Advertisement
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
maharashtra

Maharashtra Crisis: ডেপুটি স্পিকার নিজেই নিজের বিচারক? মহারাষ্ট্র মামলায় প্রশ্ন সুপ্রিম কোর্টের

শিন্ডে-সহ বিধায়কের বিরুদ্ধে ১১ জুলাই পর্যন্ত দলত্যাগ বিরোধী আইনে ব্যবস্থা নেওয়া যাবে না বলে ডেপুটি স্পিকারকে জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ২৭ জুন ২০২২ ১৭:২৫
Share: Save:

উদ্ধব ঠাকরের দাবি মেনে, একনাথ শিন্ডে-সহ ১৬ জন বিদ্রোহী শিবসেনা বিধায়ককে নোটিস পাঠিয়ে মঙ্গলবার বিকেলের মধ্যে দলবিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগ সম্পর্কে আত্মপক্ষ সাফাইয়ের নির্দেশ দিয়েছিলেন মহারাষ্ট্র বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার (ভারপ্রাপ্ত স্পিকার) নরহরি সীতারাম জিরওয়াল। কিন্তু সোমবার সুপ্রিম কোর্টে জিরেওয়ালের সেই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে শিন্ডেদের আইনজীবী এনকে কল বলেন, ‘‘ডেপুটি স্পিকারের বিরুদ্ধে একটি অনাস্থা প্রস্তাব ইতিমধ্যেই বিধানসভায় জমা পড়েছে। এই পরিস্থিতিতে তিনি কী ভাবে দলত্যাগবিরোধী আইনে ১৬ জন বিধায়কের পদ খারিজের দাবির আবেদনের শুনানি করতে পারেন?’’

কলের বক্তব্যের জবাবে জিরেওয়ালের আইনজীবী রাজীব ধওয়ন বলেন, ‘‘ভারপ্রাপ্ত স্পিকার সেই অনাস্থা প্রস্তাব খারিজ করে দিয়েছেন।’’ তাঁর ওই যুক্তি শুনে বিচারপতি সূর্যকান্ত বলেন, ‘‘ডেপুটি স্পিকার কি নিজেই তাঁর বিরুদ্ধে আনা অপসারণের প্রস্তাবের বিচারক হতে পারেন?’’ শিন্ডেদের মঙ্গলবারের মধ্যে দলবিরোধী কার্যকলাপে জড়িত থাকার অভিযোগের ব্যাখ্যা চেয়ে ডেপুটি স্পিকার যে নোটিস পাঠিয়েছিলেন, মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট তার সময়সীমা আগামী ১২ জুলাই পর্যন্ত বাড়িয়ে দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, ফেব্রুয়ারি মাসে নানা পাটোলে স্পিকার পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি হওয়ার পর থেকে অস্থায়ী ভাবে মহারাষ্ট্র বিধানসভার স্পিকারের দায়িত্ব সামলাচ্ছেন এনসিপি বিধায়ক জিরওয়াল। তাঁর বিরুদ্ধ পক্ষপাতদুষ্টতার অভিযোগ তুলেছে শিন্ডে শিবির। এই পরিস্থিতিতে শিন্ডে-সহ ১৬ জন শিবসেনা বিধায়কের বিরুদ্ধে কেন দলবিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগে নোটিস পাঠানো হয়েছিল, সে বিষয়ে ডেপুটি স্পিকার (ভারপ্রাপ্ত স্পিকার) জিরওয়ালের জবাবও চেয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

বিদ্রোহীর বিধায়কদের জবাবদিহির জন্য বাড়তি সময় দেওয়ার পাশাপাশি, বিচারপতি সূর্যকান্ত এবং বিচারপতি জে বি পাড়িয়ালার ডিভিশন বেঞ্চ মঙ্গলবার বিদ্রোহী বিধায়কদের প্রয়োজনীয় নিরাপত্তার ব্যবস্থা করার নির্দেশ দিয়েছে মহারাষ্ট্র সরকারকে। আগামী ১১ জুলাই এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.