×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১১ মে ২০২১ ই-পেপার

নগ্নতার লোভে তথ্য পাচার পাকিস্তানকে, কবুল সত্যনারায়ণের

সংবাদ সংস্থা
জয়পুর ১১ জানুয়ারি ২০২১ ১৭:০৪
গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

নগ্ন মহিলা, যৌনতায় ভরপুর কথোপকথনই কাল হল রাজস্থানের এক ব্যক্তির। ভারতের সেনা সম্পর্কিত তথ্য হাতিয়ে নেওয়ার জন্য পাকিস্তানের গুপ্তচর আইএসআই জাল বিছিয়েছিল এ ভাবেই। সেই ‘হানিট্র্যাপ’-এ পা দিয়েই গ্রেফতার হলেন সত্যনারায়ণ পালিওয়াল নামে জলসলমেরের ওই ব্যক্তি। সত্যনারায়ণ লাঠি থানা এলাকার এক প্রাক্তন গ্রামপ্রধানের স্বামী।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে গত সপ্তাহেই সত্যনারায়ণকে গ্রেফতার করে রাজস্থান পুলিশ। তাঁর বিরুদ্ধে চরবৃত্তির অভিযোগ উঠেছে। কী ভাবে হানিট্র্যাপে পড়লেন তিনি, জেরায় সত্যনারায়ণ তা স্বীকার করেছেন বলে দাবি পুলিশের।

জেরায় সত্যনারায়ণ জানিয়েছেন, এক মহিলার সঙ্গে পরিচয় হয় তাঁর। অনলাইনে প্রায়ই কথা হত তাঁদের মধ্যে। শুধু কথা বলাই নয়, তাঁর নগ্ন ছবিও পাঠাতেন ওই মহিলা। যৌনতা নিয়ে নানা রকম কথোপকথন হত। সত্যনারায়ণের দাবি, সেই ছবি এবং কথোপকথনের লোভে পড়েই পোখরান ফায়ারিং রেঞ্জ এবং সেখানকার সেনাদের সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য তিনি শেয়ার করতেন ওই মহিলার কাছে। যত বেশি নগ্ন ছবি, তত বেশি তথ্য আদানপ্রদান— এ রকমই নাকি কথা হয়েছিল তাঁদের মধ্যে।

Advertisement

পুলিশ জানিয়েছে, ক্রমে এই জালে জড়িয়ে পড়ে সত্যনারায়ণ প্রচুর তথ্য শেয়ার করেছেন বলে মনে করা হচ্ছে। ভুয়ো সোশ্যাল অ্যাকাউন্ট বানিয়ে এ রকম বেশ কিছু মহিলার সঙ্গে যোগাযোগ চলত তাঁর। সূত্রের খবর, সেনাবাহিনীর এই সব গোপন তথ্য সত্যনারায়ণ সংগ্রহ করতেন তাঁর স্ত্রী গ্রামপ্রধান থাকার সুবাদেই।

গোয়েন্দারা তদন্ত করে জানতে পেরেছেন, দীর্ঘ দিন ধরেই এই কাজে সক্রিয় ছিলেন সত্যনারায়ণ। আইএসআই-এর সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে যোগাযোগ রাখতেন তিনি। আর আইএসআই তাঁকে মহিলাদের প্রলোভন দেখিয়ে তথ্য হাতিয়ে নিয়েছে। কয়েক দিন ধরেই সত্যনারায়নণের কাজকর্মের উপর নদর রাখছিলেন গোয়েন্দারা। তার পরই তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। তাঁর মোবাইল থেকে সেনার বহু গুরুত্বপূর্ণ নথি উদ্ধার হয়েছে বলে জানিয়েছেন গোয়েন্দারা।



তাঁকে গ্রেফতার করে জয়পুরে নিয়ে আসা হয়েছে। কী কী তথ্য পাচার করেছেন এবং কাদের সঙ্গে কথা বলতেন সত্যনারায়ণ তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে রাজস্থান পুলিশ।
Advertisement