Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৫ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

বারাণসীতে মোদীর বিরুদ্ধে লড়তে প্রস্তুত ১১১ কৃষক

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ২৩ মার্চ ২০১৯ ২১:২৪
নরেন্দ্র মোদী।—নিজস্ব চিত্র।

নরেন্দ্র মোদী।—নিজস্ব চিত্র।

বারাণসীতে মোদীকে টক্কর দিতে প্রস্তুত ১১১ জন কৃষক। তাঁরা প্রত্যেকেই তামিলনাড়ুর বাসিন্দা। দীর্ঘদিন ধরে নানা দাবিদাওয়া নিয়ে লড়ছেন। কেন্দ্রীয় সরকার তাতে আমল না দেওয়ায়, তাই এ বার প্রধানমন্ত্রীর গড়ে গিয়ে তাঁরই বিরুদ্ধে লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাঁরা। খুব শীঘ্রই তাঁরা মনোনয়নপত্র জমা দেবেন।

এর আগে, ২০১৭ সালে কৃষিঋণ মকুব, ফসলের ন্যায্য দাম-সহ নানা দাবিদাওয়া নিয়ে দিল্লির যন্তরমন্তরে টানা ১০০ দিন ধরে প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন তামিলনাড়ুর একদল কৃষক। সেই আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন কৃষক নেতা পি আয়াকান্নু। গতবছর নভেম্বরে দু’টি মাথার খুলি নিয়ে দিল্লিতে কৃষক আন্দোলনে যোগ দিতে যান তিনি। খুলি দু’টি তাঁর সহকর্মী দুই আত্মঘাতী কৃষকের বলে দাবি করেন। এই মুহূর্তে ন্যাশনাল সাউথ ইন্ডিয়ান রিভার্স ইন্টার-লিঙ্কিং ফার্মার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতিআয়াকান্নু। আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী মোদীর বিরুদ্ধে কৃষকদের প্রতিদ্বন্দ্বিতার কথা নিশ্চিত করেছেন তিনি।

শনিবার সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে পি আয়াকান্নু বলেন, ‘‘এতদিন দাবি জানিয়েও লাভ হয়নি। তাই আমরা চাই বিজেপি তাদের নির্বাচনে ইস্তাহারে আমাদের দাবিদাওয়া মেনে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিক। যার মধ্যে ফসলের ন্যায্য দামও রাখতে হবে। তাহলেই সরে আসব আমরা। মোদীর বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকেও সরে আসব।’’কিন্তু নির্বাচনী ইস্তাহারে বিজেপি তাঁদের দাবিদাওয়া মেটানোর প্রতিশ্রুতি না দিলে, প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে কৃষকদের ভোটে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে এবং অল ইন্ডিয়া কিসান সংঘর্ষ কোঅর্ডিনেশন কমিটির তাতে পূর্ণ সমর্থন রয়েছে বলে জানান পি আয়াকান্নু।

Advertisement

আরও পড়ুন: রাজ্য জুড়ে বড় প্রচারের পরিকল্পনা বিজেপির, ৩ এপ্রিল ব্রিগেডে মোদীর সভা?​

আরও পড়ুন: কংগ্রেসের সঙ্গে সমঝোতা হল না কেন? বিমান বললেন, টাকার খেলা, পাল্টা জবাব সোমেনের

২০১৮-য় পাঁচ রাজ্যে জয়লাভের পর প্রতিশ্রুতি মতো রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ ও ছত্তীসগঢ়ে কৃষিঋণ মকুব করে দেয় কংগ্রেস। আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে তাদের কাছে এরকম কোনও দাবিদাওয়া জানিয়েছেন কিনা জানতে চাইলে আয়াকান্নু বলেন, ‘‘এই মুহূর্তে দেশে ক্ষমতায় রয়েছে বিজেপি। প্রধানমন্ত্রী পদে রয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। তাই দাবিদাওয়া নিয়ে অন্য কোথাও যাওয়ার প্রশ্ন ওঠে না। প্রধানমন্ত্রীর বিরোধিতা করার উদ্দেশ্য নয় আমাদের। কিন্তু ক্ষমতায় এলে দাবি পূরণ করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন উনি। দ্বিগুণ রোজগারের আশ্বাস দিয়েছিলেন। কিন্তু আজও তা পূরণ হয়নি।’’

আয়াকান্নু জানান, তিরুঅন্নামালাই, তিরুচিরাপল্লি-সহ বিভিন্ন জেলা থেকে প্রায় ৩০০ কৃষক বারাণসী রওনা দিতে প্রস্তুত। তাঁদের সকলের ট্রেনের টিকিটও কাটা হয়ে গিয়েছে। এখন বিজেপির উপরই সবকিছু নির্ভর করছে।

(কী বললেন প্রধানমন্ত্রী, কী বলছে সংসদ- দেশের রাজধানীর খবর, রাজনীতির খবর জানতে আমাদের দেশ বিভাগে ক্লিক করুন।)

আরও পড়ুন

Advertisement