×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০২ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

প্রজাতন্ত্র দিবসে ট্র্যাক্টর মিছিল, কৃষকদের নোটিস সুপ্রিম কোর্টের

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ১২ জানুয়ারি ২০২১ ১৬:৪১
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

দিল্লির রাজপথে প্রজাতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজ চলাকালীন ট্র্যাক্টর মিছিলের কর্মসূচি ঘোষণা করেছিলেন আন্দোলনকারী কৃষকেরা। মঙ্গলবার বিষয়টি নিয়ে কৃষক সংগঠনগুলিকে নোটিস পাঠাল সুপ্রিম কোর্ট।

দিল্লি পুলিশের একটি আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদে, বিচারপতি এ এস বোপান্না এবং বিচারপতি ভি রামসুব্রহ্মণ্যমের বেঞ্চের এই পদক্ষেপ। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের নিয়ন্ত্রণাধীন দিল্লি পুলিশের তরফে সোমবার শীর্ষ আদালতে ট্র্যাক্টর মিছিল বন্ধের আর্জি জানানো হয়েছিল। আবেদনে বলা হয়, ‘আন্দোলনকারী কৃষকদের একটি ছোট অংশ ২৬ জানুয়ারি দিল্লিতে ট্র্যাক্টর মিছিলের পরিকল্পনা করছে। এর ফলে প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠান ব্যাহত হতে পারে। অবনতি হতে পারে নিরাপত্তা এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির। ফলে গোটা জাতি বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখে পড়তে পারে’।

প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন সুপ্রিম কোর্টের বেঞ্চ মঙ্গলবার কৃষিক্ষেত্রে সংস্কার সংক্রান্ত তিনটি আইন কার্যকরের উপর স্থগিতাদেশ জারি করেছে। পাশাপাশি, কেন্দ্র এবং আন্দোলনকারী কৃষকদের মধ্যে রফাসূত্র বার করতে একটি কমিটি গড়ার কথাও জানিয়েছে। আন্দোলনকারী কৃষক সংগঠনগুলির আইনজীবী এম এল শর্মা কমিটিতে অংশ নেওয়ার বিষয়ে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া জানানোয় তাঁকে ভর্ৎসনাও করেছে শীর্ষ আদালত। শুনানি পর্বে শর্মা মঙ্গলবার জানান, ‘‘কৃষকেরা আর আলোচনায় অংশ নেবেন না। কারণ, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আলোচনার প্রস্তাব খারিজ করেছেন।’’ জবাবে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রী কী বললেন, তা এখানে বিবেচ্য নয়। প্রধানমন্ত্রী এই মামলার কোনও পক্ষ নন।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: নতুন ৩ কৃষি আইনই স্থগিত করে দিল সুপ্রিম কোর্ট, তৈরি হল কমিটি

এই পরিস্থিতিতে ট্র্যাক্টর মিছিল প্রসঙ্গে কৃষক সংগঠনগুলিকে সুপ্রিম কোর্টের নোটিস তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। দিল্লি পুলিশের যুক্তি, ২৩ জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবসের কুচকাওয়াজের চূড়ান্ত মহড়া হয়। সে সময় থেকেই রাজধানী অঞ্চল জুড়ে চূড়ান্ত নিরাপত্তা সতর্কতা জারি করা হয়। তাই ওই সময়ে যে কোনও ধরনের সমাবেশ বন্ধ রাখা হয়। সুপ্রিম কোর্ট কৃষক সংগঠনগুলির কাছে এ বিষয়ে অবস্থান স্পষ্ট করার নির্দেশ দিয়েছে। সেই সঙ্গে জানতে চেয়েছে ট্র্যাক্টর মিছিল স্থগিত রাখা সম্ভব কি না। আগামী সোমবার (১৮ জানুয়ারি) ফের এই মামলার শুনানি হবে। তার মধ্যেই সিদ্ধান্ত জানাতে হবে কৃষকদের।

আরও পড়ুন: বালাকোটে কি ৩০০ পাক জঙ্গির মৃত্যু হয়েছিল?

Advertisement