×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৪ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

কো-উইন অ্যাপে সমস্যা, ১৮ তারিখ পর্যন্ত টিকাকরণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত মহারাষ্ট্রে

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ১৭ জানুয়ারি ২০২১ ০৯:০৬
—ফাইল চিত্র।

—ফাইল চিত্র।

সফ্‌টওয়্যার সংক্রান্ত ত্রুটির জেরে নাম নথিভুক্তকরণে সমস্যা। তার জেরে মহারাষ্ট্রে আপাতত বন্ধ রাখা হল করোনার টিকাকরণ। দু’দিনের জন্য টিকাকরণ বন্ধ রেখেছে তারা। অর্থাৎ ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত সেখানে কাউকে প্রতিষেধক দেওয়া হবে না। তার মধ্যে সমস্যা মিটে গেলে টিকাকরণের পরবর্তী তারিখ ও সময় জানিয়ে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে উদ্ধব সরকার।

কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী, প্রতিষেধক নিতে আসা মানুষের নাম, পরিচয়, বয়স ইত্যাদি নথিভুক্ত করার হচ্ছিল কো-উইন অ্যাপে। কিন্তু শনিবার টিকাকরণের শুরুতেই ওই অ্যাপটিতে গোলযোগ দেখা দেয়। ফলে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে নাম নথিভুক্তিকরণের প্রক্রিয়া আটকে যায়। তাই আগে থেকে যাঁরা নাম নথিুক্ত করে রেখেছিলেন, সেই তালিকার সঙ্গেই হিসেব মেলাতে হয়।

অভিযোগ, এই কাজে অনেক সময় লেগে যাচ্ছিল। ব্যাহত হচ্ছিল টিকাকরণ প্রক্রিয়া। তাই সব দিক পর্যালোচনা করেই আপাতত টিকাকরণ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মহারাষ্ট্র সরকার। মুম্বইয়ে টিকাকরণ বন্ধ রাখার বিষয়ে বৃহন্মুম্বই পুরসভার তরফেও আলাদা করে নোটিস জারি করা হয়। তাতে বলা হয়, ‘১৬ জানুয়ারি কোভিডের টিকাকরণ চলাকালীন কো-উইন অ্যাপে কিছু সমস্যা দেখা দেয়। কেন্দ্রের তরফে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করা হয়। টিকাকরণে নাম নথিভুক্ত করার ক্ষেত্রে এই অ্যাপের ব্যবহার বাধ্যতামূলক হলেও সেই সময় অফলাইন রেজিস্ট্রেশনে অনুমতি দেয় কেন্দ্র। কিন্তু পরবর্তী ক্ষেত্রে অ্যাপের মাধ্যমেই নথিভুক্তিকরণ সারতে হবে বলে নির্দেশ এসেছে। অ্যাপের সমস্যার জেরে এই মুহূর্তে তা সম্ভব হচ্ছে না। তাই আপাতত ১৭ এবং ১৮ জানুয়ারি, এই দু’দিনের জন্য মুম্বইয়ে টিকাকরণ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অ্যাপের সমস্যা মিটে যাওয়া মাত্র ফের টিকাকরণ শুরু হবে’।

Advertisement

আরও পড়ুন: ‘যত দ্রুত সম্ভব রাজ্যের প্রত্যেকের বিনামূল্যে প্রতিষেধক পাওয়া উচিত’​

আরও পড়ুন: নতুন করে করোনা আতঙ্কে ঘুম উড়েছে চিনের, নয়া ক্লাস্টার মিলল বেজিংয়েও​

তবে শুধু মহারাষ্ট্রেই নয়। টিকাকরণের প্রথম দিনে পশ্চিমবঙ্গের একাধিক জায়গাতেও একই সমস্যা দেখা দেয়। সফ্‌টওয়্যার সংক্রান্ত সমস্যার জেরে নথিভুক্তিকরণ প্রক্রিয়া আটকে যায়। বাধ্য হয়ে খাতায়-কলমেই কাজ সারতে হয়। সেই হার্ডকপিই স্বাস্থ্যভবনের হাতে তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ সরকার যদিও টিকাকরণ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেয়নি।

Advertisement