×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৪ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

রাজস্থানে অধিবেশনের সম্মতি দিলেন রাজ্যপাল, তবে শর্ত রেখেই

সংবাদ সংস্থা
জয়পুর ২৭ জুলাই ২০২০ ১৭:৫৩
রাজস্থানের রাজ্যপাল কলরাজ মিশ্র এবং মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌত। ফাইল চিত্র। পিটিআই।

রাজস্থানের রাজ্যপাল কলরাজ মিশ্র এবং মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌত। ফাইল চিত্র। পিটিআই।

গত কয়েক দিন ধরে নানা টানাপড়েনের পর কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরল গহলৌত শিবিরে। শেষমেশ অধিবেশন শুরুর সম্মতি দিলেন রাজ্যপাল কলরাজ মিশ্র। সেই সঙ্গে গহলৌত শিবিরের সামনে কয়েকটি শর্ত রেখেছেন তিনি।

রাজভবনের তরফে এক বিবৃতি জারি করে বলা হয়, “অধিবেশন আটকে রাখার কোনও ইচ্ছাই নেই রাজ্যপালের। তবে এই অতিমারিতে স্বল্প সময়ের নোটিসে বিধায়কদের ডাকা খুবই সমস্যার।” বিধায়কদের ২১ দিনের নোটিসের বিষয়টি কি বিবেচনা করে দেখবেন তারা?— রাজভবনের তরফে এমন প্রস্তাবও দেওয়া হয়। তৃতীয় যে প্রশ্নটি গহলৌতদের সামনে রেখেছেন রাজ্যপাল তা হল, অধিবেশনের সময় কী ভাবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হবে।

অধিবেশনর শুরু দাবি জানিয়ে সোমবার সকালে রাজ্যপালের কাছে ফের এক দফা প্রস্তাব পাঠিয়েছিলেন গহলৌত। কিন্তু আরও ব্যাখ্যা চেয়ে তা ফেরত পাঠিয়ে দেন রাজ্যপাল। এর পরই রাজ্যপালের উদ্দেশে কটাক্ষ ছুড়ে গহলৌতের মন্তব্য, “রাজ্যপাল আমাদের ছয় পাতার প্রেমপত্র পাঠিয়েছেন।” একটি সংবাদমাধ্যমের রিপোর্টকে উদ্ধৃত করে রাজ্যপালের এই প্রস্তাবের সমালোচনা করে তিনি বলেন, “৭০ বছরে এ রকম ঘটনা কখনও ঘটেনি।” তাঁর কথায়, “কোনও নির্বাচিত সরকার যখন অধিবেশন ডাকে, প্রত্যেক রাজ্যপাল তাতে সম্মতি দিতে বাধ্য।”

Advertisement

আরও পড়ুন: কোভিডের বাহক হয়ে সংক্রমিত কর ভারতকে, আইএসের নির্দেশ সমর্থকদের

রাজ্যপাল এ দিন তাঁর প্রস্তাব ফেরত পাঠানোর পরই অধিবেশন শুরুর বিষয়টি নিয়ে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দকে চিঠি দেন গহলৌত। রাজ্যপালের ‘আচরণ’ নিয়ে প্রশ্ন তুলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গেও কথা বলেন তিনি। সাংবাদিকদের গহলৌত বলেন, “রাষ্ট্রপতিকে বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছি। অধিবেশন শুরু করার বিষয়টিও সুনিশ্চিত করার জন্য আর্জি জানিয়েছি তাঁকে।”

Advertisement