Advertisement
০৭ ডিসেম্বর ২০২২

ভাগবতের তোপে বাংলা-কেরল

নাগপুরে বিজয়া দশমীর বার্ষিক বক্তৃতায় ভাগবতের অভিযোগ, গোটা দেশে, বিশেষ করে সীমান্তবর্তী রাজ্যগুলিতে জেহাদি শক্তিগুলি অস্থিরতা তৈরির চেষ্টা করছে।

নাগপুরে সদর দফতরে সঙ্ঘ প্রধান মোহন ভাগবত। ছবি: পিটিআই।

নাগপুরে সদর দফতরে সঙ্ঘ প্রধান মোহন ভাগবত। ছবি: পিটিআই।

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি ও কলকাতা শেষ আপডেট: ০১ অক্টোবর ২০১৭ ০০:৩৬
Share: Save:

পশ্চিমবঙ্গে জেহাদি শক্তি সক্রিয়। এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার রাজনৈতিক স্বার্থে সেই ‘জেহাদি শক্তি’-কে মদত দিচ্ছে বলে অভিযোগ তুললেন সরসঙ্ঘচালক মোহন ভাগবত।

Advertisement

নাগপুরে বিজয়া দশমীর বার্ষিক বক্তৃতায় ভাগবতের অভিযোগ, গোটা দেশে, বিশেষ করে সীমান্তবর্তী রাজ্যগুলিতে জেহাদি শক্তিগুলি অস্থিরতা তৈরির চেষ্টা করছে। এর পরেই পশ্চিমবঙ্গ ও কেরল সরকারকে একসঙ্গে আক্রমণ করে তিনি বলেন, ‘‘কেরল ও পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতি সকলেই জানেন। ওখানে জেহাদি শক্তি সক্রিয়। রাজ্য সরকার শুধু উদাসীন নয়, ক্ষুদ্র রাজনৈতিক স্বার্থে তাদের মদত দিচ্ছে।’’

একসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ ও কেরলকে আক্রমণ করে ভাগবত আজ তৃণমূল ও সিপিএম-কে এক মেরুতে দাঁড় করিয়েছেন। দু’টি রাজ্যেই কেন্দ্রের মোদী সরকারের হস্তক্ষেপের পক্ষে সওয়াল করে ভাগবত যুক্তি দিয়েছেন, কেন্দ্রের কাছে সব খবরই পৌঁছয়। তারা নিশ্চয়ই উচিত পদক্ষেপ করছে।

আরও পড়ুন: মেলার জন্য পিছোন হল মহরমের লাঠিখেলা

Advertisement

কয়েক মাস আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও আপলোড করে রাজ্য বিজেপি-র তরফে অভিযোগ করা হয়েছিল, পশ্চিমবঙ্গ একটি ‘জেহাদি রাজ্য’। খাগড়াগ়়ড় থেকে ধূলাগ়়ড়, নানা ঘটনার উল্লেখ করে সেখানে বলা হয়েছিল, মমতার সরকার জেহাদি শক্তিকে প্রশ্রয় দিচ্ছে। প্রায় সেই অভিযোগেরই এ দিন পুনরাবৃত্তি করেছেন আরএসএস প্রধান। যার জবাবে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে তণমূল ও সিপিএম, দু’দলই। মমতার সরকারের এক মন্ত্রীর কথায়, ‘‘রাজ্যে উত্তেজনা ও অশান্তি সৃষ্টি করার জন্য সব রকম চেষ্টা বিজেপি এবং আরএসএস করছে। কিন্তু বাংলায় এ সব করে কোনও লাভ হবে না। মানুষ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে আছেন।’’ এস আর বোম্মাই মামলার রায় ও সংবিধানের সংস্থান মাথায় রেখে রাজ্য সরকারের কাজে কেন্দ্রের হস্তক্ষেপ এখন সহজ নয় বলেও মনে করিয়ে দিয়েছেন এক তৃণমূল সাংসদ।

সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি বলেছেন, ‘‘ভাগবত তাঁদের বিভাজনের আদর্শ প্রচার করেছেন। আমাদের প্রশ্ন, এ সব বিভাজন ও বিদ্বেষমূলক বক্তব্য দূরদর্শনে সম্প্রচারের আগে বক্তৃতার বয়ান কেউ খতিয়ে দেখেছিল?’’ কেরল সিপিএমের এক নেতার আরও বক্তব্য, ‘‘আরএসএস বলছে, বাম সরকার জেহাদিদের হয়ে কাজ করছে। এখানে পিডিপি-র মতো দল বলছে, কেরল সরকারের রং গেরুয়া হয়ে গিয়েছে। তার মানে বোঝা যাচ্ছে, আমরা ঠিক পথেই আছি! বিভাজনকামী শক্তি আমাদের কাজে সন্তুষ্ট নয়।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.