×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

৩০ জুলাই ২০২১ ই-পেপার

এনআরসি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়, বললেন বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনীর প্রধান

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ২৯ ডিসেম্বর ২০১৯ ১৬:৩৮
বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ ও ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)-এর মধ্যে সৌহার্দ্য বিনিময়। —ফাইল চিত্র

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ ও ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)-এর মধ্যে সৌহার্দ্য বিনিময়। —ফাইল চিত্র

জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) ঘিরে ভারত-বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে অবনতির আশঙ্কা করা হচ্ছিল নানা মহল থেকে। কিন্তু বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সর্বোচ্চ কর্তা নয়াদিল্লি এসে বললেন, এনআরসি ‘ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়’। তবে ভারতে অনুপ্রবেশ রুখতে তারা সতর্ক নজর রাখবেন বলেও জানিয়েছেন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-র ডিরেক্টর মেজর জেনারেল শাফিনুল ইসলাম।

সীমান্ত সম্পর্কিত ডিজি পর্যায়ে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে যোগ দিতে শাফিনুল ইসলামের নেতৃত্বে দিল্লি সফরে এসেছে বিজিবির একটি প্রতিনিধি দল। সেখানেই এনআরসি নিয়ে বাংলাদেশ সরকার তথা বিজিবির প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হয়। শাফিনুল ইসলাম বলেন, ‘‘এটা (এনআরসি) সম্পূর্ণ ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়।’’ একই সঙ্গে তিনি বলেন, ভারত সরকার এবং দু’দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মধ্যে সমন্বয় অত্যন্ত ভাল। তবে ভারতে অনুপ্রবেশ আটকাতে আরও সতর্ক নজরদারি চালানো হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

নাগরিকত্ব সংশোধন আইন (সিএএ) ও এনআরসি-র বিরুদ্ধে কার্যত সারা দেশে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ হয়েছে। সেই চাপে এনআরসি নিয়ে আপাতত সুর কিছুটা নরম বিজেপি মোদী সরকারের। কিন্তু এনআরসি হলে প্রতিবেশী দেশগুলির মধ্যে কার্যত সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়ার আশঙ্কা বাংলাদেশের উপরেই। এই নিয়ে সে দেশের দুই প্রধান রাজনৈতিক দল আওয়ামি লিগ এবং বিরোধী বিএনপির মধ্যে শুরু হয়েছে চাপানউতর। এনআরসি হলে নয়াদিল্লি-ঢাকা সম্পর্কের অবনতির আশঙ্কা করছিলেন অনেকেই। যদিও সেই সব বিতর্কে জড়াতে চাননি বিজিবি প্রধান।

Advertisement
Advertisement