Advertisement
০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Abhinandan Varthaman

থাকছেন বাবা-মা, দুপুরেই ওয়াঘা সীমান্ত দিয়ে ফিরতে পারেন উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন

সূত্র মারফত্ আরও জানা যাচ্ছে যে, অভিনন্দনকে প্রথমে রাওয়ালপিণ্ডি থেকে লাহৌরে আনা হবে। সেখানে ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব রেড ক্রস (আইসিআরসি)-এর হাতে তুলে দেওয়া হবে বায়ুসেনার এই উইং কম্যান্ডারকে।

ওয়াঘা সীমান্ত দিয়ে ফিরতে পারেন অভিনন্দন। গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

ওয়াঘা সীমান্ত দিয়ে ফিরতে পারেন অভিনন্দন। গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ০১ মার্চ ২০১৯ ১০:২৯
Share: Save:

ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে আজ, শুক্রবার মুক্তি দিচ্ছে পাকিস্তান। সূত্রের খবর, এ দিন দুপুর ২টোর সময় অমৃতসরের ওয়াঘা-আতারি সীমান্তে আনা হবে অভিনন্দনকে। সেখানেই তাঁকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়া হবে।

Advertisement

সূত্র মারফত্ আরও জানা যাচ্ছে যে, অভিনন্দনকে প্রথমে রাওয়ালপিণ্ডি থেকে লাহৌরে আনা হবে। সেখানে ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব রেড ক্রস (আইসিআরসি)-এর হাতে তুলে দেওয়া হবে বায়ুসেনার এই উইং কম্যান্ডারকে। তার পরে তাঁকে নিয়ে আসা হবে ওয়াঘা-আতারি সীমান্তে। সেখান থেকে অভিনন্দনকে নিয়ে যাওয়া হবে দিল্লিতে।

ইতিমধ্যেই ছেলেকে নিতে অমৃতসরে পৌঁছে গিয়েছেন তাঁর বাবা এয়ার মার্শাল এস বর্তমান ও মা শোভা বর্তমান। পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংহও ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে টুইট করে জানিয়েছেন অমৃতসরের আতারি সীমান্তে অভিনন্দনকে গ্রহণ করতে তিনি নিজে উপস্থিত থাকবেন। টুইটে তিনি লেখেন, “অমৃতসরে আছি। জানতে পেরেছি যে, পাক সরকার অভিনন্দনকে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ওয়াঘা সীমান্তে তাঁকে আনা হবে। সীমান্ত থেকে তাঁকে গ্রহণ করা আমার কাছে একটা বড় সম্মানের বিষয়।”

আরও পড়ুন: বাতিল হচ্ছে মিগ ২১, আকাশ যুদ্ধকে অন্য মাত্রা দিতে আসছে তেজস

Advertisement

এ দিন সেনার শীর্ষ নেতৃত্ব অন্যান্য আধিকারিকদের পাশাপাশি বহু মানুষ হাজির হয়েছেন ওয়াঘা সীমান্তে। কড়া নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয়েছে গোটা সীমান্ত। কখন অভিনন্দন আসবেন সেই অপেক্ষায় ঠায় দাঁড়িয়ে রয়েছেন কয়েকশো মানুষ।

পাক সেনার হাতে উইং কম্যান্ডার অভিনন্দনের ধরা পড়ার খবর প্রকাশ্যে আসার পরই তাঁর মুক্তির জন্য দেশ জুড়ে প্রার্থনা শুরু হয়। কন্দহরের মতোই পাকিস্তান এ ক্ষেত্রেও শর্ত রাখার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু ভারত আগেই বলেছিল কোনও শর্তেই তারা রাজি নয়। সেই সঙ্গে পাকিস্তানকে মনে করিয়ে দিয়েছিল, জেনেভা কনভেনশনের কথা। পাকিস্তান যখন বুঝল, কোনও ভাবেই যখন ভারতকে টলানো সম্ভব নয়, পাক প্রধানমন্ত্রী তার পরই ঘোষণা করে দিলেন, শান্তির বার্তা দিতেই মুক্তি দেওয়া হবে অভিনন্দনকে।

ইমরান ওই দিন তাঁর বক্তব্যে ‘পিস জেসচার’ এই দুটো শব্দ ব্যবহার করেছিলেন। পাকিস্তান যতই এটাকে ‘পিস জেসচার’ বলুন না কেন, বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জেনেভা কনভেনশন এবং আন্তর্জাতিক মহলের চাপে পড়েই কিন্তু অভিনন্দনকে মুক্তি দিতে বাধ্য হচ্ছে পাকিস্তান। সেই সঙ্গে বিশ্ব দরবারে নিজেদের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার একটা নাটক করছেন ইমরান!

সার্জিকাল স্ট্রাইক নিয়ে এই বিষয়গুলি জানেন?

আরও পড়ুন: জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংসের প্রমাণ আছে, সময়মতো প্রকাশ্যে আনা হবে, জানাল ভারতীয় সেনা

আরও পড়ুন: ‘বুড়ো’ মিগেই পাকিস্তানের এফ-১৬ ধ্বংস করেছেন অভিনন্দন!

ভারতীয় বাসুসেনা সূত্রে খবর, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি সকালে নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে প্রায় সাত কিলোমিটার ভারতের আকাশসীমায় ঢুকে পড়েছিল পাক ফাইটারগুলি। তাদের রুখতে আকাশে ওড়ে ভারতের দু’টি বাইসন জেট। তারই একটির ককপিটে ছিলেন অভিনন্দন। সূত্রের খবর, নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর, পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টায় থাকা পাক ফাইটারকে টার্গেট ‘লক ইন’ করে অভিনন্দনের বাইসন জেট। সেকেন্ডের মধ্যে মিগ-২১ থেকে আর-৭৩ এয়ার টু এয়ার মিসাইল আঘাত করে পাক ফাইটারকে। কিন্তু তার কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই অভিনন্দনের মিগে আঘাত করে পাক জেটের গুলি। বিমান নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে রেডিও বার্তা দিয়েই ‘ইজেক্ট’ করে বিমানের বাইরে চলে আসেন তিনি। কিন্তু হাওয়ার গতি উল্টো দিকে থাকায় অভিনন্দনকে নিয়ে প্যারাশুট ভেসে যায় পাক অধিকৃত কাশ্মীরের দিকে। তার পরই পাক সেনারা তাঁকে আটক করেন।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.