Advertisement
২০ এপ্রিল ২০২৪
Danish Siddiqui

Danish Siddiqui: পরিচয় জেনেও সাংবাদিক দানিশকে নির্মম ভাবে খুন করেছে তালিবান, চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট

স্পিন বোলডাক এলাকায় আফগান বাহিনীর সঙ্গে গিয়েছিলেন দানিশ। আফগান বাহিনীর সঙ্গে তালিবানের সংঘর্ষের খবর সংগ্রহ করছিলেন তিনি।

ছবি: রয়টার্স।

ছবি: রয়টার্স।

সংবাদ সংস্থা
ওয়াশিংটন শেষ আপডেট: ৩০ জুলাই ২০২১ ০৩:১১
Share: Save:

সংঘর্ষের মাঝে পড়ে মৃত্যু হয়নি পুলিৎজারজয়ী ভারতীয় চিত্র সাংবাদিক দানিশ সিদ্দিকির। পরিচয় জানার পরেও তাঁকে নির্মম ভাবে হত্যা করেছে তালিবান। বৃহস্পতিবার এমনই চাঞ্চল্যকর দাবি করল আমেরিকার একটি ম্যাগাজিন।

ওই ম্যাগাজিনে প্রকাশিত রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে যে, তালিবান জঙ্গিরা দানিশের পরিচয় যাচাই করেছিল আগে। তার পর তাঁকে নির্মম ভাবে হত্যা করে। যদিও তালিবান দানিশের হত্যার কথা অস্বীকার করেছে। উল্টে তাঁর মৃত্যুতে শোক জ্ঞাপনও করেছিল তারা।

বছর আটত্রিশের দানিশ আফগানিস্তানে সংঘর্ষের খবর করতে গিয়েছিলেন। ওয়াশিংটন একজামিনার-এর রিপোর্ট বলছে, স্পিন বোলডাক এলাকায় আফগান বাহিনীর সঙ্গে গিয়েছিলেন দানিশ। আফগান বাহিনীর সঙ্গে তালিবানের সংঘর্ষের খবর সংগ্রহ করছিলেন তিনি। আফগান বাহিনী এগোতেই তালিবান তাদের লক্ষ্য করে হামলা শুরু করে। সেই হামলার মুখে পড়ে মূল বাহিনী থেকে ছিটকে দানিশ এবং তিন আফগান সেনা। সেই সময়েই জখম হন দানিশ।

তাঁকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি মসজিদে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাঁর প্রাথমিক চিকিৎসা করায় আফগান সেনা। মসজিদে দানিশদের আশ্রয়ের খবর ছড়িয়ে পড়তেই তালিবান জঙ্গিরা সেখানে হামলা চালায়। স্থানীয়দের দাবি, মসজিদে সাংবাদিক আশ্রয় নিয়েছে এটা জেনেই সেখানে হামলা চালায় জঙ্গিরা।

ওই ম্যাগাজিনের রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, জঙ্গিরা যখন মসজিদে ঢোকে তখন জীবিত ছিলেন দানিশ। প্রথমে তাঁর পরিচয় যাচাই করে জঙ্গিরা। তার পরই তাঁকে হত্যা করা হয়। দানিশের সঙ্গে থাকা আফগান সেনাদেরও খুন করে জঙ্গিরা।

রোহিঙ্গাদের নিয়ে খবর করার জন্য ২০১৮-য় পুলিৎজার পুরস্কার পান দানিশ। রয়টার্সের চিত্র সাংবাদিক ছিলেন তিনি। গত ১৬ জুলাই আফাগনিস্তানের খবর করতে গিয়ে মৃত্যু হয় তাঁর।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE