Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

অসমে আয়ুর্বেদিক কেন্দ্র রামদেবের

তাঁর যোগ সাধনার যাত্রা শুরু কামাখ্যার উমাচল আশ্রম থেকে। প্রায় ২৫ বছর পর ফের সেই রাজ্যে ফিরে সাধনার ঋণ কিছুটা শোধ করতে চান বাবা রামদেব।

নিজস্ব সংবাদদাতা
গুয়াহাটি ০৭ নভেম্বর ২০১৬ ০২:৫৮
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

তাঁর যোগ সাধনার যাত্রা শুরু কামাখ্যার উমাচল আশ্রম থেকে। প্রায় ২৫ বছর পর ফের সেই রাজ্যে ফিরে সাধনার ঋণ কিছুটা শোধ করতে চান বাবা রামদেব। তিনি চান— আয়ুর্বেদ সামগ্রী উৎপাদনের বৃহত্তম কেন্দ্র অসমে গড়ে তোলা, হাজার হাজার তরুণ-তরুণীর চাকরির ব্যবস্থা এবং রাজ্যে লক্ষাধিক কৃষকের কল্যাণ। তাঁর সংস্থার শিলান্যাসে আজ শোণিতপুরের ঘোড়ামারায় হাজির ছিলেন রাজ্যের গোটা মন্ত্রিসভা।

শিলান্যাস করেন মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল, বাবুল সুপ্রিয়। হাজির ছিলেন দিল্লি-অরুণাচলের মন্ত্রী-সাংসদ, দেশ-বিদেশের অতিথিরা। মহাযজ্ঞের আগে-পরে রামদেব মঞ্চ মাতালেন যোগ প্রদর্শনে। এ দিন শিলান্যাস হওয়া ফুড পার্কের জন্য সরকার থেকে লিজ নেওয়া হয়েছে ৪৫০ বিঘা মাটি। খরচ আনুমানিক ১ হাজার ২০০ কোটি টাকা। রামদেবের ঘোষণা, এই হার্বাল ও ফুড পার্ক থেকে বছরে ১০ লক্ষ মেট্রিক টন আয়ুর্বেদিক সামগ্রী তৈরি হবে। আগামী বছর মার্চের মধ্যেই তৈরি হয়ে যাবে পার্ক। ইতিমধ্যে চিরাংয়ের রৌমারিতে ১ হাজার ২০০ বিঘা জমিতে তাঁর ‘রিচার্জ সেন্টার’ তৈরি হচ্ছে, যেখানে স্থানীয় বর্ণশঙ্কর গরুর দুধ থেকে বিভিন্ন সামগ্রী তৈরি ও গোমুত্র সংগ্রহে সুবৃহৎ প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। রাজ্যের এরি, মুগা রেশম, বেত শিল্প ও গ্রিন টি উৎপাদন ও বিপণনেও আগ্রহ প্রকাশ করেন রামদেব। তাঁর আশা, আগামী পাঁচ বছরে এখানকার উৎপাদন ক্ষমতা এক লক্ষ কোটি মেট্রিক টনে পৌঁছবে। সরাসরি উপকৃত হবেন লক্ষাধিক কৃষক। বোকাখাতে কৃষি উন্নয়নকেন্দ্র গড়ার কথাও ঘোষণা করেন রামদেব।

Advertisement


Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement