Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৬ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

এসপিজি উঠল, জ়েড প্লাস নিরাপত্তা পাবেন মনমোহন

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জানিয়েছে, রাজনৈতিক নেতাদের উপর হামলার আশঙ্কার সম্ভাবনা একটি নির্দিষ্ট সময়ে অন্তর খতিয়ে দেখা হয়। সেই সমীক্ষার ভিত্তিতেই সি

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি ২৭ অগস্ট ২০১৯ ০৩:১৯
Save
Something isn't right! Please refresh.
মনমোহন সিংহ। ফাইল চিত্র।

মনমোহন সিংহ। ফাইল চিত্র।

Popup Close

দু’দফার প্রধানমন্ত্রী ও বর্তমানে রাজ্যসভার সাংসদ হওয়া সত্ত্বেও মনমোহন সিংহের স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপ-এর (এসপিজি) সুরক্ষা সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্র। পরিবর্তে তিনি এখন থেকে জ়েড প্লাস সুরক্ষা পাবেন বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। এই সিদ্ধান্তের ফলে এ দেশে কেবল প্রধানমন্ত্রী এবং গাঁধী পরিবার এসপিজি সুরক্ষার আওতায় রইলেন। শারীরিক অসুস্থতার কারণে প্রায় এক দশক অন্তরালে থাকলেও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর এসপিজি সুরক্ষা কিন্তু শেষ দিন পর্যন্ত রেখে দেওয়া হয়েছিল। তা হলে রাজনীতিতে সক্রিয় এবং খালিস্তান জঙ্গিদের নিশানায় থাকা মনমোহনের সুরক্ষা কেন কমিয়ে দেওয়া হল তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জানিয়েছে, রাজনৈতিক নেতাদের উপর হামলার আশঙ্কার সম্ভাবনা একটি নির্দিষ্ট সময়ে অন্তর খতিয়ে দেখা হয়। সেই সমীক্ষার ভিত্তিতেই সিদ্ধান্ত হয়েছে। ২০১৪ সাল থেকে এত দিন মনমোহন ও তাঁর স্ত্রী এসপিজি সুরক্ষা পেয়ে এসেছেন। এ বছর মে মাসে সেই নিরাপত্তা এক বছরের জন্য নবীকরণের কথা ছিল। পরিবর্তে তা তিন মাস বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্র। তিন মাস পরে এক বার তা জ়েড প্লাসে নামিয়ে আনা হল। এখন সিআরপিএফের ৩৫ জন কম্যান্ডোর একটি দল মনমোহনকে সর্বদা ঘিরে থাকবে।

২০০৪ সালে দেশের প্রথম শিখ প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর থেকেই মনমোহনের উপরে পাক মদতে পুষ্ট খালিস্তানি জঙ্গি সংগঠনগুলির হামলার আশঙ্কা রয়েছে। বর্তমানে তিনি কংগ্রেসের রাজ্যসভা সাংসদ হলেও সেই আশঙ্কা নির্মূল হয়নি। তাই এ ভাবে এসপিজি সুরক্ষা তুলে দেওয়ায় মনমোহনের সুরক্ষার প্রশ্নে সংশয় তৈরি রয়েছে বিভিন্ন মহলে।

Advertisement

ইন্দিরা গাঁধীর হত্যার পরে প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর পরিবারকে নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য ১৯৮৫ সালে এসপিজি বাহিনী গঠন হয়। ১৯৮৯ সালে ভি পি সিংহ ক্ষমতায় এসে গাঁধী পরিবারের এসপিজি নিরাপত্তা তুলে দেন। অনেকে মনে করেন, ১৯৯১ সালে বোমা বিস্ফোরণে রাজীবের মৃত্যুতে নিরাপত্তার ফাঁকও একটা ভূমিকা নিয়েছিল। তার পরেই এসপিজি আইনে পরিবর্তন হয়। ঠিক হয়, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ও তাঁদের পরিবারদের অন্তত দশ বছর নিরাপত্তা দেবে এসপিজি। কিন্তু ১৯৯৯ সালে বাজপেয়ী সরকার ক্ষমতায় এসে দশ বছরের পরিবর্তে হামলার আশঙ্কা ফি বছর খতিয়ে দেখার সিদ্ধান্ত নেয়। বাজপেয়ীর আমলেই পি ভি নরসিংহ রাও, দেবগৌড়া এবং ইন্দ্রকুমার গুজরালদের মতো তিন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর এসপিজি নিরাপত্তা কমিয়ে জ়েড প্লাস করা হয়েছিল।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement