র সংগঠনের সদস্যেরা একটি ধানের গোলা ও একটি বাড়িতে আগুন লাগায়। তার পরেই স্থানীয় মানুষ বাঁশ, লাঠি, দা নিয়ে সভায় আসা খাসিদের উপরে চড়াও হন। মারধরে ছাত্র সংগঠনের সদস্য লারসাই হিন্নেইউতা (৩৫) মারা যান। সংঘর্ষে বেশ কয়েক জন পুলিশকর্মী, খাসি ও অ-খাসি ব্যক্তি জখম হন। অতিরিক্ত জেলাশাসকের গাড়ি-সহ বেশ কিছু গাড়ি ভাঙচুর হয়। এর পরেই পূর্ব খাসি হিল জেলা ও আশেপাশের আরও পাঁচটি জেলায় ইন্টারনেট বন্ধ করে দেয় সরকার।

এর পরেও আজ সকাল থেকে ফের উত্তেজনা ছড়ায় রাজধানী শিলংয়ে। দু’টি গাড়িতে আগুন লাগানো হয়। রাজভবনের সামনে খাসি ছাত্র সংগঠনের সঙ্গে নিরাপত্তারক্ষীদের সংঘর্ষ হয়। পরে বড় বাজার এলাকায় মুখোশধারী একদল যুবক ছুরি নিয়ে বেশ কয়েক জন মানুষকে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে পালায়। অসমের বরপেটা জেলার নগাঁও গ্রামের বাসিন্দা রূপচাঁদ দেওয়ানের বুকে কোপ লাগে। হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়। জখম আরও ৭। এক অটোচালককে বেধড়ক মারা হয়। তাঁর অবস্থাও আশঙ্কাজনক। সেলার কাছে সোবার নদী থেকে এক ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। অনির্দিষ্টকালের জন্য এলাকায় কার্ফু জারি করা হয়েছে।

Advertisement

মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমা শান্তি বজায় রাখার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘‘সেলার ঘটনায় আট জনকে আজ গ্রেফতার করা হয়েছে। নিহতদের পরিবারের পাশে থাকবে সরকার। দেওয়া হবে দু’লক্ষ টাকার ক্ষতিপূরণ।’’ তিনি জানান, ম্যাজিস্ট্রেট পর্যায়ে তদন্ত চলছে। মুখ্যসচিব, ডিজিপি, জেলাশাসক ও এসপিদের সঙ্গে তিনি বৈঠক করেছেন। কনরাড জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে। কেন্দ্রীয় বাহিনীও মোতায়েন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

More from My Kolkata
Advertisement