Advertisement
০৪ ডিসেম্বর ২০২২
Smriti Irani

Fuel Price: জ্বালানি নিয়ে  প্রশ্নের মুখে স্মৃতি

বিমান থেকে নামার মুহূর্তে মহিলা কংগ্রেস সভাপতি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে প্রশ্ন করে অস্বস্তিতে ফেলার ঘটনায় সরব হয়েছেন অসমের বিজেপি নেতৃত্ব৷

কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি।

কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। ফাইল চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
গুয়াহাটি ও শিলচর শেষ আপডেট: ১১ এপ্রিল ২০২২ ০৮:০৯
Share: Save:

“কিসের শুভ বিহু যেখানে গ্যাসের দাম আকাশছোঁয়া, মানুষের ঘরে স্টোভ জ্বলছে না?” গুয়াহাটিতে উত্তর-পূর্ব আঞ্চলিক বৈঠকে অংশ নিতে আসছিলেন কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। গুয়াহাটি বিমানবন্দরে নামার পরে নামতে থাকা যাত্রীরা স্মৃতি ইরানিকে পেয়ে বিহুর শুভেচ্ছা জানাচ্ছিলেন। কিন্তু তাল কাটল তেল ও গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে ধেয়ে আসা প্রশ্নে।
একই বিমানে ছিলেন সর্বভারতীয় মহিলা কংগ্রেসের ভারপ্রাপ্ত সভানেত্রী নেত্তা ডি’সুজ়া। বিমানের মধ্যেই তিনি মোবাইলে ভিডিয়ো করতে করতে স্মৃতিকে মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে প্রশ্ন করতে থাকেন। বিমান থেকে নামার পরেও চলতে থাকে সওয়াল-জবাব। নেত্তাকেও ঘটনাটি মোবাইলবন্দি করতে দেখা যায়। তিনি পরে সেই কথোপকথনের ভিডিয়ো টুইট করে লেখেন, ‘‘মোদী মন্ত্রিসভার মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি এলপিজির দাম বাড়ার জন্য টিকা, রেশন এমনকী গরিবদেরও ঘাড়ে দোষ চাপালেন!’’

Advertisement

ভিডিয়োর শুরুতে প্রশ্নকর্তাকে বাকি যাত্রীদের রাস্তা ছেড়ে দেওয়ার জন্য বলতে দেখা যায় স্মৃতিকে। দাম বাড়ার প্রশ্নে তিনি বলেন, “দয়া করে মিথ্যে বলবেন না। আপনি অপব্যাখ্যা করছেন।” নামার পরেও মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে প্রশ্ন করতে থাকা নেত্তাকে স্মৃতি যুক্তি দেন, মানুষ বিনামূল্যে টিকা পাচ্ছে, রাজ্য সরকার বিনা মূল্যে রেশন দিচ্ছে গরিবদের। স্মৃতির যুক্তি মানতে নারাজ নেত্তাকে বিরক্ত স্মৃতি বলেন, “আমায় অন্যায় ভাবে অভিযুক্ত করছেন।” নেত্তাও বলেন, “আপনি এক জন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। আপনার কাছে মানুষ জবাব চাইবেই।”

বিমান থেকে নামার মুহূর্তে মহিলা কংগ্রেস সভাপতি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে প্রশ্ন করে অস্বস্তিতে ফেলার ঘটনায় সরব হয়েছেন অসমের বিজেপি নেতৃত্ব৷ রাজ্যের মন্ত্রিসভার মুখপাত্র পীযূষ হাজরিকা বলেন, ‘‘গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে মন্ত্রীদের কাছে কৈফিয়ত তলবের নানা প্ল্যাটফর্ম রয়েছে৷ মহিলা কংগ্রেস সভাপতি ওই পথে না গিয়ে স্মৃতি ইরানিকে যে ভাবে অপদস্থ করার চেষ্টা করেছেন, তা নিন্দনীয়৷ এটা ভারতীয় সংস্কৃতি নয়, অসমিয়া সংস্কৃতি তো নয়ই।’’ এই ধরনের আচরণ না করার জন্য তিনি নেত্তাকে সতর্ক করে দেন৷ একই সুরে প্রতিবাদে সরব রাজ্যসভার সদস্য পবিত্র মার্ঘারিটা৷ তিনি বলেন, ‘‘স্মৃতি ইরানির সঙ্গে দুর্ব্যবহারই করলেন নেত্তা৷ কোনও রাজনীতিকের সুস্থ বিতর্কের প্রক্রিয়া নয়৷’’

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.