Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১১ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

পিএফআই-র দফতর সচিব কাপ্পান, দাবি যোগী সরকারের

উত্তরপ্রদেশ সরকারের হয়ে হলফনামা জমা দিয়ে কাপ্পানদের জামিনের বিরোধিতা করেন সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ২১ নভেম্বর ২০২০ ০৪:৫৬
Save
Something isn't right! Please refresh.
ছবি: সংগৃহীত।

ছবি: সংগৃহীত।

Popup Close

হাথরসে যেতে গিয়ে গ্রেফতার কেরলের সাংবাদিক সিদ্দিক কাপ্পান জঙ্গি মনোভাবাপন্ন সংগঠন পপুলার ফ্রন্ট অব ইন্ডিয়া (পিএফআই)-র সক্রিয় সদস্য এবং দফতর সচিব বলে দাবি করল উত্তরপ্রদেশ সরকার। তিনি এবং অন্য দুই সঙ্গী সাংবাদিকতার মোড়কে হাথরসে গিয়ে ‘জাতপাতের উত্তেজনাকে উসকে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন’ বলেও সুপ্রিম কোর্টে হলফনামা দিয়ে জানাল যোগী আদিত্যনাথের সরকার। হলফনামায় বলা হয়েছে— নিজের সাংবাদিক পরিচয় হিসেবে কাপ্পান ২০১৮ সালে বন্ধ হয়ে যাওয়া একটি মালয়ালম পত্রিকার কার্ড দেখিয়েছিলেন, যা অবৈধ।

উত্তরপ্রদেশের হাথরসে উচ্চবর্ণের যুবকদের হাতে ধর্ষণ ও খুন হওয়া দলিত তরুণীকে পরিবারের অনুমতি ছাড়া পেট্রল ঢেলে দেহ পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল পুলিশের বিরুদ্ধে। মধ্যরাতে দেহ পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনা সংবাদ মাধ্যম প্রকাশ্যে আনার পরে পুলিশের নিশানা হয়ে যান কর্তব্যরত সাংবাদিক ও আলোকচিত্রীরা। গোটা দেশের নজর কাড়ে যোগী-রাজ্যের সেই ভয়ানক ঘটনা। এর পরে দিল্লি থেকে কেরলের সাংবাদিক কাপ্পান এবং তাঁর দুই সঙ্গী একটি অ্যাপ-ক্যাব ভাড়া করে হাথরসের উদ্দেশে রওয়ানা হলে ৫ অক্টোবর পুলিশ মথুরায় তাঁদের আটক করে। পরের দিন কাপ্পান ও তাঁর সঙ্গীদের বিরুদ্ধে ইউএপিএ-তে মামলা করে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। এমনকি ভাড়া খাটা ওই ট্যাক্সিচালকের বিরুদ্ধেও একই ধারায় মামলা করে পুলিশ।

কাপ্পানকে গ্রেফতারের নিন্দায় সরব হন সাংবাদিকেরা। কেরলে আন্দোলনে নামেন তাঁর সহকর্মীরা। কেরলের সাংবাদিক ইউনিয়ন তাদের সদস্য কাপ্পানের জামিনে মুক্তির আর্জি জানিয়ে আদালতে যায়। সেই আর্জি এ দিন সুপ্রিম কোর্টে প্রধান বিচারপতি এসএ বোবদে, বিচারপতি এএস বোপান্না এবং বিচারপতি ভি রামসুব্রমন্যমের বেঞ্চে ওঠে। সেখানে উত্তরপ্রদেশ সরকারের হয়ে হলফনামা জমা দিয়ে কাপ্পানদের জামিনের বিরোধিতা করেন সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা। তিনি এ যুক্তিও দেন, কাপ্পানের হয়ে জামিনের আবেদন জানানোর অধিকার এই সাংবাদিক সংগঠনের নেই। কারণ, কাপ্পানের গ্রেফতারে তাদের কাজে কোনও প্রভাব পড়ে না। কাপ্পানের নিয়োগ করা কোনও আইনজীবীই কেবল জামিনের আর্জি জানাতে পারেন।

Advertisement

কেরলের সাংবাদিক সংগঠনের পক্ষে সওয়াল করে বর্ষীয়ান আইনজীবী কপিল সিব্বল জানান, সদস্যের হয়ে আইনি লড়াইয়ের অধিকার সাংবাদিক ইউনিয়নের আছে। বিশেষ করে কাপ্পানের পক্ষে কোনও আইনজীবীকে সওয়াল করার সুযোগ না-দেওয়ার পরে। সলিসিটর জেনারেল দাবি করেন, কাপ্পানের হয়ে কোনও আইনজীবী দাঁড়ালে সরকারের আপত্তি নেই। এ জন্য কাউকে বাধাও দেওয়া হয়নি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement