Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

‘গোমাতা’র দুর্দশা নিয়ে যোগীকে চিঠি প্রিয়ঙ্কার

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি ২২ ডিসেম্বর ২০২০ ০৪:৫০
প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরা।

প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরা।

শশী তারুরের মতো কংগ্রেস নেতাদের মত, নরম হিন্দুত্ব করে হিন্দি বলয়ে বিজেপির মোকাবিলা করা
যাবে না। ধর্মনিরপেক্ষতা ছেড়ে বিজেপির হিন্দুত্বের মাঠে গিয়ে খেলতে নামলে কংগ্রেসকে খালি হাতেই ফিরতে হবে।

তারুর যা-ই বলুন, প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরা আজ বুঝিয়ে দিলেন, ২০২২-এ উত্তরপ্রদেশে যোগী আদিত্যনাথের মোকাবিলায় নরম হিন্দুত্বই তাঁর অন্যতম হাতিয়ার হবে। উত্তরপ্রদেশের ললিতপুর জেলায় অসংখ্য মৃত গরুর ছবি দু’দিন আগে প্রকাশ্যে এসেছিল আজ তা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী যোগীকে চিঠি লিখে প্রিয়ঙ্কা জানিয়েছেন, ‘গোমাতা’-র শবের ছবি দেখে তাঁর
মন ‘বিচলিত’। যোগী বেওয়ারিশ গরুদের জন্য ‘গোবংশ আশ্রয় স্থল’ খুলেছেন। কিন্তু গরুরা সেখানে খাবার না পেয়ে অনাহারে মারা যাচ্ছে। এআইসিসি-তে উত্তরপ্রদেশের ভারপ্রাপ্ত প্রিয়ঙ্কা চিঠিতে লিখেছেন, গাঁধীজি গরুকে ‘করুণার কাব্য’ বলতেন। গরু কোটি কোটি ভারতীয়ের মা। কিন্তু যোগীর গোশালায় গরুর মঙ্গলের বদলে দুর্দশা হচ্ছে। গোরক্ষক বাহিনীর ভয়ে উত্তরপ্রদেশের চাষি ও গোয়ালারা অকাজের গরু কসাইয়ের কাছে না বেচে রাস্তায় ছেড়ে দিতে শুরু করেছিলেন। বেওয়ারিশ গরু ফসল নষ্ট করতে শুরু করায় তা ফের চাষিদের শিরঃপীড়া হয়ে উঠেছে। যোগী প্রতিটি পঞ্চায়েত ও পুরসভা এলাকায় গোশালা
খোলার সিদ্ধান্ত নিলেও, অর্থের জোগান নেই। পঞ্চায়েত প্রধানরা জানিয়ে দিয়েছেন, টাকা না পেলে গোশালা থেকে গরু ছেড়ে দেওয়া হবে। প্রিয়ঙ্কা এই সমস্যাকে হাতিয়ার করেই ‘গোমাতা’ নিয়ে উত্তরপ্রদেশবাসীর আবেগ উস্কে দিতে চাইছেন বলে কংগ্রেস নেতাদের ব্যাখ্যা।

লোকসভা ভোটের আগে রাহুল-প্রিয়ঙ্কা মন্দিরে মন্দিরে ঘোরা শুরু করেছিলেন। সে সময়ই ‘নরম হিন্দুত্ব’-র অভিযোগ উঠেছিল।

Advertisement

গরুর সমস্যা নিয়ে প্রিয়ঙ্কার সরব হওয়াকে অবশ্য কংগ্রেস নেতারা নরম হিন্দুত্ব বলে মানতে রাজি নন। তাঁদের বক্তব্য, এটা সামাজিক সমস্যা। কংগ্রেস সূত্রের ব্যাখ্যা, আগামী বছরের বিধানসভা ভোটে কংগ্রেসের ইস্তেহারেও ‘গোমাতা’-র সমস্যার সমাধান যথেষ্ট গুরুত্ব পাবে। ছত্তীসগঢ়ে ভূপেশ বঘেলের কংগ্রেস সরকার গরুদের সারাদিন দেখাশোনার জন্য ‘গোঠান’ খুলেছে। ‘গোধন ন্যায় যোজনা’-য় বঘেল সরকার প্রতি মাসে ১৫ কোটি টাকার গোবর কিনছে। উত্তরপ্রদেশের ভোটে কংগ্রেসের ইস্তেহারেও তেমনই প্রতিশ্রুতি থাকবে। সেই ইঙ্গিত দিয়ে প্রিয়ঙ্কা এ দিন যোগীকে লেখা চিঠিতে ছত্তীসগঢ়ের মডেলের কথা উল্লেখ করেছেন।

আরও পড়ুন

Advertisement