Advertisement
০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

ফের নতুন বিতর্ক, ৪ কৃষকের আত্মহত্যার কারণ রাধে মা, অভিযোগ পুলিশে

বিতর্ক যখন তাঁকে ঘিরে ধরেছে, সে সময় তিনি মুখ খুললেন। বললেন, “আমি পবিত্র, আমি পুণ্যাত্মা।” তিনি রাধে মা। মুম্বইয়ের স্বঘোষিত ধর্মগুরু। সোমবার এ দাবি করার পরে পরেই অবশ্য আরও বিপাকে পড়েছেন তিনি। এ বার রাধে মা-র বিরুদ্ধে অভিযোগ, তাঁর প্ররোচনাতেই আত্মহত্যা করেছেন চার জন কৃষক।

যখন ভক্তদের সামনে।

যখন ভক্তদের সামনে।

সংবাদ সংস্থা
শেষ আপডেট: ১০ অগস্ট ২০১৫ ১৬:৫৭
Share: Save:

বিতর্ক যখন তাঁকে ঘিরে ধরেছে, সে সময় তিনি মুখ খুললেন। বললেন, “আমি পবিত্র, আমি পুণ্যাত্মা।” তিনি রাধে মা। মুম্বইয়ের স্বঘোষিত ধর্মগুরু। সোমবার এ দাবি করার পরে পরেই অবশ্য আরও বিপাকে পড়েছেন তিনি। এ বার রাধে মা-র বিরুদ্ধে অভিযোগ, তাঁর প্ররোচনাতেই আত্মহত্যা করেছেন চার জন কৃষক।

Advertisement

এ নিয়ে গত কাল মুম্বইয়ের কান্দিভিলি থানায় একটি অভিযোগও দায়ের করা হয়েছে। ওই অভিযোগে বলা হয়েছে, রাধে মা ও তাঁর দু’জন অনুগামী মিলে গুজরাতের এক কৃষক পরিবারের থেকে প্রায় দেড় কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। ওই পরিবারে সুখ-শান্তি ফেরানোর ‘প্রতিশ্রুতি’ দিয়েই নাকি তিনি ওই টাকা নিয়েছেন বলে অভিযোগ। পরিবারের দাবি, জমি বিক্রি করে রাধে মাকে টাকা দিয়েছিলেন। কিন্তু, এর কিছু দিন পরে বুঝতে পারেন, রাধে মা তাঁদের ঠকিয়েছেন। গত বছর ওই পরিবারের চার জন আত্মহত্যা করেন বলে জানা গিয়েছে।

এ নিয়ে ধর্মরক্ষক মহা মঞ্চ নামে একটি সংগঠনের প্রেসিডেন্ট রমেশ যোশী রাধে মা-র বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ করেন। সরল মানুষদের ঠকিয়ে রাধে মা টাকা আদায় করছেন বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। তিনি বলেন, “সংবাদমাধ্যমে রাধে মাকে নিয়ে খবর প্রকাশিত হওয়ার পর আমি গুজরাতের নিগার গ্রামের ওই কৃষক পরিবারের সঙ্গে দেখা করি। সেখান থেকেই জানতে পারি রাধে মা-র জন্য ওই পরিবারের চার জন আত্মহত্যা করেছেন।” গত সপ্তাহেই ওই ঘটনা সম্পর্কে যাবতীয় খবরাখবরও জোগাড় করেন রমেশ। এর পরই পুলিশের দ্বারস্থ হওয়া ঠিক করেন তিনি।

গত সপ্তাহ থেকে বিতর্কের মধ্যেই রয়েছেন রাধে মা। শুক্রবারও অবশ্য এ নিয়ে তিনি মুখ খোলার সুযোগও পেয়েছিলেন। তবে সাংবাদিকদের প্রশ্নবাণের তীক্ষ্ণতায় উত্তর দেওয়ার আগেই মূর্ছা যান তিনি। এ দিন অবশ্য নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেন তিনি। তাঁর কথায়, “আমি কাউকে কখনও আঘাত করিনি।” রাধে মা-র দাবি, ভক্তরা যদি তাঁর মধ্যে ঐশ্বরিক শক্তির সন্ধান পান তাতে তাঁর কী দোষ!

Advertisement

তবে এই দাবি করলেও বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না রাধে মা-র! তাঁকে নিয়ে গত এক সপ্তাহে ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগেরও অন্ত নেই। কখনও স্বল্পবাস পরে বিতর্কে জড়িয়েছেন, কখনও বা পণের দাবিতে বধূর প্রতি মানসিক ও শারীরিক নির্যাতনের নালিশ উঠেছে তাঁর বিরুদ্ধে। আবার কখনও অশ্লীল নাচ-সহ তরুণ ভক্তদের সঙ্গে জড়িয়ে তৈরি হয়েছে রসালো গল্প। গত সপ্তাহে স্বল্পবাস পরিহিতা রাধে মা-র ছবি ফেসবুকে শেয়ার করেছিলেন রাহুল মহাজন। এর পরই তা ‘ভাইরাল’ হয়ে যায়। এর মধ্যেই গত সপ্তাহে হঠাৎই নিখোঁজ হন রাধে মা। ছ’জন সহ-তাঁর বিরুদ্ধে পুলিশে পণের দাবিতে অত্যাচারের অভিযোগ দায়ের করেন ৩২ বছরের এক মহিলা। ওই মহিলার দাবি, পণের জন্য তাঁর উপর অত্যাচার করেছেন রাধে মা। এর পরই মুম্বই পুলিশ তাঁর খোঁজ শুরু করে। গুজব রটে, তিনি নাকি বিদেশে গা-ঢাকা দিয়েছেন। অবশেষে তাঁর খোঁজ মেলে মহারাষ্ট্রের ঔরঙ্গাবাদের একটি হোটেল থেকে। এর পরই তৎপর হয় পুলিশ। সূত্রের খবর, রাধে মাকে আগামী শুক্রবার জেরা করা হবে।

কে এই ধর্মগুরু?

ব্যক্তিজীবনে সানি লিওনের ভক্ত রাধে মা-র আসল নাম সুখবিন্দর কৌর। তিন সন্তানের মা বছর পঞ্চাশের এই লাস্যময়ী ধর্মগুরুর অবশ্য ভরা সংসার। তামাম ভক্তকুলের কাছে অবশ্য তিনি রাধে মা।

তবে যতই সমালোচনার তির তাঁকে বিদ্ধ করুক না কেন, রাধে মা-র সমর্থনে এখনও গলা ফাটাচ্ছেন তাঁর ভক্তেরা।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.