Advertisement
০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

কল্যাণী-সহ চার এইমসের জন্য বরাদ্দ ৫০০ কোটি

কল্যাণীতে এইমস তৈরির ব্যাপারে সবুজ সঙ্কেত মিলেছিল আগেই। এ বার প্রথম বাজেটেই তার জন্য টাকা বরাদ্দ করল মোদী সরকার। দেশে চারটি নতুন এইমস গড়ার জন্য ৫০০ কোটি টাকা বরাদ্দ ঘোষণা করা হয়েছে বাজেটে। ওই চার রাজ্যের তালিকায় রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের নাম। তবে কোনও রাজ্যই যাতে চিকিৎসা সংক্রান্ত পরিষেবার ক্ষেত্রে নিজেদের বঞ্চিত মনে না করে, সে জন্য আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে দেশের সমস্ত রাজ্যেই এইমস-এর ধাঁচে প্রতিষ্ঠান গড়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১১ জুলাই ২০১৪ ০৩:২৯
Share: Save:

কল্যাণীতে এইমস তৈরির ব্যাপারে সবুজ সঙ্কেত মিলেছিল আগেই। এ বার প্রথম বাজেটেই তার জন্য টাকা বরাদ্দ করল মোদী সরকার। দেশে চারটি নতুন এইমস গড়ার জন্য ৫০০ কোটি টাকা বরাদ্দ ঘোষণা করা হয়েছে বাজেটে। ওই চার রাজ্যের তালিকায় রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের নাম। তবে কোনও রাজ্যই যাতে চিকিৎসা সংক্রান্ত পরিষেবার ক্ষেত্রে নিজেদের বঞ্চিত মনে না করে, সে জন্য আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে দেশের সমস্ত রাজ্যেই এইমস-এর ধাঁচে প্রতিষ্ঠান গড়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।

Advertisement

প্রথম তালিকাতেই পশ্চিমবঙ্গের নাম থাকায় স্বভাবতই খুশি এ রাজ্যের স্বাস্থ্যকর্তারা। রাজ্যের স্বাস্থ্য-শিক্ষা অধিকর্তা সুশান্ত বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “আর্থিক বরাদ্দের কথা ঘোষণা হওয়ায় বিষয়টিতে জাতীয় সিলমোহর পড়ল। কেন্দ্রের সঙ্গে নিয়মিত আমাদের চিঠিচাপাটি চলছে। এইমস মানে শুধু পরিষেবার তালিকায় একটা পালক যোগ হওয়া নয়। এর অর্থ আধুনিক চিকিৎসা ও গবেষণার কাজে কয়েক ধাপ এগিয়ে যাওয়া।”

যে চারটি জায়গায় এইমস-এর জন্য এ বারের বাজেটে টাকা বরাদ্দ হয়েছে, সেগুলি হল পশ্চিমবঙ্গ, অন্ধ্রপ্রদেশ, বিদর্ভ (মহারাষ্ট্র) ও পূর্বাঞ্চল (উত্তরপ্রদেশ)। ইতিমধ্যেই অন্য ছ’টি রাজ্যে এইমস তৈরি করার কাজ শুরুও হয়ে গিয়েছে। এই জায়গাগুলি হল যোধপুর (রাজস্থান), ভোপাল (মধ্যপ্রদেশ), পটনা (বিহার), হৃষীকেশ (উত্তরাখণ্ড), ভুবনেশ্বর (ওড়িশা) এবং রায়পুর (ছত্তীসগঢ়)। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক সূত্রের খবর, পশ্চিমবঙ্গ-সহ চারটি রাজ্যকে এইমস-এর প্রকল্প শুরু করার জন্য ন্যূনতম দু’বছর সময় দেওয়া হবে। প্রাথমিক ভাবে পরিকাঠামো নির্মাণের জন্য ৫০০ কোটি টাকা সমান ভাবে বণ্টন করা হবে। কাজের অগ্রগতি বুঝে পরবর্তী বাজেটে ফের বরাদ্দের ভাবনা থাকবে।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের এক কর্তা জানান, টাকা বরাদ্দের পর রাজ্য সরকার জমি হস্তান্তর করবে এবং অন্য পরিকাঠামো গড়ে দেবে। তার পর হাসপাতালের রূপরেখা তৈরির জন্য কেন্দ্র একটি উপদেষ্টা সংস্থা নিয়োগ করবে। সংস্থার প্রকল্প রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে নির্মাণের জন্য ঠিকাদার সংস্থাকে দরপত্র ডেকে বরাত দেওয়া হবে।

Advertisement

এর আগে এনডিএ সরকারের আমলেই স্থির হয়েছিল কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এইমস-এর ধাঁচে হাসপাতাল হবে। পরে সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে মন্ত্রক। প্রথম ইউপিএ সরকারের আমলে কংগ্রেস সাংসদ প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সি রায়গঞ্জে এইমস গড়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। তিনি অসুস্থ হয়ে পড়ার পরে তাঁর স্ত্রী দীপা দাশমুন্সিও সেই প্রস্তাবেই জোর দেন। এ রাজ্যে তৃণমূল ক্ষমতায় আসার পরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অবশ্য কল্যাণীকে তাঁর পছন্দের তালিকায় শীর্ষে রেখেছিলেন। মোদী সরকারের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন জানিয়েছেন, রাজ্য যেখানে চাইবে, সেখানেই হবে এইমস। সেই অনুযায়ী রাজ্যের তরফে কল্যাণীর প্রস্তাবই পাঠানো হয়েছে। কেন্দ্র তা মেনেও নিয়েছে। শুধু এইমস নয়, এ বারের বাজেটে স্থির হয়েছে, দেশের বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে মোট ১২টি নতুন মেডিক্যাল কলেজ তৈরি হবে। তবে কোন কোন রাজ্য তা পেতে চলেছে, সে কথা উল্লেখ করা হয়নি। গ্রামীণ স্বাস্থ্যের উন্নতির উপরে জোর দিতে প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের সংখ্যা বাড়ানোর কথাও বলা হয়েছে। পাশাপাশি ১৫টি ‘মডেল গ্রামীণ স্বাস্থ্য গবেষণা কেন্দ্র’ গড়া হবে।

দেশ জুড়ে ওষুধ পরীক্ষার বেশ কিছু নতুন গবেষণাগার তৈরিরও সিদ্ধান্ত হয়েছে। সেই সঙ্গে বিভিন্ন রাজ্যের ৩১টি গবেষণাগারকে উন্নত করতে কেন্দ্রীয় সাহায্য দেওয়া হবে। যক্ষ্মা রোগীদের জন্য আরও কিছু চিকিৎসাকেন্দ্র তৈরি হবে। দিল্লির এইমস এবং চেন্নাই মেডিক্যাল কলেজে বয়স্কদের অসুখ সম্পর্কে চিকিৎসা ও গবেষণার জন্য পৃথক কেন্দ্র তৈরি হবে।

প্রতি বছর বিভিন্ন দেশ থেকে অনেক রোগী চিকিৎসার জন্য ভারতে আসেন। এই মেডিক্যাল পর্যটকদের আকর্ষণ করতে মেডিক্যাল ভিসা সস্তা করার কথাও বলা হয়েছে এই বাজেটে। দরিদ্র মানুষের জন্য নিখরচায় চিকিৎসা এবং বিভিন্ন রকমের ডাক্তারি পরীক্ষানিরীক্ষার ব্যবস্থাকেও অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.